উদীয়মান সূর্য -blog


...


 


ওহে মুসলমান ঘুমিয়ে থেকো না আর সময় হয়েছে ঘুম থেকে জাগার…..


এ কথা সবার জানা যে, রাত যতো গভীর হয়, দিন ততো নিকটবর্তী হয়।” রাতের গহীন অন্ধকার বলে দেয়, সূর্য উঠার কতো দেরি। অন্ধকার যখন তার কালো চাদর দিয়ে সর্বশক্তি দিয়ে রাতকে জড়িয়ে নেয়, তার কিছুক্ষণ পরেই পৃথিবীর আকাশে ছুবহে ছাদিকের সন্ধান



আসছে সামনে কথিত মে দিবস…তাহলে আজ হয়ে যাক কথিত মে দিবস নিয়ে আলোচনা


আসছে ১লা মে। কথিত মে দিবস। প্রায় ১২১ বছরের আন্দোলন-সংগ্রাম, ধর্মঘট, শ্রমিকের রক্তের ধারাবাহিকতায় কথিত এই মে দিবস। ১৮৮৬ সালের ১ মে আমেরিকার শিকাগো শহরের হেমার্কেট স্কয়ারে শ্রমিকরা শ্রমঘণ্টা ৮ ঘণ্টা নির্ধারণের দাবিতে আন্দোলন করে বুকের তাজা রক্তে আমেরিকার রাজপথ রঞ্জিত



প্রসঙ্গঃ সুন্নতের অনুসরনই হচ্ছে প্রকৃত তাক্বওয়া


সুন্নতসমূহ ফরযের পরিপূরক এবং ফরযকে সুশোভিত ও সৌন্দর্যমণ্ডিত করে থাকে। পোশাক পরিধানের ক্ষেত্রেই শুধু নয়, বরং প্রতিটি ফরযের ক্ষেত্রেই এ হুকুম। কালামুল্লাহ শরীফ-এ তাক্বওয়ার লিবাস বা পোশাককে উত্তম পোশাক বলা হয়েছে। আর সে তাক্বওয়ার লিবাসই হচ্ছে সুন্নতী পোশাক। যা কিনা সাইয়্যিদুল



আশারায়ে মুবাশশারাহ বলতে কি বুঝায় এবং উনারা কারা?


ফার্সীতে আশারায়ে মুবাশশারাহ বলা হয়। আরবীতে বলা হয় ‘আশারাতুম মুবাশশারাহ। আশারাহ অর্থ দশ, আর মুবাশশারাহ অর্থ সুসংবাদপ্রাপ্ত। অর্থাৎ দশজন বেহেশতের সুসংবাদপ্রাপ্ত ছাহাবী রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদেরকে আশারায়ে মুবাশশারা বলা হয়। আল্লাহ পাক উনার পক্ষ থেকে হযরত জিররীল আলাইহিস সালাম উনার মাধ্যমে



এই পার্থিব জগৎ হল মু’মিনদের জন্য কয়েদখানা………


বিশিষ্ট ছাহাবী হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে উমর রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন, “আদ দুন্ইয়া সিজনুল মু’মিন, ওয়া জান্নাতুল কাফির” অর্থাৎ দুনিয়া বা পার্থিব জগৎ মু’মিনদের জন্য কয়েদখানা সদৃশ আর কাফিরদের (অবাধ্যদের) জন্য বেহেশতস্বরূপ। অর্থাৎ দুনিয়ার সকল কাজকর্মে ঈমানদারগণ ইসলাম তথা শরীয়তের



৬ দেশের বৈদেশিক সাহায্য শূন্যের কোটায়……….এর দ্বারা কি বুঝা যায়?????


