সাব্বির -blog


...


 


পবিত্র যাকাত প্রদানকারীর সীমাহীন ফাযায়িল-ফযীলত


ক) কবর, হাশর, মীযান, পুলছীরাত সব জায়াগায় তথা দুনিয়া ও আখিরাতে প্রশান্তির কারণ: এ সম্পর্কে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- خُذْ مِنْ اَمْوَالِـهِمْ صَدَقَةً تُطَهّرُهُمْ وَتُزَكّيْهِمْ بِـهَا وَصَلّ عَلَيْهِمْ اِنَّ صَلاتَكَ سَكَنٌ لَّـهُمْ وَاللهُ سَـمِيْعٌ عَلِيْمٌ. অর্থ: (ইয়া রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!)



যে কারনে অ-মঙ্গল যাত্রা ১লা বৈশাখ উদযাপন করা মুসলমানদের জন্য জায়েজ নয়


বর্তমানে ফসলী নববর্ষ উদযাপনকে কেন্দ্র করে যে নাজায়েজ হুল্লোড়ের প্রচলন রাষ্ট্রিয়ভাবে করা হচ্ছে সেটা বহুবিধ কারনে সম¥ানিত দ্বীন ইসলাম উনার মাঝে জায়েজ নেই। আর যেটার অনুমোদন সম্মানিত শরীয়তে নেই সেটা উদযাপন করা, পালন করা কোন মুসলমানের জন্য কি করে জায়েজ হতে



ইহকালে যা উপার্জন করা হয়েছে, পরকালে তাই খরচ করতে হবে। মুফতে কিছু মিলবে না


আমরা এক মাসে যা আয় করি পরবর্তী মাসে তা থেকে ব্যয় করি। কোনো মাসে আয় কম হলে পরবর্তী মাসে কষ্টে জীবন চলে। মানব জীবনের অন্য দিক ইহজীবন এবং পরজীবনে একই নিয়ম চালু আছে। পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে আছে- এই দুনিয়া



বদকার লোক মারা যাওয়ার সময় কি অবস্থা হয় তার একটি বাস্তব উদাহরণ


এক লোক মারা যাওয়ার সময় খুবই ছটফট করছিল, চোখ বড় বড় করে এদিক-সেদিক তাকাচ্ছিল, হাত-পা ছুটাছুটি করছিল। ছটফট করতে করতে শেষ পর্যন্ত চকির উপর থেকে নিচে পড়ে মারা যায়। এর মূল কারণ হলো-সে যেহেতু বদকার ছিলো তাই তার রুহ কবজ করার



বাল্য বিবাহ নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সুন্নত মুবারক। কাজেই বাংলাদেশ সরকারের জন্য ফরয


বাল্য বিবাহ নিরোধ যে আইন প্রণয়ন করা হয়েছে তা মূলত কুফরী। কেননা সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে বিবাহের জন্য কোন নির্দিষ্ট সময়সীমা বেঁধে দেয়া নেই। মূলত এই আইনটি করেছিলো ব্রিটিশ বেনিয়ারা। তারা মুসলিম দেশগুলোতে বিশৃঙ্খলা চালু করার কৌশল হিসেবে এই বাল্য



সাইয়্যিদাতুন নিসায়ি ‘আলাল আলামীন, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, আফদ্বলুন নাস ওয়ান নিসা বা’দা রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, আহলু


সম্মানিত ও পবিত্র ইসম বা নাম মুবারক: সাইয়্যিদাতুনা হযরত খাদীজাহ আলাইহাস সালাম। সম্মানিত কুনিয়াত মুবারক: উম্মুল হিন্দ আলাইহাস সালাম। সম্মানিত লক্বব মুবারক আইয়্যামে জাহিলিয়াতের যুগে: তখন তিনি সকলের মাঝে আত ত্বাহিরাহ, আত ত্বইয়্যিবাহ অর্থাৎ পূত-পবিত্রতা, পবিত্রতাদানকারিণী সম্মানিত লক্বব মুবারক-এ সারা আরবে,



দেশে সরকারিভাবে সব নাগরিকের জন্য সামরিক প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক করতে হবে


মুসলমানের জান-মাল রক্ষা করা যেমন ফরয, তেমনি তা রক্ষার জন্য জিহাদী যোগ্যতাও অর্জন করা জরুরী। পবিত্র মুসলিম শরীফ’ ও ‘মুসনদে আহমদ শরীফ’ উনাদের মধ্যে রয়েছে- হযরত সালমান ইবনে আকওয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন, “মহান আল্লাহ পাক উনার রসূল, নূরে



ক্ষুদ্র জ্ঞান দিয়ে মহান আল্লাহ পাক উনার কুদরতের ব্যাখ্যা না খুঁজে মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট আত্মসমর্পন করাই বুদ্ধির


বিজ্ঞান জ্ঞানের বড়াই করে। জ্ঞানের কতটুকু বিজ্ঞানের কাছে আছে। বিজ্ঞান বাস্তবতার নিরিখ করে তাই ঘোষণা করে। একটি সরষে দানার মধ্যে কী করে একটি পুরা গাছের নিঁখুত বৃত্তান্ত রেকর্ড থাকে তা কী বিজ্ঞান বলবে? অলৌকিক ঘটনার ব্যাখ্যা বিজ্ঞানীদের অজানা। আসলে মহান আল্লাহ



মরা মুরগি যায় কোথায়? হোটেল-রেস্তোরাঁয় দেদারসে বিক্রি হচ্ছে মরা মুরগি দেখার কেউ নাই


সব প্রশংসা মহান আল্লাহ পাক উনার জন্য। সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিয়্যীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি অফুরন্ত দুরূদ ও সালাম।নামি-দামি রেস্টুরেন্ট থেকে শুরু করে ফুটপাতের খাবারের দোকান। সবখানেই মিলছে মরা মুরগি। এসব মরা