প্রভাতের সূর্য -blog


...


প্রভাতের সূর্য
 


পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার বোনাস চালু করুন


যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি সম্মানিত কিতাব কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন- “সমস্ত কাফির-মুশরিক মুসলমানদের শত্রু। তোমরা কখনই তাদেরকে বন্ধুরূপে গ্রহণ করিও না” এবং তাদেরকে অনুসরণ করিও না। কাজেই নববর্ষ সেটা বাংলা হোক, ইংরেজ হোক, আরবী



অতিসত্বর সুন্নতী বাল্যবিবাহ বিরোধী আইন উঠিয়ে নেয়া হোক


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন- “নিশ্চয়ই আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মাঝে নিহিত রয়েছে তোমাদের জন্য উত্তম আদর্শ মুবারক।” (পবিত্র সূরা আহযাব শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ-২১) এতদ্বসত্ত্বেও ব্রিটিশ কুচক্রীদের



উম্মুল মু’মিনীন, সাইয়্যিদাতুনা হযরত হাদিয়া আশার আলাইহাস সালাম উনার সংক্ষিপ্ত সাওয়ানেহ উমরী মুবারক


পরিচিতি মুবারক: সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, উম্মুল মু’মিনীন, সাইয়্যিদাতুনা হযরত হাদিয়াহ আশার আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত নাম মুবারক হচ্ছেন হযরত উম্মে হাবীবা বিনতে আবি সুফিয়ান আলাইহাস সালাম। তিনি কুরাইশ গোত্রের উমাইয়া শাখার অন্তর্ভূক্ত। হযরত হাবীবাহ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা উনার মেয়ের নাম, সেজন্য



পূজায় বরাদ্দকৃত টাকাগুলো কি মুসলমানদের নয়?


প্রতি বছর সরকার অমুসলিম বিধর্মীদের পূজায় কোটি কোটি টাকা ও টনে টনে চাল বরাদ্দ দিয়ে থাকে। প্রশাসনকেও কড়াভাবে নির্দেশ দিয়ে দেয়- দেশের আনাচে কানাচের ছোট বড় কোনো একটি পূজা মন্ডপও যেন এই বরাদ্দকৃত অর্থ ও চাল থেকে বঞ্চিত না হয়। বাংলাদেশের



নারীদের জন্য ইলম অর্জন যেমনি ফরজ, পাশাপাশি পর্দা রক্ষা করাও ফরজ


মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে আমাদেরকে দোয়া শিক্ষা দিয়েছেন- رَبِّ زِدْنِـىْ عِلْمًا অর্থ: “আয় আমার রব আপনি আমার ইলম বৃদ্ধি করে দিন।” আর নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- اُطْلُبُوا



মুসলিম জনঅধ্যুষিত দেশে নামকরণের ক্ষেত্রে ইসলামী ও মুসলমানী ইতিহাস ঐতিহ্য ফুটিয়ে তুলতে হবে


রাষ্ট্রদ্বীন ইসলাম ঘোষিত, ৯৮ ভাগ মুসলিম অধ্যুষিত বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকা থানা কিংবা জেলা এবং সেখানকার রাস্তাঘাট, প্রতিষ্ঠান ইত্যাদি হিন্দুয়ানী বা বিজাতি বিধর্মীদের নামে নামকরণ থাকার কারণে ইচ্ছা অনিচ্ছায় একজন মু’মিন মুসলমান উনাদেরকে কথাবার্তা, আলোচনা লেখনী ইত্যাদিতে সেগুলোর নাম স্মরণ করতে হয়।



কারবালার হৃদয় বিদারক ঘটনার সাথে সম্পৃক্তরা কঠিন খোদায়ী গযবে পতিত


সাইয়্যিদু শাবাবি আহলিল জান্নাহ, ইমামুছ ছালিছ মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সালাম উনাকে কারবালায় শহীদ করার ব্যপারে হযরত উলামায়ে কিরামগণ উনারা ইজমা করেছেন যে, বিশ্বের ইতিহাসে সবচেয়ে আশ্চর্যজনক, নির্মম, বেদনাদায়ক এবং হৃদয়বিদারক বিষয় হলো কারবালার ঘটনা। সাইয়্যিদুনা হযরত



হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদের প্রতি মুহব্বত ঈমানের অঙ্গ এবং উনাদের প্রতি বিদ্বেষ পোষণ করা কুফরী


এ প্রসঙ্গে কালামুল্লাহ শরীফ-এ ইরশাদ হয়েছে- إنَّ الَّذِيْنَ يُؤْذُوْنَ اللهَ وَ رَسُوْلَه لَعَنَهُمُ اللهُ فِى الدُّنْيَا وَ الآخِرَةِ وَ اَعَدَّ لَهُمْ عَذَابًا مُهِيْنًا অর্থ : “নিশ্চয়ই যারা আল্লাহ পাক ও উনার রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদেরকে কষ্ট দেয়, দুনিয়া ও



প্রতি মহল্লায় পবিত্র কুরবানীর হাট থাকা আবশ্যক


আমাদের দেশের শতকরা ৯৮ ভাগ লোক মুসলমান। আর পবিত্র কুরবানী একটি সম্মাানিত আমল। পবিত্র কুরআন শরীফ এবং পবিত্র হাদীছ শরীফ উনাদের মধ্যে পবিত্র কুরবানী উনার ফাযায়িল-ফযীলত স¤পর্কে অনেক বর্ণনা রয়েছে। কুরবানীদাতা অনেক নেকী হাছিল করে থাকেন । সুবহানাল্লাহ! আবার এই নেক



উম্মু আবীহা, আন নূরুর রবি‘য়াহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার মহাসম্মানিত আওলাদ আলাইহিমাস সালাম উনাদের সম্পর্কে সম্মানিত সুসংবাদ


সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, عن على كرم الله وجهه قال قال رسول الله صلى الله عليه وسلم أتانى ملك فقال يا محمد إن الله تعالى يقول لك إنى قد امرت شجرة طوبى أن تحمل الدر والياقوت والمرجان



নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পরেই হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের বিষয় উল্লেখ


প্রায় সমস্ত সীরাত বা জীবনী গ্রন্থসমূহ পাঠে দেখা যায় যে, সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, রহমতুল্লিল আলামীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পর হযরত খুলাফায়ে রাশিদীন আলাইহিমুস সালাম উনাদের অতঃপর হযরত আশারায়ে মুবাশ্শারা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদের



প্রতিদিন বারবার পড়ার মধ্যে অবশ্যই লক্ষ-কোটি শিক্ষা রয়ে গেছে


একটি বিশেষ বাক্য বা কথা কমবেশি প্রায় আমরা সবাই জানি। ‘মহান আল্লাহ পাক উনার কোনো কাজই হিকমত থেকে খালি নয়’। এ বাক্যটি ঈমানদার-মুসলমান মাত্রই বিশ্বাস করেন। আমরা প্রতিদিন প্রতি রাকয়াতের শুরুতেই যে একটি বিশেষ সূরা শরীফ পাঠ করে থাকি উনার নাম