গত ২৮.০৩.২০১১ ঈসায়ী তারিখের দৈনিক আল ইহসানের প্রথম পৃষ্ঠায় একটি সংবাদ ছাপা হয়েছে, যার শিরোনাম হচ্ছে কথিত বৈদেশিক সাহায্য ছাড়াই চলছে দেশ- যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতসহ ৬ দেশের বৈদেশিক সাহায্য শূন্যের কোটায় খবরে প্রকাশ, বাংলাদেশে বৈদেশিক সাহায্য দিন দিন কমছে। এর উপর



শাসক ও মুসলমান জনগণের প্রতি নছীহত ……।


হযরত কাব ইবনে উজরা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন, একদা নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আমাকে লক্ষ্য করে বললেন, আমি তোমাকে অসৎ নির্বোধ শাসকদের নেতৃত্ব হতে আল্লাহ পাক উনার হিফাজতে দিলাম। তিনি বললেন, তা কিরূপে হবে



সত্য মানুষকে দেয় মুক্তির পথ আর মিথ্যা মানুষকে দেয় হালাক বা ধ্বংসের পথ


হাদীছ শরীফ-এ ইরশাদ হয়েছে, “সত্য মানুষকে মুক্তি দান করে আর মিথ্যা মানুষকে হালাক বা ধ্বংস করে।” এ হাদীছ শরীফ-এর বাস্তব প্রতিফলন আমরা দেখতে পাই গাউছুল আ’যম, সাইয়্যিদুল আওলিয়া হযরত বড়পীর ছাহেব রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার জীবনী মুবারক-এর মধ্যে। “কালায়িদুল জাওয়াহির” কিতাবে বর্ণিত



মুসলমানরা কি তাদের শত্রুকে চিনে??? তা না হলে মুসলমানরা কেন এত বিপদে পতিত হচ্ছে !!!


পৃথিবী নামক এই গ্রহে মানুষের শত্রু মিত্রের অভাব নেই। দিবারাত্রি, সুখ-দুঃখ, চড়াই উতরাই, ভালমন্দের নাম জীবন। আচ্ছা পাঠক! একটু ভেবে দেখুন তো, এই পৃথিবীর সকল চাওয়া পাওয়া যদি মানুষের অধীন হতো তাহলে জীবনটা কেমন হতো? কোন বিপদ নেই, নেই কোন বাধা,



কলঙ্কমুক্ত সংসার সাজাতে নারীদের করণীয়………


আল্লাহ পাক তিনি কুরআন শরীফ-এ ইরশাদ করেন, “আপনারা (মহিলারা) ঘরের প্রকোষ্ঠে অবস্থান করবেন। জাহিলিয়াত যুগের মত নিজেদেরকে প্রদর্শন করবেন না।” এটা মানবজাতির কোন কথা নয় স্বয়ং আল্লাহ পাক উনার বাণী। অথচ নারীরা আজ নিজেদের সৌন্দর্য বিলীন করেছে বেগানা লোকের সামনে! আর



ইসলামী জীবন- শুরুটা কঠিন মনে হলেও কিছু দিন কোশেশ করলে অভ্যাসে পরিণত হয়ে যায় এবং সহজ মনে হয়


মানুষ দৈনন্দিন জীবনে যা করে তা অভ্যাসে পরিণত হয়ে যায়। অর্থাৎ মস্তিষ্কে ওই কর্মকা-গুলো সেট হয়ে যায়। মুসলমানদের জীবনে প্রতিটি কাজ ইসলামসম্মত হতে হবে। যেভাবে জীবনযাপন করেছেন সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিয়্যীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া



কেলেঙ্কারীতে পিছিয়ে নেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকগণও


ইদানীং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকগণের যৌন কেলেঙ্কারীতে জড়িয়ে পড়তে দেখা যাচ্ছে। এক সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এসব কেলেঙ্কারীতে অগ্রগামী ছিল তারপর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এবং এখন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ও পিছিয়ে নেই। আমরা আমাদের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠের(?) শিক্ষকদের হেন কেলেঙ্কারীর সংবাদ শুনতে চাই না। আমরা না চাইলেও যা