রাতের তারা -blog


...


 


কাফির-মুশরিকদের অনুসরণের কারণেই মহান আল্লাহ পাক উনার গায়েবী মদদ থেকে বঞ্চিত মুসলিম


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “হে ঈমানদারগণ! তোমরা আমার শত্রু এবং তোমাদের শত্রুকে বন্ধু হিসেবে গ্রহণ করো না।” (পবিত্র সূরা মুমতাহিনাহ শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ১) পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে কাফির-মুশরিকরা মুসলমানদের শত্রু একথা বারবার স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেয়ার



একটি দলীলভিত্তিক পর্যালোচনা: ছোঁয়াচে রোগ সম্পর্কে পবিত্র দ্বীন ইসলাম কি বলে?


* ঈমানদারদের জন্য আক্বীদা হলো ছোঁয়াচে বলতে কোন রোগ নেই * ছোঁয়াচে রোগে বিশ্বাস করা জাহেলী যুগের বৈশিষ্ট্য * জাহিলী যুগের বদ আক্বীদা রোধ করার জন্য ‘ছোঁয়াচে বলে কোন রোগ নেই’ এই হাদীছ শরীফ উনার অবতারনা * কথিত ছোঁয়াচে নামক বিশ্বাস



মুসলমানরা কি এটা চিন্তা-ফিকির করে দেখেছে? কথিত স্বাস্থ্যবিধির নামে ঘুরেফিরে বারবার একমাত্র দ্বীন ইসলাম উনার প্রতিই আঘাত করা হচ্ছে


কাফিরদের প্রতি নাযিলকৃত করোনা নামক গযব প্রতিরোধের নামে বার বার সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার প্রতি আঘাত হানছে কাফির-মুশরিকদের পা চাটা গোলাম নাস্তিক, মুনাফিক্ব, উলামায়ে সূ এবং গোমরাহ শাসকরা। শুরু থেকেই এরা বিভিন্ন কৌশলে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার বিভিন্ন বিষয় নষ্ট করে



সম্মানিত জিহাদ উনার বিরোধিতাকারীরা মুসলমান নয়


সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার আবশ্যকীয় বিধান সমূহের মধ্যে সম্মানিত জিহাদও একটি। সম্মানিত দ্বীন ইসলাম ও সম্মানিত মুসলমান উনাদের শত্রু হচ্ছে তাবৎ কাফির, মুশরিক ও মুনাফিকরা। অর্থাৎ ইহুদী, নাছারা, বৌদ্ধ, মজূসী ইত্যাদি ধর্মাবলম্বীরা। তারা সম্মানিত মুসলমান ও সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনাদের বিরোধিতা



মুসলমানদের অধিকার প্রতিষ্ঠিত করার অন্যতম উপায় শিক্ষানীতি তথা সিলেবাসের পরিবর্তন


রাশিয়ায় কমুনিস্টরা ক্ষমতা দখল করেই প্রথম যে কাজটি করেছিলো সেটি ছিলো- সম্পূর্ণ শিক্ষাব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন। কমুনিস্টরা নতুন শিক্ষাব্যবস্থা তৈরি করা পর্যন্ত বেশ কয়েকবছর তাদের সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে বন্ধ রাখে। এরপর তারা কমুনিজমকে শিক্ষার মূল পাঠ্য করে সেভাবেই পাঠ্যপুস্তকগুলো রচনা করে। কমুনিজমকে বাধ্যতামূলক



পবিত্র সুন্নত মুবারক জারী হওয়া মানেই বিদয়াত দূরীভূত হওয়া


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “ফিতনা-ফাসাদের যুগে যে একটি সুন্নত মুবারক উনাকে মাড়ির দাঁত দ্বারা শক্তভাবে আঁকড়িয়ে ধারণ করবে, সে একশত শহীদ উনাদের সওয়াব পাবে, কেমন শহীদ? বদর এবং উহুদের যুদ্ধে শরীক হওয়া শহীদ উনাদের ছওয়াব তথা মর্যাদা-মর্তবা



