RAJARBAGER POTHE -blog


...


 


মহান আল্লাহ পাক উনার খালিছ ওলী হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি ছিলেন হাজার বছরের মুজাদ্দিদ ও পবিত্র


  মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার প্রিয়তম হাবীব সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মাধ্যমে আসমানী ওহী প্রেরণের অবসান ঘটিয়েছেন। এরপর মানুষকে প্রশিক্ষিত ও নিবিষ্ট করার দায়িত্বে যুগে যুগে নিয়োজিত থাকেন ওয়ারাছাতুল আম্বিয়াগণ



মুসলিম বালকদের খাতনা বন্ধ, মসজিদ ভেঙে মন্দির তৈরি, সম্মানিত ক্বিবলা উনার দিকে পা রেখে মুর্দাকে কবর দেয়ার আইন জারি


যার ফলে তারা সাইয়্যিদুনা হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার জীবনী মুবারক, উনার তাজদীদী কর্মকা- উনার ব্যাপ্তি ও পরিধি সম্পর্কে অজ্ঞ ও অনুভূতিহীন হয়ে রয়েছে। বর্তমানে আমাদের দেশের পাঠ্যপুস্তক ও বইপত্রে একাদশ হিজরী শতকের মহান মুজাদ্দিদ শায়েখ আহমদ ফারূক্বী সিরহিন্দী



সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ কি?


’সাইয়্যিদ’ অর্থ শ্রেষ্ঠ এবং ’আ’ইয়াদ’ হচ্ছে ঈদ বা খুশির বহুবচন। সুতরাং সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ অর্থ ’সকল ঈদের সাইয়্যিদ’ বা সর্বশ্রেষ্ঠ ঈদ। সুবহানাল্লাহ! নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ অর্থাৎ দুনিয়াতে আগমন দিবস



পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ অস্বীকার করার অর্থই হলো পবিত্র কুরআন শরীফ উনাকে অস্বীকার করা


মহান আল্লাহ পাক রব্বুল আলামীন তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন- قُلْ بِفَضْلِ اللهِ وَبِرَحْمَتِهٖ فَبِذٰلِكَ فَلْيَفْرَحُوْا هُوَ خَيْرٌ مِّمَّا يَجْمَعُوْنَ. অর্থ: “হে হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি বলে দিন, মহান আল্লাহ পাক তিনি যে ফযল-করম, রহমত



ইমামুছ ছানী মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র শাহাদাতী শান মুবারক প্রকাশ ২৮ ছফর শরীফ


পবিত্র ছফর শরীফ মাসটিও সম্মানিত ও পবিত্র একটি মাস। এটি মহান আল্লাহ তায়ালা উনার নির্ধারিত পছন্দীয় মাস। এ মাস অনেক নিয়ামত, বরকত, রহমতে পূর্ণ। কারণ এ মাস হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের সাথে সম্পর্কযুক্ত। নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক



পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ উনার পরিচিতি ও ফযীলত মুবারক


  আখির অর্থ শেষ, আর চাহার শোম্বাহ অর্থ ইয়াওমুল আরবিয়া বা বুধবার। এক কথায় আখিরী চাহার শোম্বাহ অর্থ শেষ ইয়াওমুল আরবিয়া বা বুধবার। সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার পরিভাষায় পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার শেষ বুধবারকে আখিরী চাহার শোম্বাহ বলা হয়। সাইয়্যিদুল



যদি কেউ ‘পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ’ উনাকে বিদয়াত বলে, তাহলে তাকে নিম্নের বিদয়াত কাজ অবশ্যই বাদ দিতে হবে


কিছু কিছু গন্ডমূর্খ, জাহেল খাইরুল কুরুনের পর আবিষ্কৃত প্রত্যেক নতুন জিনিস বিদয়াতে সাইয়্যিয়াহ বলে থাকে। অথচ ইহা মোটেও শুদ্ধ নয়। কেননা যদি তাই হতো, তবে আমাদের সামাজে প্রচলিত এমন অনেক নতুন বিষয় রয়েছে, যা অবশ্যই পরিত্যাগ করা জরুরী হয়ে পড়তো। যেমন-



সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ মুবারক হো! পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালন করার তরতীব


সাইয়্যিদে ঈদে আ’যম ওয়া ঈদে আকবর পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তথা পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালন করার তরতীব সম্পর্কে মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মাঝে ইরশাদ মুবারক করেন- “হে হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!



এগারো হিজরী সনের পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার ইয়াওমুল আরবিয়ায়িল আখির বা শেষ বুধবারের সঠিক তারিখ প্রসঙ্গে


‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ’ আমাদের কাছে অত্যন্ত ফযীলতপূর্ণ এবং বরকত, রহমত, সাকীনা হাছিলের দিন। হাদিয়া মুবারক দেয়া এবং দান-ছদক্বা করার দিন। ‘আখির’ অর্থ শেষ এবং ‘চাহার শোম্বাহ’ অর্থ ইয়াওমুল আরবিয়া বা বুধবার। হিজরী সনের পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার শেষ



পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে একটি বিশেষ দিন ‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ’


  ‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ’ বলতে পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার শেষ বুধবার উনাকে বলা হয়। পবিত্র ছফর শরীফ মাস ব্যতীত আর কোনো মাস উনার শেষ ইয়াওমুল আরবিয়া বা বুধবারকে ‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ’ বলা হয় না। যেমন ‘আশূরা’



দুই শত বছর সরাসরি মহান আল্লাহ পাক উনার নাফরমানী করার পরেও তার জিন্দেগীর সমস্ত গুনাহখতাগুলো ক্ষমা হয়ে যায়,তার উপর


বণী ইসরাঈলের এক ব্যক্তি যদি দুই শত বছর সরাসরি মহান আল্লাহ পাক উনার নাফরমানী করার পরেও একবার মাত্র নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত নাম মুবারক-এ বুছা দেয়ার কারণে তার জিন্দেগীর সমস্ত গুনাহখতাগুলো ক্ষমা হয়ে যায়,



কেউ যদি ইছলাহ অর্জন করতে চায় তাহলে অবশ্যই তাকে মহাপবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালন করতে হবে


মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “আপনি (স্বীয় উম্মতদেরকে) বলে দিন, মহান আল্লাহ পাক তিনি স্বীয় ফযল, করম ও রহমত অর্থাৎ উনার প্রিয়তম রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে পাঠিয়েছেন,