প্রশান্ত নফস -blog


...


 


সম্মানিত ঈমান-আমল হিফাযত করতে হলে উলামায়ে ‘সূ’ বা ধর্মব্যবসায়ী মালানাদেরকে চিনতে ও চিহ্নিত করতে হবে, তাহলে মুসলমানরা তাদের ঈমান


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘আমার উম্মতের মধ্যে যারা উলামায়ে ‘সূ’ বা ধর্মব্যবসায়ী তারাই সৃষ্টির নিকৃষ্টেরও নিকৃষ্ট।’ নাউযুবিল্লাহ! উলামায়ে ‘সূ’ বা ধর্মব্যবসায়ী মালানা কারা? কি তাদের পরিচয়? এ সম্পর্কিত পবিত্র ইলম অর্জন করা



চীনে করোনা নামক গযবে আক্রান্ত দুই হাজার চিকিৎসক


প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে মৃত্যুর মিছিলের মধ্যেই ভাইরাস মোকাবিলায় নতুন করে সঙ্কটে পড়েছে চীন। এখন পর্যন্ত চীনে করোনাভাইরাসে প্রথমসারির প্রায় দুই হাজার চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী আক্রান্ত হয়েছে। প্রতিদিনই আশঙ্কাজনকহারে বেড়েই চলেছে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। আক্রান্তদের সেবায় দিনরাত নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে



যে কারণে চেয়ার-টেবিলে নামায পড়ার বিপক্ষে বলে না তারা


বর্তমানে মসজিদ কমিটিগুলোতে দেখা যায়, যে যতবেশি মসজিদে টাকা-পয়সা দেয় বা এলাকায় যে যত প্রভাবশালী তাদেরকেই কমিটির সভাপতি-সেক্রেটারী করা হয়। এ কারণে দেখা যায়, বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতাতো বটেই পাড়ার বড় বড় সন্ত্রাসীদেরকেও অনেক সময় কমিটির সদস্য হিসেবে রাখা হয়। নাউযুবিল্লাহ! আর



যারা বেপর্দা হয়, ছবি তোলে অর্থ্যাৎ সম্মানিত শরীয়ত উনার খিলাফ করে তাদের অনুসরণ করা জায়িয নেই


আমরা প্রত্যেকেই কাউকে না কাউকে অনুসরণ করে থাকি। তবে বাজার দরে সবাইকে অনুসরণ করা সম্মানিত দ্বীন ইসলাম, সম্মানিত শরীয়ত উনার সম্পূর্ণ খিলাফ ও গুনাহের কাজও বটে। কেননা মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার সম্মানিত কালাম পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মাঝে ইরশাদ মুবারক



“মসজিদ ভাঙ্গিয়া মন্দির গড়িব”- এটিই বিধর্মীদের জাতিগত লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য!


“মসজিদ ভাঙ্গিয়া মন্দির গড়িব”- এটিই বিধর্মীদের জাতিগত লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য! “কেহ চিৎকার করিতে লাগিল, “মার, মার নেড়ে মার।” কেহ গাহিল, “হরে মুরারে মধুকৈটভারে!” কেহ গাহিল, “বন্দে মাতরম।” কেহ বলে, “ভাই, এমন দিন কি হইবে, মসজিদ ভাঙ্গিয়া রাধামাধবের মন্দির গড়িব?” (আনন্দমঠ, তৃতীয়



নদী রক্ষার নামে পবিত্র মসজিদ ভাঙ্গা বা স্থানান্তর করা চলবে না, কারণ পবিত্র মসজিদ উনার মালিক কোন ব্যক্তি-গোষ্ঠি বা


রাস্তা-ঘাট, ফ্লাইওভার, মেট্ররেল, নদী সংরক্ষণ বা সরকারী-বেসরকারী যে কোন প্রয়োজনের নাম দিয়ে পবিত্র মসজিদ ভাঙ্গা, স্থানান্তর করা অথবা মসজিদ উনার জমি বিক্রয় করা চলবে না। কারণ পবিত্র মসজিদ উনার মালিক কোন ব্যক্তি-গোষ্ঠি বা কোন দেশের সরকার নয়। পবিত্র মসজিদ উনার একমাত্র



