নীল আসমান -blog


...


নীল আসমান
 


আমীরুল মু’মিনীন, খলীফাতুল মুসলিমীন, আশিদ্দাউল আলাল কুফফার হযরত ফারূক্বে আলাইহিস সালাম উনার সাথে সংশ্লিষ্ট কতিপয় নছীহতমূলক ঘটনা


লোকটি সিরিয়ার অধিবাসী। যুদ্ধের ময়দানে তার গর্জন ছিল সিংহের মতো। এমনকি এক হাজার অশ্বারোহীর চেয়েও তার চিৎকার ছিল ভয়ঙ্কর। তার জ্বালাময়ী ভাষণে সৈন্যরা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়তো। সে আমীরুল মু’মিনীন হযরত ফারূক্বে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার পক্ষে কাজ করতো, কিন্তু আমীরুল মু’মিনীন



হযরত আস সাফফাহ আলাইহিছ ছলাতু ওয়াস সালাম উনার অভুতপূর্ব বেমেছাল বিস্ময়কর মহাসম্মানিত তাজদীদ মুবারক


হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র বরকতময় বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ এবং মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র বরকতময় বিছালী শান মুবারক প্রকাশের তারীখ মুবারক প্রকাশে আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, মুজাদ্দিদে আ’যম মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ



সতীদাহ প্রথা নির্মূলে মুসলিমরাই প্রথম ব্যবস্থা গ্রহণ করেছিলেন, রামমোহন নয়


সনাতন সমাজে সব চেয়ে খারাপ এবং বর্বর প্রথা হিসেবে গণ্য হয়েছে সতীদাহ প্রথা। স্বামীর মৃত্যুর পর স্ত্রীকে জোর পূর্বক স্বামীর সাথে চিতায় ভস্ম করা ছিল এই প্রথা। ব্রাহ্মণদের হাত ধরেই এ প্রথা এসেছে। কারণ ব্রাহ্মণরাই তাদের রীতি ও নীতি নির্দেশক। তবে



বেহায়াপনা উসকে দেয়া এবং ঈমান কেড়ে নেয়াই ভ্যালেন্টাইন দিবসের উদ্দেশ্য


ভ্যালেন্টাইন ডে পালনের মাধ্যমে মুসলমান একদিক থেকে পবিত্র কুরআন শরীফ উনার নির্দেশ অমান্য করছে, বেপর্দা হচ্ছে আবার কাফির-মুশরিকদের রছম-রেওয়াজ পালনের দ্বারা ঈমান হারাচ্ছে। পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে স্পষ্টভাবে উল্লেখ রয়েছে যদি কেউ কোনো মেয়েকে বিয়ে করার ইচ্ছা পোষণ করে থাকে,



উল্লেখ্য, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি পরিপূর্ণ মুহব্বত ও সর্বোচ্চ আদব প্রকাশের উপর;


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই নাসী অর্থাৎ মাস বা সময় আগ-পিছ করা কুফরীকে বৃদ্ধি করে।” নাউযুবিল্লাহ! ‘নাসী’ করা অর্থাৎ মাস বা সময় আগ-পিছ করা হারাম ও কুফরী। যা পবিত্র ছফর শরীফ মাস আমাদেরকে শিক্ষা দেয়। অথচ সউদী ওহাবী



সুমহান সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার বিশেষ শান মুবারক ১১, ১২ ও ১৪ যিলক্বদ শরীফ। সুবহানাল্লাহ!


অনন্তকালব্যাপী জারিকৃত মহাপবিত্র মহাসম্মানিত মাহফিল উনার সংক্ষিপ্ত নাম মুবারক সুমহান সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ। সুবহানাল্লাহ! যা সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, রহমাতুল্লিল আলামীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত ওজূদ পাক, সম্মানিত যাত পাক এবং সম্মানিত বিলাদতী শান



পিস টিভির প্রতিষ্ঠাতা জাকির নায়েক ওরফে কাফির নায়েকের ঈমান বিধ্বংসী কিছু কুফরী আক্বীদা ও মতবাদ


* ‘রাম ও কৃষ্ণ নবী হতে পারে। নাউযুবিল্লাহ! (জাকির নায়েক: লেকচার সমগ্র ভলিয়ম-২, ১৬২ পৃষ্ঠা) * জুমুয়ার খুতবা আরবী হওয়া জরুরী নয়। নাযুউবিল্লাহ! (লেকচার সমগ্র-৪, পৃষ্ঠা ২৩৯) * ইসলামে চার জন মহিলা নবী ছিলো। নাউযুবিল্লাহ! (ভলিয়ম-২, ১৬২ পৃষ্ঠা) * তারাবীহ নামায যত খুশি তত



উগ্র নারীবাদী কার্যক্রম মুসলিম দেশে চলছে কিভাবে?


সম্প্রতি বাংলাদেশে একটি মহল উগ্র নারীবাদ (জধফরপধষ ভবসরহরংস) ছড়াতে ব্যস্ত । বিভিন্ন লেখালেখি ও সমাবেশে তারা এমন সব উগ্র বক্তব্য ছড়াচ্ছে, যা সাধারণ মানুষের জন্য মেনে নেয়া কষ্টকর। যেমন তারা শ্লোগান হিসেবে ছড়াচ্ছে: ১) “আমি সম্পূর্ণ বিবস্ত্র থাকবো, কিন্তু কোনো পুরুষ



মুসলমান উনাদের জন্য বিধর্মী ও বিজাতীয়দের অনুসরণ করা কাট্টা হারাম, নাজায়িয ও কুফরী


পহেলা বৈশাখ পালনের ইতিহাস পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার সাথে সম্পৃক্ত নয়। এটা পালন মুসলমানগণ উনাদের কাজ নয়। ইতিহাসের তথ্য অনুযায়ী নববর্ষ বা নওরোজ বা পহেলা বৈশাখ পালনের সংস্কৃতি মজুসি, বৌদ্ধ ও হিন্দুদের থেকে এসেছে। সাধারণভাবে প্রাচীন পারস্যের তথাকথিত শক্তিশালী সম্রাট জমশীদ



হারাম টাকা দিয়ে কুরবানী দিলে কুরবানী হবে না।


-গাজী মুহম্মদ ইবনে ইসহাক। হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ হয়েছে, ان الله طيب يحب الطيبات . অর্থাৎ- “মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র, তিনি পবিত্রতা বা হালালকেই পছন্দ করেন।” যিলহজ্জ মাসের ১০, ১১, ১২ এই তিনদিন যাদের নিকট নিছাব পরিমাণ অর্থ সম্পদ



বাররাকুল জাবীন, বাসিতুল ইয়াদাইন, বালিগুল বয়ান, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার আহলিয়াগণ অর্থাৎ উম্মুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস


সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ছোহবতের মধ্যেই রয়েছে সর্বাধিক মর্যাদা-মর্তবা। হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ছোহবতের মহান সৌভাগ্যশালী হওয়ার কারণেই হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা দুনিয়ায় থাকতেই যিনি খালিক্ব-মালিক আল্লাহ পাক



সৃষ্টির সূচনা ও সৃষ্টির মূল


মহান আল্লাহ পাক তিনি একক উনার কোন শরীক নেই। তিনি খালিক্ব বা সৃষ্টা হিসেবে একক। মহান আল্লাহ পাক সর্বপ্রথম উনার যিনি হাবীব, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে সৃষ্টি করেছেন যখন সৃষ্টির কোন