সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দু:খিত। ব্লগের উন্নয়নের কাজ চলছে। অতিশীঘ্রই আমরা নতুনভাবে ব্লগকে উপস্থাপন করবো। ইনশাআল্লাহ।

রহমত -blog


...


রহমত
 


দৈনন্দিন পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ


মহান আল্লাহ পাক কালাম পাকে ইরশাদ মুবারক করেন, ان الصلوة تنهى عن الفحشاء والمنكر অর্থ: নিশ্চয়ই নামাজ (মানুষকে) সকল অশালীন ও নিষিদ্ধ কাজ থেকে বিরত রাখে। অর্থাৎ কোন ব্যক্তি যদি হাক্বীক্বীভাবে নামাজ আদায় করে, তাহলে তার পক্ষে কোন প্রকার গুণাহন কাজে



বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর পিতা-মাতাই বাল্যবিয়ে করেছিলেন


সরকার কথায় কথায় বলে থাকে- তারা বঙ্গবন্ধু শেখ সাহেবের সকল স্বপ্ন পূরণ করবে যা তিনি করে যেতে পারেননি। শেখ সাহেবের আদর্শ বাস্তবায়ন করতে হবে। কিন্তু সরকার সে স্বপ্ন পূরণ আর আদর্শ বাস্তবায়ন থেকে দূরে সরে যাচ্ছে। মুখে বললেও সরকার করছে তার



সাইয়্যিদুনা হযরত হাদিউল উমাম আলাইহিস সালাম উনাকে তা’যীম-তাকরীম মুবারক করার, মুহব্বত করার, উনার সম্মানিত খিদমত মুবারক উনার আনজাম দেয়ার


প্রথমে জেনে রাখান আবশ্যক যে, মুহইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, হাবীবুল্লাহ, কায়িম মাক্বামে সাইয়্যিদুনা হযরত যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম, আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত হাদিউল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি হচ্ছেন সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাস্সাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম



বেপর্দা-বেহায়াপনার পরিণাম


এসএসসিতে বাংলা সহপাঠ হিসেবে পড়তে হয়েছিল পরকীয়া নিয়ে “হাজার বছর ধরে” উপন্যাসটি। তারপর এইচএসসিতে পড়তে হল “পদ্মা নদীর মাঝি” উপন্যাস। আমার এক বন্ধু বলেছিল, এসএসসিতে বয়সে ছোট ছিলা বলে শুধু পরকীয়া কিভাবে করতে হয় তার একটা টাচ দিয়েছিল। আর এখন বড়



ক্বলবী যিকির করা প্রত্যেক মুসলমান পুরুষ মহিলা উনাদের জন্য ফরয


যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার কালাম পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করে- الا بذكر الله تطمئن القلوب অর্থ: সাবধান! খালিক¦ মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার সম্মানিত যিকির উনার দ্বারাই ক্বলব বা অন্তরসমূহ প্রশান্তি লাভ



সম্মানিত সুন্নত মুবারক অনুযায়ী আমল করলে কামিয়াবী হাছিল হয়


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “অবশ্যই তোমাদের সকলের জন্য নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মধ্যেই উত্তম আদর্শ মুবারক রয়েছে।” সুবহানাল্লাহ! (পবিত্র সূরা আহযাব শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ২১) অর্থাৎ প্রত্যেক মুসলমান উনাদের জন্য দায়িত্ব-কর্তব্য



হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিলাদত শরীফ তারিখ ১২ রবিউল আউয়াল। এটাই সহীহ মত।


সহীহ হাদীস শরীফে হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিলাদত শরীফের তারিখ,বার, মাস সবই বর্ণনা করা আছে। হাফিজে হাদীস হযরত আবু বকর ইবনে আবী শায়বা রহমাতুল্লাহি আলাইহি যেটা বিশুদ্ধ সনদে হাদীস শরীফে বর্ননা করেন- حَدَّثَنَا أَبُو بَكْرِ بْنُ أَبِي شَيْبَةَ،



ইমামুল মুসলিমীন, মুকতাদায়ে জামীয়ে উমাম, ইনায়েতে হিলম, পেশওয়ায়ে আহলে বাছীরাত, আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুস সাবি’ মিন আহলি বাইতি


যিনি খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, اِنَّـمَا يُرِيْدُ الله لِيُذْهِبَ عَنْكُمُ الرِّجْسَ اَهْلَ الْبَيْتِ وَيُـطَـهِّـرَكُمْ تَطْهِيْرًا. অর্থ: “হে মহাসম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম! নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক তিনি চান আপনাদের থেকে সমস্ত প্রকার অপবিত্রতা



সম্মানিত মি’রাজ শরীফ উনার রাতে জাহান্নাম দর্শনের যে ভয়াবহ দৃশ্য তার কিঞ্চিত বর্ণনা


বর্ণিত রয়েছে, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে যখন সম্মানিত মি’রাজ শরীফ উনার রাতে ভ্রমন করানো হলো তখন উনার সফরসঙ্গী হিসেবে ছিলেন হযরত জিবরীল আলাইহিস সালাম। নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি জাহান্নামের



নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র ‘শরহে ছুদূর বা পবিত্র সিনা মুবারক চাক’ সম্পর্কে


মহামহিমান্বিত এক মাস পবিত্র ‘রজবুল হারাম শরীফ’। এ মহাপবিত্র মাসে সবিশেষ আলোচিত ঘটনা হল ‘পবিত্র মি’রাজ শরীফ’। পবিত্র রজবুল হারাম শরীফ মাসে পবিত্র মি’রাজ শরীফ প্রসঙ্গে আলোচনা করতে গিয়ে এক শ্রেণীর গুমরাহ লোক মহান আল্লাহ পাক উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ



বঙ্গবন্ধুর এই স্বপ্নটি পূরণ করার কি কেউ নেই..?


আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা সবসময় বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নের কথা বেশি বেশি বলে থাকে। তাদের দাবি, তাদের প্রতিটি কাজেরই উদ্দেশ্য হলো বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণ করা। সম্প্রতি বঙ্গবন্ধুর সেই নেতাকর্মীদের অনেকের মুখে রাষ্ট্রধর্ম থেকে ইসলাম বাদ দেয়ার কথা শুনা যায়। কিন্তু এটাও কি তাদের বঙ্গবন্ধুর



গামী পবিত্র ১১ রবীউছ ছানী মুতাবিক ১৩ ছামিন ১৩৮৪ শামসী, ১০ জানুয়ারি ২০১৭ ঈসায়ী ইয়াওমুছ ছুলাছা (মঙ্গলবার) পবিত্র ফাতিহায়ে


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘সাবধান! নিশ্চয় যাঁরা মহান আল্লাহ পাক উনার ওলী, উনাদের কোনো ভয় নেই এবং কোনো চিন্তা-পেরেশানীও নেই।’ সুমহান বরকতপূর্ণ পবিত্র ১১ই রবীউছ ছানী শরীফ পবিত্র ফাতিহায়ে ইয়াযদাহম শরীফ। গাউছুল আ’যম, সাইয়্যিদুল আউলিয়া হযরত বড়পীর ছাহেব