যারা মসজিদ ভাঙ্গছে তাদের জন্য কঠিন লাঞ্ছনা-গঞ্জনা


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, وَمَنْ أَظْلَمُ مِمَّنْ مَنَعَ مَسَاجِدَ اللهِ أَنْ يُذْكَرَ فِيهَا اسْمُهُ وَسَعَى فِي خَرَابِهَا أُولَئِكَ مَا كَانَ لَهُمْ أَنْ يَدْخُلُوهَا إِلَّا خَائِفِينَ لَهُمْ فِي الدُّنْيَا خِزْيٌ وَلَهُمْ فِي الْآخِرَةِ عَذَابٌ عَظِيمٌ অর্থ: “ওই ব্যক্তির চেয়ে



‘মজলিসু রুইয়াতিল হিলাল’ এর পক্ষ হতে – পবিত্র শা’বান শরীফ মাসের চাঁদ দেখা নিয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ভুল সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে


বিগত ২৯শে রজবুল হারাম শরীফ ১৪৪০ হিজরী, ৬ই হাদি ’আশার ১৩৮৬ শামসী, ৬ই এপ্রিল ২০১৯ ঈসায়ী, ইয়াওমুস সাবত (শনিবার) দিবাগত সন্ধ্যায় দেশের খাগড়াছড়ি জেলার হাতিমুড়া এলাকার “বহু সংখ্যক প্রত্যক্ষদর্শী পবিত্র শা’বান শরীফ মাসের চাঁদ দেখা সত্ত্বেও ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক ভুলভাবে পবিত্র



পবিত্র রজবুল হারাম শরীফ মাস সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা রজবুল হারাম মাস উনার নামকরণ:


পবিত্র রজব মাসের নাম রজব হওয়ার ব্যাপার নানারূপ মতো রয়েছে। মূলত, রজব শব্দটি ‘তারজীব’ শব্দ হতে নির্গত। তারজীব শব্দের অর্থ কোনো জিনিস তৈরি করা বা অগ্রসর হওয়া। নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ করেন, “মাহে রজবে



গরুর গোশতের রয়েছে অনেক উপকারী দিক


সম্প্রতি অনেকে গরুর গোশত সম্পর্কে বিভিন্ন অপপ্রচারে নেমেছে। অনেকে বিভিন্ন ডাক্তারী যু্িক্ত দিয়ে মুসলমানদের গরুর গোশত খাওয়া থেকে নিরুৎসাহিত করার অপচেষ্টা করেছে। নাঊযুবিল্লাহ! মূলত গরুর গোশতের যে বহু গুণাগুণ রয়েছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। যার কারণে বাংলাদেশের বাইরে সুস্বাদু এ



সুন্নতী বাল্যবিবাহ কুফরকে মিটিয়ে দেয় এবং পরষ্পরের নিকট ‘অর্ধেক ঈমান’ জমা রাখে


মহান আল্লাহ পাক তিনি কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, وَمِنْ آيَاتِهِ أَنْ خَلَقَ لَكُم مِّنْ أَنفُسِكُمْ أَزْوَاجًا لِّتَسْكُنُوا إِلَيْهَا وَجَعَلَ بَيْنَكُم مَّوَدَّةً وَرَحْمَةً ۚ অর্থ: মহান আল্লাহ পাক উনার অন্যতম নিদর্শন মুবারকগুলোর মধ্যে ‘তিনি আহাল ও আহলিয়াকে একে অন্যের



শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড! বাংলাদেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম জাতির মেরুদণ্ড ভাঙ্গার কাজটি খুব ভালভাবেই চলছে!


প্রিয় পাঠক! হেডলাইন দেখে কি আতঙ্কিত আর অবাক হয়ে যাচ্ছেন? আতঙ্কিত হবারই কথা। কারণ, বাংলায় বহুল প্রচলিত কথা, শিক্ষা জাতীর মেরুদণ্ড- একথা সামান্য পড়ালেখা জানা শুনারা কে না জানে। আর একথাটা দেশের নীতিনির্ধারক মহল তারা খুব ভালো করেই জানে। তারা যেহেতু