আহমদ মুঈনউদ্দীন চিশতি -blog


...


 


নাটক-সিনেমা বন্ধ করে সে অর্থ গরীব-দুঃখীদের মাঝে বণ্টন করা হয় না কেন?


মুসলমানদের হালাল ও নৈকট্যশীল কাজ অপখাতে ও হারাম কাজে দেয়া বন্ধ করে দিয়ে, দেশে নাটত, সিনেমা, খেলাধূলাসহ যত হারাম কাজ হয়, সেগুলো বন্ধ করে হারাম কাজে ব্যয়কৃত টাকা বন্যার্তদের মাঝে দেয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। ** এদেশে সরকারি বেসরকারি সব হারাম টিভি



উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আছ ছামিনাহ্ আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত ভাই সাইয়্যিদুনা হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে হারিছ আলাইহিস সালাম উনার


আল্লামা হযরত আবূ উমর ইবনে আব্দুল বার রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি এবং আল্লামা হযরত ইবনে আছীর রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি অর্থাৎ উনারা উনাদের কিতাবে উল্লেখ করেন, حضرت عبد الله بن الحارث بن أبي ضرار رضى الله تعالى عنه واسمه حضرت حبيب رضى الله



অনলাইন ভিত্তিক কুরবানীর পশুর হাট শরীয়তসম্মত নয়


অনলাইনে কুরবানীর পশু বেচা-কেনা করার অর্থ হচ্ছে কুরবানীর পশুর ছবি দেখিয়ে বেচা-কেনা করা। অথচ সম্মানিত শরীয়ত তথা দ্বীন ইসলামে প্রাণীর ছবি তোলা, তোলানো, দেখা ও দেখানো সবই হারাম। ছহীহ বুখারী শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে- إِنَّ أَشَدَّ النَّاسِ عَذَابًا عِنْدَ اللهِ



সুমহান বরকতময় মহাসম্মানিত মহাপবিত্র ৭ শরীফ। সুবহানাল্লাহ! যা সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, আখাছছুল খাছ আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই আমার হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম ও আলাইহিন্নাস সালাম উনারা আসমান ও যমীনবাসীদের জন্য নিরাপত্তা দানকারী।” সুবহানাল্লাহ! সুমহান বরকতময় মহাসম্মানিত মহাপবিত্র ৭ শরীফ। সুবহানাল্লাহ! যা সাইয়্যিদাতু



সুমহান মহাপবিত্র যিলক্বদ শরীফ মাস উনার ৮, ১১, ১২, ১৩, ১৪ এবং ১৬ তারিখ সম্মানিত আইয়্যামুল্লাহ শরীফ উনাদের অন্তর্ভূক্ত।


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘মহান আল্লাহ পাক উনার নিদর্শন সম্বলিত দিবসগুলিকে স্মরণ করিয়ে দিন সমস্ত কায়িনাতকে। নিশ্চয়ই এর মধ্যে ধৈর্যশীল ও শোকরগোজার বান্দা-বান্দী উনাদের জন্য ইবরত ও নছীহত রয়েছে।’ সুবহানাল্লাহ! সুমহান মহাপবিত্র যিলক্বদ শরীফ মাস উনার ৮, ১১,



ওলীয়ে মাদারযাদ, আওলাদে রসূল হযরত নাক্বীবাতুল উমাম আলাইহাস সালাম এবং ওলীয়ে মাদারযাদ, আওলাদে রসূল হযরত নিবরাসাতুল উমাম আলাইহাস সালাম


পঞ্চদশ হিজরী শতকের সুমহান মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে মাদারযাদ, সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম, হুজ্জাতুল ইসলাম, ছাহিবু সুলত্বানিন নাছীর, জামিউল আলক্বাব, আন নি’মাতুল কুবরা আলাল আলাম, ইমামুল উমাম, জব্বারিউল আউওয়াল, ক্বউইয্যুল আউওয়াল, আস সাফ্ফাহ, হাবীবুল্লাহ সাইয়্যিদুনা মামদূহ হযরত ইমামুল উমাম ক্বিবলা কা’বা আলাইহিস সালাম তিনি,



আজ সুমহান বেমেছাল ফযীলতপূর্ণ বরকতময় ৮ই পবিত্র মুহররমুল হারাম শরীফ। সুবহানাল্লাহ! বিনতু মিন বানাতি রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ উম্মু আবীহা সাইয়্যিদাতুনা হযরত আন নূরুল ঊলা আলাইহাস সালাম তিনি আমার অন্যতম সর্বশ্রেষ্ঠ বানাত অর্থাৎ মেয়ে।” সুবহানাল্লাহ! আজ সুমহান বেমেছাল ফযীলতপূর্ণ বরকতময় ৮ই পবিত্র



সন্তানদের পবিত্র কুরআন শরীফ ও আরবী ভাষা শিক্ষা দেয়া পিতা-মাতার দায়িত্ব


সবাই বলে- আপনার সন্তানদের বেশি বেশি বই পড়ান, যত পড়বে তত জানবে, তত শিখবে। ভালো কথা। কিন্তু এটা কি শুধুই গল্প-উপন্যাস আর আউট নলেজের নামে এমন কিছু শিখানো, যেখানে ইসলাম নেই, মুসলমানিত্ব নেই? যদি তা নাই হয়- তাহলে সন্তানকে সবই শিখাচ্ছেন



চাঁদ বিষয়ে প্রশ্ন: সঠিক উত্তরটি চিহ্নিত করুন


১) চাঁদ একটি উপবৃত্তাকার পথে পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করে। আবার পৃথিবী ২৩.৫ ডিগ্রি কোণে সূর্যকে প্রদক্ষিণ করে। কখনো চাঁদ পৃথিবীর কাছে থাকে আবার দূরে যায়, আবার পৃথিবী কখনো সূর্যের কাছে থাকে আবার দূরে যায়। সে কারণে একটি নির্দিষ্ট দেশ কখনো সবসময় প্রথমে



মু’মিন-মুসলমান হতে হলে হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদের অনুসরণেই হতে হবে |


এতদ্ব্যতীত মু’মিন মুসলমান হওয়ার জন্য বিকল্প কোনো ব্যবস্থা নেই এখন যদি কেউ নিজেকে মু’মিন-মুসলমান বলে মনে করে, মুসলমান বলে পরিচয় দেয়, তাহলে সে দাড়ী মু-ন করতে পারবে না।   দাড়ী রাখতে হবে, সাদা সুতী কাপড়ের গোল টুপি পরতে হবে। পাগড়ী পরতে



প্রসঙ্গ: কল্যাণমূলক রাষ্ট্রের ধারণা ও ক্বিয়ামত সংঘটনের তথ্য


অধুনা পুলিশী রাষ্ট্র বা সরকারব্যবস্থার পরিবর্তে কল্যাণমূলক রাষ্ট্র বা সরকারব্যবস্থার ধারণার প্রবর্তন হয়েছে। কিছুটা অনুশীলন হচ্ছেও বলে দাবি করা হচ্ছে। কিন্তু ‘কল্যাণমূলক’ ধারণাটির প্রকৃত ব্যাপ্তি নির্দেশিত হয়েছে পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে। যেমন- পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করে



যেখানে মানুষের কিংবা কোনো প্রাণীর ছবি থাকে সেখানে রহমতের ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারা প্রবেশ করেন না


হযরত আবু হুরায়রা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ঐ ঘরে রহমতের ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারা প্রবেশ করেন না, যে ঘরে প্রাণীর মূর্তি বা প্রাণীর ছবি থাকে। (ফিকহাস