মিনার -blog


...


 


যামানার তাজদীদী মুখপত্র দৈনিক আল ইহসান শরীফ উনার লিখনীর শক্তি


আজ থেকে অনেক বছর আগে পৃথিবীর সমস্ত দেশ থেকে পঠিত একমাত্র আন্তর্জাতিক দৈনিক আল ইহসান পত্রিকার মধ্যে নির্ভরযোগ্য প্রমাণাদির আলোকে লেখা হয়েছিল যে, সউদী ওহাবী সরকার মুসলমানদের সবচেয়ে বড় শত্রু ইহুদীদের বংশোদ্ভূত। সেটাই আজ অনেকদিন পরে হলেও বিভিন্নভাবে প্রকাশিত হয়েছে এবং



সম্প্রীতির নামে মূর্তিকে প্রশ্রয় দেয়া মহান আল্লাহ পাক উনার শত্রুদের সাথে হাত মেলানোর শামিল


স্বয়ং যিনি মানবজাতির সৃষ্টিকর্তা, মহান প্রতিপালক আল্লাহ পাক তিনি নিজেই পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে মানবজাতির সবচেয়ে নিকৃষ্ট ও নাপাক শ্রেণীর পরিচয় প্রকাশ করেছেন। মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- “নিশ্চয়ই মুশরিকরা নাপাক।” (পবিত্র সূরা তওবা শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ-২৮)



উম্মত যে কোন অবস্থায়, যে কোন স্থান থেকেই নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নিকট


عَنْ حَضْرَتْ اَبِـىْ جُرَىٍّ جَابِرِ بْنِ سُلَيْمٍ رَضِىَ اللهُ تَعَالـٰى عَنْهُ قَالَ اَتَيْتُ الْمَدِيْنَةَ فَرَاَيْتُ رَجُلًا يَّصْدُرُ النَّاسُ عَنْ رَّأْيِهٖ لَا يَقُوْلُ شَيْئًا اِلَّا صَدَرُوْا عَنْهُ قُلْتُ مَنْ هٰذَا قَالُوْا هٰذَا رَسُوْلُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قُلْتُ عَلَيْكَ السَّلَامُ يَا



ওয়ালিদুর রসূল, সাইয়্যিদুল বাশার, সাইয়্যিদুল কাওনাইন, নূরে মুয়াজ্জাম, নূরে এলাহী, মালিকুল জান্নাহ, আবূ রসূলিনা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদুনা


পরিচিতি মুবারক: নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত আব্বাজান আলাইহিস সালাম তিনি সর্বকালের সর্বযুগের সর্বশ্রেষ্ঠ ব্যক্তিত্ব মুবারক। সুবহানাল্লাহ! উনার উসীলায় সমস্ত জিন-ইনসান এবং তামাম কায়িনাতবাসী সকলেই মর্যাদা-মর্তবা, শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক হাছিল করেছে। সুবহানাল্লাহ! তিনি শুধু



“আমীরুল মু’মিনীন, সাইয়্যিদুনা হযরত যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম তিনি যাই করেন না কেনো, কোনো কিছুই উনার ক্ষতি করতে পারবে


উনার নাম মুবারক উছমান। কুনিয়াত আবূ আমর। লক্বব মুবারক যুন্ নূরাইন। তিনি আমুল ফিলের ৬ বৎসর পর বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন। তিনি আখিরী রসূল, নূরে মুজাস্সাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ৬ বছরের ছোট ছিলেন। তিনি অত্যন্ত



মহাসম্মানিত ‘সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ’ সংশ্লিষ্ট যেকোন কাজ মুহব্বতের সহিত পালনের মধ্যেই রয়েছেন নিশ্চিত নাজাত ও স্থায়ী কামিয়াবী


মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার খাছ হাবীব নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এত শান মান বুজুর্গী সম্মান ফযীলত মুবারক কতটা বুলন্দ করেছেন তা মহান আল্লাহ পাক তিনি ব্যতিত আর কেউই জানেন না। সুবহানাল্লাহ! মহান আল্লাহ পাক



