সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দু:খিত। ব্লগের উন্নয়নের কাজ চলছে। অতিশীঘ্রই আমরা নতুনভাবে ব্লগকে উপস্থাপন করবো। ইনশাআল্লাহ।

তিতুমীর -blog


...


তিতুমীর
 


পবিত্রতম আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনারাই হেদায়েত উনার উজ্জলতম নূর মুবারক


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছেন, عَنْ حَضْرَةْ جابر بن عبد الله رَضِيَ اللهُ تَعَالٰى عَنْهُ قَالَ رايت رَسُوْل اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فـي حجته يوم عرفة وهو على ناقته القصواء يـخطب فسمعته يقول يا ايها الناس اِنّـىْ



মুসলমানগণ উনাদের সবচেয়ে বড় ঈদ পবিত্র সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ উনার জন্য সরকারের বাজেট নেই কেন?


‘ধর্মীয় সম্প্রীতি রক্ষা করা বর্তমান সরকারের নীতি’- মাত্র গুটিকয়েক খ্রিস্টানদের কল্যাণে ‘খ্রিস্টান ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্ট’ গঠন করেছে সরকার। এই ট্রাস্টে সরকার প্রতিষ্ঠার বছরই খ্রিস্টানদের কল্যাণে ১ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। এখন এ বরাদ্দ বাড়িয়ে ৫ কোটি করা হয়েছে। এ ফান্ড মূলত



গান-বাজনার ক্ষতি হতে মুসলিম সমাজকে রক্ষা করা জরুরী


বর্তমানে সমাজ পরিবারকে প্রচলিত গান বাজনা এমন এক কঠিন ব্যাধী হিসেবে আক্রান্ত করেছে যে, এর থেকে মুক্ত কে বা কারা তা নির্ণয় করা মুশকিল হয়ে পড়েছে। কেউ গান করছে, কেউবা গান শুনছে, কেউবা গানের শো আয়োজন করছে, আবার কেউ গানের ব্যবসা



কোন দিন ভালো খাবেন?


সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার দৃষ্টিতে পহেলা মুহররমুল হারাম শরীফ কিংবা নববর্ষ উপলক্ষে পহেলা তারিখে যেমন পহেলা বৈশাখ, পহেলা জানুয়ারি ইত্যাদি তারিখে ভাল খাদ্য খাওয়ার জন্যে কোন তাগিদ করা হয়নি। বরং দশই মুহররমুল হারাম শরীফ প্রত্যেক পরিবারের প্রধান ব্যক্তিকে তার পরিবারের সদস্যবর্গকে



পবিত্র ঈদুল আদ্বহা উনার দিনের পবিত্র সুন্নতসমূহ


পবিত্র ঈদ উনার দিনের পবিত্র সুন্নত হলো- ১. খুব ভোরে ঘুম থেকে উঠা ২. গোসল করা ৩. মিস্্ওয়াক করা ৪. সামর্থ্য অনুযায়ী নতুন পোশাক পরিধান করা ৫. আতর ব্যবহার করা ৬. মহল্লার মসজিদে গিয়ে জামায়াতে ফযরের নামায পড়া ৭. ঈদগাহে হেঁটে



পবিত্র হজ্জে মাবরূর কাকে বলে- সে বিষয়টিই হাজী ছাহেবদের অজানা


‘মাবরূর’ শব্দের অর্থ হলো- পবিত্র, কবুলকৃত, নেকীতে পূর্ণ, মর্যাদাসম্পন্ন। সুতরাং পবিত্র হজ্জে মাবরূর বলতে ওই পবিত্র হজ্জকে বুঝানো হয়েছে, যার মধ্যে কোনো রকম বেপর্দা, বেহায়াপনা, অশ্লীল-অশালীন, ছবি, সিসিটিভি ইত্যাদি শরীয়তবিরোধী কাজ সম্পৃক্ত হয়নি। যে পবিত্র হজ্জ শুধুমাত্র নেক কাজের সংমিশ্রণে সম্পাদিত



মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতি খলীফায়ে ছানী, আমীরুল মু’মিনীন, খলীফাতুল মুসলিমীন সাইয়্যিদুনা হযরত ফারূক্বে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার বেমেছাল


খলীফায়ে ছানী, আমীরুল মু’মিনীন, খলীফাতুল মুসলিমীন সাইয়্যিদুনা হযরত ফারূক্বে আ’যম আলাইহিস সালাম তিনি এমন ব্যক্তি ছিলেন, যাঁর ইচ্ছা অনুযায়ী আল্লাহ তা’য়ালা পবিত্র কুরআন শরীফ উনার ২২খানারও অধিক পবিত্র আয়াত শরীফ নাযিল করেছেন; কাজেই উনার শান মান কত ঊর্ধ্বে তা বলার অপেক্ষা



মুসলমানের পরিচয়


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, المسلم من سلم المسلمون من لسانه ويده. অর্থ: “মুসলমান হল ঐ ব্যক্তি যার হাত ও মুখের অনিষ্টতা ও কষ্ট দেয়া হতে অপর মুসলমান নিরাপদ থাকে।” مسلم (মুসলিম) শব্দটি



খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার পথে দান ছদকা করলে তা বহু গুনে বৃদ্ধি পায়


খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক এবং উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের রিযামন্দি সন্তুষ্টি মুবারক লাভের অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার রাস্তায় দান ছদকা করা। ইবাদতসমূহ উনার মধ্যে অন্যতম



পবিত্র কুরবানীর প্রতি অসহযোগিতামূলক আচরণ জাহান্নামী হওয়ার কারণ


পবিত্র সূরা মুদ্দাছ্ছির শরীফ উনার মধ্যে মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, مَا سَلَكَكُمْ فِي سَقَرَ . قَالُوا لَمْ نَكُ مِنَ الْمُصَلِّينَ . وَلَمْ نَكُ نُطْعِمُ الْمِسْكِينَ . وَكُنَّا نَخُوضُ مَعَ الْخَائِضِينَ . وَكُنَّا نُكَذِّبُ بِيَوْمِ الدِّينِ . حَتَّىٰ أَتَانَا



যাদের উপর পবিত্র কুরবানী ওয়াজিব হয়নি, এমন দুই বা ততোধিক ব্যক্তি এক নামে পবিত্র কুরবানী করে তার ফযীলত হাছিলের


পবিত্র দ্বীন ইসলাম সহজ। খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদের জন্য যা সহজ তিনি সেটাই চান। যারা এককভাবে পবিত্র কুরবানী দিতে সক্ষম নয়, তাদের জন্য সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত একটি সহজ ও উত্তম তরীক্বা প্রদান করেছেন। বলা হয়, যাদের উপর



সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ মুবারক হো! পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালন করার তরতীব


সাইয়্যিদে ঈদে আ’যম ওয়া ঈদে আকবর পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তথা পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালন করার তরতীব সম্পর্কে মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মাঝে ইরশাদ মুবারক করেন- “হে হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!