চিকিৎসা বিজ্ঞানের দৃষ্টিতেও বাল্যবিবাহ উপকারী; সমাজে অনৈতিকতা ছড়িয়ে দেয়াই বাল্যবিবাহ বিরোধীদের মূল লক্ষ্য


অল্প বয়সে বিবাহ ব্যাপারে পৃথিবীর সকল ধর্মের মানুষ এখন যেন দায়ভার সম্মানিত ইসলাম উনার উপর চাপিয়ে দেবার প্রতিযোগিতায় নেমেছে। আর এই অসুস্থ প্রচারণার শিকার হয়ে আজ এমনকি মুসলিমরাও এর বিরুদ্ধে বলতে শুরু করেছে অথবা নানাভাবে একে পাশ কাটিয়ে যেতে চাইছে। নাউযুবিল্লাহ!



জাহান্নামের ভয়াবহ আযাবের কথা কি ভুলে গেছেন?


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সম্মানিত মি’রাজ শরীফ উনার রাতে জাহান্নাম পরিদর্শনকালে জাহান্নামীদের এক দলকে দেখতে পেলেন তাদের মুখ রক্তে পরিপূর্ণ, তারা কঠিন আযাবে পতিত এবং কঠিন আযাবে আবদ্ধ। এরা হচ্ছে মহান আল্লাহ পাক উনার নামে



পবিত্র কুরবানী উনার পশুর চামড়া যথাস্থানে দিতে হবে। যেখানে সেখানে বা যেকোনো প্রতিষ্ঠানে দেয়া যাবে না।


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘তোমরা নেক কাজে ও পরহেযগারীতে পরস্পর পরস্পরকে সাহায্য করো। বদ কাজে অর্থাৎ পাপে ও শত্রুতায় পরস্পর পরস্পরকে সাহায্য করো না।’ পবিত্র কুরবানী উনার পশুর চামড়া যথাস্থানে দিতে হবে। যেখানে সেখানে বা যেকোনো প্রতিষ্ঠানে দেয়া



পবিত্র যিলহজ্জ শরীফ মাস উনার প্রথম ১০ দিনের ইবাদত অশেষ ফযীলত লাভের মহান উপলক্ষ্য


আরবী পবিত্র যিলক্বদ শরীফ মাস উনার পরই শুরু হবে পবিত্র যিলহজ্জ শরীফ মাস। আর এ পবিত্র যিলহজ্জ শরীফ মাসটি অত্যন্ত ফযীলতপূর্ণ একটি মাস। এ মাসের প্রথম দশদিন হলো বান্দা-বান্দির জন্য অশেষ নিয়ামত তথা অজস্র রহমত, বরকত, সাকিনা লাভের মহান এক উপলক্ষ্য।



লকডাউন কখনো কাউকে মৃত্যু থেকে রক্ষা করতে পারে না, তাই করোনা থেকে বাচঁতে লকডাউন দেয়া সম্পূর্ণ অযৌক্তিক এবং বোকামীও


খলিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, كُلُّ نَفْسٍ ذَائِقَةُ الْمَوْتِ অর্থ:“প্রত্যেক প্রাণীকেই মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করতে হবে।” (পবিত্র সূরা আলে ইমরান শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ১৮৫) মহান আল্লাহ পাক তিনি আরো ইরশাদ



উম্মতগণ অবশ্যই নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূরপাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামা উনার নাম মুবারকে পবিত্র কুরবানী করবে


পবিত্র কুরবানী উনার আদেশ করে মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, فصل لربك وانحر আপনার রব মহান আল্লাহ পাক উনার সন্তুষ্টির জন্য নামায আদায় করুন এবং তারপরে পবিত্র কুরবানী করুন। কাজেই এ আদেশ মুবারক দ্বারাও প্রমাণিত হয় যে, পবিত্র কুরবানী