মুহছিন কবির -blog


...


মুহছিন কবির
 


‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ’ পালন করা- হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদের খাছ সুন্নত উনার অন্তর্ভুক্ত


মহান আল্লাহ পাক উনার মা’রিফাত-মুহব্বতে দগ্ধীভূত ব্যক্তি তথা মুসলমানগণ উনারা যে দিনটিকে মা’রিফাত-মুহব্বত লাভের উসীলা সাব্যস্ত করে হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদের অনুসরণে যুগ যুগ ধরে পালন করে আসছেন সেই মুবারক দিনটি ‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ’ হিসেবে মশহুর।



গুটি কয়েক বিধর্মীর জন্য মুসলমানগণ গরুর গোশত খাওয়া থেকে বঞ্চিত হতে পারে না


রাজধানীর কিছু হোটেলসহ দেশের উত্তরবঙ্গের পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, নীলফামারী, লালমনিরহাট, নওগাঁ, রংপুর, কুড়িগ্রাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, বগুড়া, জয়পুরহাটসহ সবকয়টি জেলায় করে দেখা গেছে- প্রত্যেকটি জেলা শহরের অধিকাংশ বড় বড় হোটেলগুলোতে গরুর গোশত নেই। নাউযুবিল্লাহ! অথচ গরুর গোশত ১০০% হালাল ও এটি একটি খাছ সুন্নতী



আত-তাক্বউইমুশ শামসী প্রণয়নের পেক্ষাপট: বর্ষপঞ্জি বা ক্যালেন্ডার ও তার একক সমূহ


বর্ষপঞ্জি বলতে বছর গণনা বা হিসাব করার একটি সুশৃঙ্খল তর্জ ত্বরীকাকে বুঝানো হয়। মূলতঃ বর্ষপঞ্জি হচ্ছে মাস, সপ্তাহ ও দিনে বিভক্ত একটি বছর ভিত্তিক সারণি; যেখানে দিন, সপ্তাহ, মাস ও বছর এককগুলো ব্যবহৃত হয়। বর্ষপঞ্জি প্রণয়নের ভিত্তি হলো মহাকাশবিজ্ঞানের পর্যবেক্ষণলব্দ উপাত্ত।



পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষ্যে পশু কুরবানী মূলত নিছক গোশত খাওয়া কিংবা লোকপ্রদর্শনী নয়?


সেই দিন যদি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার খলীল হযরত ইব্রাহিম আলাইহিস সালাম উনার প্রাণপ্রিয় আওলাদ, যবীহুল্লাহ হযরত ইসমাঈল আলাইহিস সালাম তিনি ছুরির নিচে জবেহ হয়ে যেতেন, তাহলে সেই ধারাবাহিকতায় আমাদের প্রাণপ্রিয় সন্তানকেও কুরবানী করতে হতো। খালিক্ব মালিক রব



উম্মুল মু’মিনীন আস সাবি‘য়াহ্ সাইয়্যিদাতুনা হযরত আত্বওয়ালু ইয়াদান আলাইহাস সালাম উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র সংক্ষিপ্ত জীবনী মুবারক


সাইয়্যিদাতুন নিসায়ি ‘আলাল ‘আলামীন, আফদ্বলুন নাস ওয়ান নিসা বা’দা রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উম্মুল মু’মিনীন আস সাবি‘য়াহ্ সাইয়্যিদাতুনা হযরত আত্বওয়ালু ইয়াদান আলাইহাস সালাম উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র সংক্ষিপ্ত জীবনী মুবারক উম্মুল মু’মিনীন আস সাবি‘য়াহ্ সাইয়্যিদাতুনা হযরত আত্বওয়ালু ইয়াদান আলাইহাস সালাম



রে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ


সম্মানিত শরীয়ত মুবারক উনার সম্মানিত ফতওয়া মুবারক অনুযায়ী ‘নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের যারা মানহানী করবে, সেটা সরাসরি হোক বা ইশারা ইঙ্গিতেই হোক- তাদের



সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম উনার বেমেছাল তাক্বওয়া মুবারক


বেহেশতের প্রতিটি দরজা মুবারক সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবর আলাইহিস সালাম উনাকে আহবান করবে। উম্মতের মধ্যে তিনি সর্বপ্রথম বেহেশতে প্রবেশ করবেন। এতোসব মর্যাদাসম্পন্ন হওয়া সত্ত্বেও তিনি বলতেন, “আফসুস! আমি যদি গাছ হতাম, যা কেটে ফেলা হয়।” অনেক সময় বলতেন, “আমি যদি ঘাস



সনদ দ্বয়ীফ হলেই কি হাদীছ শরীফ গ্রহণ করা যাবে না?


যারা এমন কথা বলে তাদের জেনে রাখা দরকার ইমাম বুখারী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার বিখ্যাত “আদাবুল মুফরাদ” কিতাবে এমন অনেক পবিত্র হাদীছ শরীফ বর্ণনা করেছেন যার সনদ দ্বয়ীফ। বিখ্যাত হাদীছ শরীফ বিশারদ ইবনে হাজার আসকালানী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি উনার “তাকরীবুত তাহযীব” নামক



খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার পথে দান ছদকা করলে তা বহু গুনে বৃদ্ধি পায়


খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার এবং উনার হাবীব , নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের রিযামন্দি সন্তুষ্টি মুবারক লাভের অন্যতম মাধ্যম হচ্ছেন খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার রাস্তায় দান ছদকা করা । ইবাদত



মহাসম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের বেমেছাল শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক- ২


অন্য বর্ণনায় এসেছে- عَنْ حَضْرَتْ اِبْنِ عَبَّاسٍ رَضِىَ اللهُ تَعَالـٰى عَنْهُمَا قَالَ قَالَ رَسُوْلُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ اِنَّ حَضْرَتْ جِبْرِيْلَ عَلَيْهِ الصَّلـٰوةُ وَالسَّلَامُ اَخْبَرَنِـىْ اَنَّ اللهَ عَزَّ وَجَلَّ قَتَلَ بِدَمِ حَضْرَتْ يَـحْيَـى بْنِ زَكَرِيَّا عَلَيْهِمَا السَّلَامُ سَبْعِيْنَ اَلْفًا وَّهُوَ



গানবাজনাওয়ালা লোক মাদ্রাসার দায়িত্বে কেন ?


নতুন মন্ত্রীসভায় শিক্ষাপ্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে রাজবাড়ি-১ আসনের এমপি কাজী কেরামত আলীকে, দেয়া হয়েছে কারিগরি ও মাদ্রাসা বোর্ডের দায়িত্ব। কোন একটি বিষয়ে দায়িত্ব দেয়ার আগে ঐ লোকটি সে বিষয়ে কতটুকু উপযুক্ত সেটা যাচাই করা জরুরী। কারণ সে যদি উপযুক্ত-ই না



মহাসম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের বেমেছাল শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক


আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, ইমামুল মুহাদ্দিছীন মিনাল আউওয়ালিন ইলাল আখিরীন, ছহিবু ইলমিল আউওওয়ালি ওয়াল ইলমিল আখিরি, মুজাদ্দিদে আ’যম মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ হযরত আস সাফফাহ আলাইহিছ ছলাতু ওয়াস সালাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “সম্মানিত হাদীছ শরীফ