মুহম্মদ মামুন -blog


...


মুহম্মদ মামুন
 


শুধুমাত্র শোষণ করার জন্যই ঢাকা শহরকে বিকেন্দ্রীকরণ করা হচ্ছে না


রাস্তার দুইদিকে যেভাবে অট্টালিকা গড়ে উঠেছে, সেগুলো ভেঙে দিয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রশস্ত করার সম্ভাবনা ক্ষীণ। রাজউককে কোনো অবকাঠামোর অনুমোদন দেয়ার আগে রাস্তা সম্পর্কে আরও শক্ত অবস্থান দেখাতে হবে। আবার রাজউক, সিটি করপোরেশন বা সরকারের বিভিন্ন সংস্থাকে শুধু দোষারোপ করলেই সমস্যার সমাধান



‘দান করলে সম্পদ কমে না’ এই পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার পরিপূর্ণ মিছদাক হলেন আমিরুল মু’মিনীন হযরত যুন নূরাইন আলাইহিস


একবার আখিরী রসূল, নুরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার কাছে উনার সম্মানিত দামাদ আমীরুল মু’মিনীন, সাইয়্যিদুনা হযরত যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম তিনি এসে আরজি করলেন, ‘ইয়া রাসূলাল্লাহ ইয়া হাবীবাল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম; আমাকে আমার সম্পদ কমে



৫০ বছর আগে শুরু হওয়া বিশ্ব ইজতেমার কথিত ফজিলত নাকি পবিত্র হাদীছ শরীফ গ্রন্থে আছে!! তাবলীগীরা এত বড় মিথ্যাচার


ঢাকার টঙ্গিতে ছয় উছুলী তাবলীগীদের বিশ্ব ইজতেমা শুরু হয় ১৯৬৭ সালে। তাবলীগীদের এক কথিত মুরুব্বী তার প্রকাশিত ‘দাওয়াতে তাবলীগ (সমালোচনা কারীদের প্রশ্ন ও তার জবাব)’ নামক বইতে বিশ্ব ইজতেমায় নামায পড়ার ফজিলত সম্পর্কে লিখতে গিয়ে সে প্রসিদ্ধ হাদীছ শরীফ গ্রন্থ আবু



আধুনিকায়নের নামে আমরা গিনিপিক হতে চাই না


পারমাণবিক শক্তিধর একমাত্র মুসলিম দেশ পাকিস্তান। শান্তি-শৃংখলার সাথেই পাকিস্তানবাসী দিনাতিপাত করছিলো। কিন্তু তথাকথিত আধুনিকায়ন তাদের ইতমিনান কেড়ে নিলো। ডিজিটালাইজড করতে দেশব্যাপী ছবি সংগ্রহ করা হয়। এক্ষেত্রে সে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল হতে শুরু করে পার্বত্য অঞ্চল সব কিছুরই ভিডিও করা হয় এবং



মুসলমানদের জন্য কাফির-মুশরিক, বিধর্মী-বিজাতীয়দের প্রবর্তিত দিবসসমূহ পালন করা হারাম। যে পালন করবে, সে মুসলমান থেকে খারিজ হয়ে যাবে


সম্মানিত মুসলমান উনাদেরকে যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি “আইয়্যামুল্লাহ” অর্থাৎ মহান আল্লাহ পাক উনার সম্মানিত দিবসসমূহ পালন করার জন্য আদেশ মুবারক করেছেন। বিপরতী পক্ষে মহান আল্লাহ পাক উনার শত্রু কাফির-মুশরিক, বেদ্বীন-বিজাতিদের প্রবর্তিত ও পালিত দিবসসমূহ পালন করতে নিষেধ



মুজাদ্দিদে আ’যম নূরে মুকাররম সাইয়্যিদুনা ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার সম্মানিত মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি যাদের জানাযা


একাদশ হিজরী শতকের মুজাদ্দিদ আফদ্বালুল আউলিয়া, ক্বইয়ূমে আউওয়াল হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার সীরতগ্রন্থে উল্লেখ রয়েছে, তিনি যাদের জানাযা নামাযের ইমামতি করবেন উনাদের সকলের জন্য জান্নাত ওয়াজিব। সুবহানাল্লাহ! বলার অপেক্ষা রাখে না, তিনি যাদের জানাযা নামাযের ইমামতি করেছেন উনারা



সবাই সাবধান!! পবিত্র কুরবানী ঈদ আসলেই ‘মোটাতাজা গরুতে বিষ রয়েছে’ এমন মিথ্যা গুজব ছড়াতে তৎপর হয় ইসলামবিদ্বেষীরা


পবিত্র কুরবানী ঈদ আসলে একটি ইসলামবিদ্বেষী মহল মুসলমান উনাদের গরু কুরবানী থেকে বিরত রাখতে ‘মোটা তাজা গরুতে বিষ রয়েছে’- এমন মিথ্যা গুজব রটিয়ে থাকে। অথচ গরু মোটা তাজাকরণে যেসব ঔষধ প্রয়োগ করা হয়, তার মাধ্যমে মনুষ্য শরীরে ক্ষতি হওয়ার কোনো সম্ভবনাই



মুবারক হো- মহিমান্বিত পবিত্র ১১ই যিলক্বদ শরীফ ঈদে বিলাদতে সাইয়্যিদুল উমাম আলাইহিস সালাম:


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি মহাপবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “হে আমার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি জিন-ইনসান উনাদেরকে খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার বিশেষ বিশেষ দিন সম্পর্কে



গাউছুল আ’যম হযরত বড়পীর ছাহেব রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি ছিলেন পবিত্র মাযহাব উনার অনুসারী এবং হযরত পীর ছাহেব উনার মুরীদ


হযরত বড়পীর ছাহেব রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার মুবারক জীবনী পাঠে জানা যায়, তিনি ছিলেন সম্মানিত হাম্বলী মাযহাব উনার অনুসারী। আর তরীক্বতের পথে তিনি ছিলেন কামিল পুরুষ। এক্ষেত্রে তিনি তদীয় পীর ছাহেব হিসেবে হযরত শায়খে আবূ সাঈদ মুবারক মাখদুমী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার হাতে



লা-মাযহাবীদের আতঙ্ক হযরত ইমামে আ’যম রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার বুযূর্গী


হযরত সুফিয়ান ছাওরী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার ভাই ইন্তিকাল করলে সেখানে হযরত ইমামে আ’যম আবু হানীফা রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি তাশরীফ নিলেন। হযরত সুফিয়ান ছাওরী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি যখন হযরত ইমামে আ’যম রহমতুল্লাহি আলাইহি উনাকে দেখলেন তখন তিনি ভরা মজলিসে অত্যন্ত তাযীম-তাকরীমের সাথে



নাজাতের জন্য আক্বীদাই মূল। সঠিক আক্বীদা ব্যতীত আমলের কোনোই মূল্য নেই।


খালিক্ব, মালিক, রব আল্লাহ পাক তিনি মানুষ জাতি ও জিন জাতিকে সৃষ্টি করেছেন। অতঃপর উনার মুহব্বত-মা’রিফাত, সন্তুষ্টি ও নৈকট্য হাছিলের জন্য এবং এর বিপরীতে উনার অসন্তুষ্টি, লা’নত, আযাব-গযব থেকে পরিত্রাণ লাভের জন্য জিন-ইনসান, বান্দা-বান্দীদের জন্য প্রথমত শর্ত আরোপ করেছেন ঈমানের এবং