রহমত -blog


...


 


কৃপণের ধন কারো কোনো কাজে আসে না। মধ্য থেকে মহান আল্লাহ পাক উনার শত্রুতা অর্জন হয় মাত্র


Money is what money does. অর্থাৎ টাকা যা করে তাই টাকা। সাধারণের কাছে টাকা কতগুলো সনদ বা কাগজ। এই নোটগুলো কাজে লাগালেই এর ক্রয়ক্ষমতা বুঝা যাবে। কেউ যদি টাকার ক্রয়ক্ষমতা- ব্যবহার না করে শুধু টাকা জমায়, তবে এগুলো কাগুজের টুকরা মাত্র। বলতে



‘হিন্দুত্ব’ কোন ধর্মবিশ্বাস নয়, স্রেফ একটি মুসলিম জাতিবিদ্বেষী মতবাদ মাত্র


ভারতে হিন্দু সন্ত্রাসবাদের পিতৃপুরুষদের একজন হলো বিনায়ক দামোদর সাভারকার। সে ছিল অখিল ভারতীয় হিন্দু মহাসভার প্রধান। ব্রিটিশ আমলে প্রতিষ্ঠিত এই  সংগঠনটিকে বিজেপি আরএসএসের মতো বর্তমান যুগের উগ্র হিন্দু সংগঠনগুলোর আদি পিতা বলে ধরে নেয়া হয়। ‘হিন্দুত্ব’ শব্দটি সাভারকারেরই মস্তিষ্কপ্রসূত। সাভারকার তার



পিলখানা হত্যা মামলা রায়: ১৫২ জনের ফাঁসি, ৪২৩ জনের কারাদ-, ২৭১ খালাস


পিলখানায় বিডিআর (বর্তমান বিজিবি) হত্যাকা- মামলায় ১৫২ আসামিকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদ-ের আদেশ দিয়েছেন আদালত। এছাড়া ৪২৩ জনকে দিয়েছেন বিভিন্ন মেয়াদের কারাদ-। তাদের মধ্যে ১৬১ জনকে যাবজ্জীবন কারাদ- ও ২৬২ জন আসামিকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেওয়া হয়েছে। মোট ৮৫০ জন আসামির মধ্যে



মহামতি খিলাফত


পহেলা মুহররম, ওই খলীফা হলেন যুন নূরাইন মহতী মুকাররম। চব্বিশ হিজরীর প্রথম তারিখ স্মরণীয় ইতিহাস, বিশ্বজুড়েই খিলাফতী শান রহিয়াছে বিন্যাস। খলীফায়ে আছ ছালিছ, আলবৎ তিনি খিলাফত দিয়ে তাড়ালেন ইবলিস। সুন্নী সৌম উত্তমে তিনি প্রত্যেক লোকালয়ে, করলেন জারি তাগুতকে ছিঁড়ি নেহায়েত প্রত্যয়ে।



৯৭ ভাগ মুসলমানদের দেশ হওয়ার পরও পবিত্র কুরবানী নিয়ে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করা হয় আর যবনদের পূজা এলেই ‘সার্বজনীন’ ধ্বনি উঠে


মহান আল্লাহ পাক তিনি কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “যে ব্যক্তি মহান আল্লাহ পাক উনার নিদর্শনসমূহের প্রতি সম্মান করবে, নিশ্চয়ই তা তাদের অন্তরের তাক্বওয়া বা পবিত্রতার কারণ।” (পবিত্র সূরা হজ্জ শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ৩২) মহান আল্লাহ পাক



অবশেষে ইঁদুর মহাজোটের গর্তে পলায়ন


গত ৪ঠা অক্টোবরে (২০১৩ ঈসায়ী( অনুষ্ঠিত হবার কথা ছিল সাম্প্রদায়িক, উগ্রবাদী হিন্দু সম্প্রদায়ের ডাকা কথিত গণশ্রাদ্ধ’৭১। অনুষ্ঠানের ঠিক আগের দিন লেজ গুটিয়ে গর্তে ঢুকে ‘গণশ্রাদ্ধ অনুষ্ঠান হচ্ছে না’ বলে ঘোষণা দিলো ইঁদুর (হিন্দু) মহাজোট। এ অনুষ্ঠানে তারা দেশী ও ভারতের হিন্দু



উম্মাহর তরে শাফায়াতকারী মামদূহী দামাদ আউওয়াল শাফিউল উমামজী


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি আরবী ১২টি মাস ঘোষণা করেছেন তার মধ্যে চারটি মাস হারাম বা সম্মানিত। সেগুলো হচ্ছে- পবিত্র যিলক্বদ শরীফ, পবিত্র যিলহজ্জ শরীফ, পবিত্র মুহররম শরীফ এবং পবিত্র রজব শরীফ মাস। এখন যে মাসটি চলছে সেটি হচ্ছে



উদিত ওই মহা রবি


শাফিউল উমাম আক্বা, ওয়ারাউল ওয়ারা আক্বা নকশায়ে হায়দার আক্বা, ইলাহী হাবীব আক্বা উদিত ওই মহা রবি, চিরন্তন চিরজীবী আলে রসূলী আক্বা, মামদূহজীর প্রতিচ্ছবি। মালিকায়ে উলাজীর আহাল সুরতে/ছিরতে কামালে কামাল মাদানী সাজে নববী আক্বা আহলু বাইতিন নাবী। জজবায়ে নাজ আসমানী আওয়াজ নূরী



বাল্যবিবাহ খাছ সুন্নতের অন্তর্ভুক্ত


আখিরী রসূল, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উম্মুল মু’মিনীন হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনাকে ৬ বছর বয়স মুবারকে শাদী মুবারক করেন এবং ৯ বছর বয়স মুবারকে ঘরে তুলে নেন। উনার



ঈদ মুবারক! ঈদ মুবারক!! ঈদ মুবারক!!!


আপনাদের সকলের জন্য সুখবর! এবং কোন তারিখে কি হবে!



মুজাদ্দিদে আ’যম উনার অনবদ্য তাজদীদ ‘ছবি তোলা হারাম’- এ ফতওয়া অবশেষে মেনে নিলো নামধারী উলামায়ে দেওবন্দঃ পবিত্র মক্কা শরীফ


ভারতের নামধারী উলামায়ে দেওবন্দ এ যাবৎকাল ‘প্রাণীর ছবি তোলা হারাম’ ফতওয়াটি অস্বীকার করে আসলেও অবশেষে পবিত্র কুরআন শরীফ, পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের বিবরণ দিতে গিয়ে মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার মুবারক তাজদীদই মেনে নিতে বাধ্য হয়েছে। ছবি তোলাকে ‘হারাম’ মেনে নিয়েছে



শানে নিবরাসাতুল উমাম


ঝিকিমিকি করে খুশিতে তারকা আসমান আলো করে কোয়াছারসহ গ্রহ ধূমকেতু দুলে উঠে ঈদী ঝরে আত্মিকতার আত্মীয় তরে প্রিয়জন ওই ছুটে সাত আসমান জুড়ে জুড়ে কেন সিঙ্গার ধ্বনি ফুটে? কেন অতো আয়োজন? ছুটে নব প্রজন্ম। প্রাচীন নবীন একাকার গুলশানে, তাবাসসুম রয় দায়ীমান