চাঁদ দেখার গুরুত্ব ও তাৎপর্য


يَسْئَلُوْنَكَ عَنِ الْاَهِلَّـةِ ۖ قُلْ هِـىَ مَوَاقِيْتُ لِلنَّاسِ وَالْـحَـجِ ۗ অর্থ : “ইয়া হাবীবাল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনার নিকট মানুষেরা চাঁদ সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করছে, আপনি জানিয়ে দিন, এটা হচ্ছে মানুষের জন্য ইবাদত উনার সময় নির্ধারক এবং সম্মানিত হজ্জ উনার সময়



সউদী ওহাবী ইহুদী মুনাফিক্ব সরকার এবং তার সাঙ্গপাঙ্গদের ধ্বংস অতি সন্নিকটে


সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, عَنْ حَضْرَتْ عَلِـىٍّ كَرَّمَ اللهُ وَجْهَهٗ عَلَيْهِ السَّلَامُ قَالَ قَالَ رَسُوْلُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ ﺃَلدُّعَاءُ سِلَاحُ الْمُؤْمِنِ. অর্থ: “হযরত আলী র্কারামাল্লাহু ওয়াজহাহু আলাইহিস সালাম উনার থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, নূরে মুজাস্সাম,



‘নির্যাতিত’ সেজে অভিনয় করাটা সংখ্যালঘু বিধর্মীদের প্রধান অস্ত্র


এদেশের অধিকাংশ আইনজীবীদের মতে, ‘নারী নির্যাতন আইন’ নামে যে আইনটি রয়েছে এদেশে, তার ব্যবহারের চেয়ে অপব্যবহার বেশি। যেহেতু এই আইনটিতে সাক্ষী কিংবা প্রমাণের তোয়াক্কা না করেই কেবল কথিত ‘ভিকটিমে’র দাবির উপর ভিত্তি করে রায় দেয়া হয়, সেহেতু অধিকাংশ ক্ষেত্রেই উদ্দেশ্যমূলকভাবে বিরুদ্ধপক্ষের



ইতিহাস পর্যালোচনা: আপনি কি কথিত ভদ্রলোক, না কি মুসলমান?


ভারতবর্ষে সিপাহী বিদ্রোহের পরবর্তী সময়ে ব্রিটিশরা ভারতবর্ষের মুসলমানগণ, বিশেষ করে বাঙালি মুসলমানগণ উনাদের উপর দমননীতি গ্রহণ করে। তারা সম্ভ্রান্ত মুসলমানগণ উনাদেরকে সমস্ত সরকারি উচ্চপদ থেকে বরখাস্ত করে সেখানে হিন্দুদের নিয়োগ দেয়, কারণ সিপাহী বিদ্রোহের সময়ে বাঙালি হিন্দুরা ছিল ব্রিটিশদের একনিষ্ঠ অনুগত



ইসলামের দৃষ্টিতে ক্রিকেটসহ যাবতীয় খেলাধুলা হারাম


আল্লাহ পাক তিনি স্পষ্টভাষায় ইরশাদ করেছেন, “আমি নভোমন্ডল, ভূমন্ডল ও এতদুভয়ের মধ্যবর্তী কোনো কিছু ক্রীড়াচ্ছলে সৃষ্টি করিনি, আমি এগুলো যথাযথ উদ্দেশ্যে সৃষ্টি করেছি; কিন্তু তাদের অধিকাংশই বোঝে না।” (সূরা দুখান : আয়াত শরীফ ৩৮, ৩৯) মহান আল্লাহ পাক তিনি আরো ইরশাদ



সম্মানিত আহলে বাইত শরীফ ও আওলাদে রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদেরকে মুহব্বত করার প্রতিদানসমূহ


সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, রহমাতুল্লিল আলামীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নূরানী, পূত-পবিত্র আহলু বাইত শরীফ অর্থাৎ উনার সম্মানিত আব্বা-আম্মা আলাইহিমাস সালাম, হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম এবং সম্মানিত আওলাদ আলাইহিমুস সালাম, আলাইহিন্নাস সালাম