বোস্তামী আলম -blog


...


 


মহাসম্মানিত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের সম্পর্কে কিরূপ আক্বীদা পোষণ করতে হবে


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “যে ব্যক্তি হাক্বীক্বী মুত্তাক্বী হবেন আমি (মহান আল্লাহ পাক) তাকে গাইরুল্লাহ থেকে বের হওয়ার সমস্ত রাস্তা দেখিয়ে দিব এবং এমন রিযিক দান করব যা সে কল্পনাও করতে পারবে না। সুবহানাল্লাহ! এই পবিত্র আয়াত শরীফ



আজ মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ১২ই ছফর শরীফ। সুবহানাল্লাহ! নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি যেহেতু


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘মহান আল্লাহ পাক উনার নিদর্শন সম্বলিত দিবসগুলিকে স্মরণ করিয়ে দিন সমস্ত কায়িনাতকে। সুবহানাল্লাহ! আজ মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ১২ই ছফর শরীফ। সুবহানাল্লাহ! নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি যেহেতু “মহাসম্মানিত ও



মুজাদ্দিদে আ’যম মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি কায়িনাতবাসীকে সর্বশ্রেষ্ঠ এবং সর্বোত্তম বিষয় মুবারকসমূহ তা’লীম মুবারক দান করছেন


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার, উনার মহাসম্মানিত হযরত আব্বা-আম্মা আলাইহিমাস সালাম উনাদের, মহাসম্মানিত হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের এবং মহাসম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের অর্থাৎ উনাদের প্রত্যেকের বেমেছাল সম্মানিত শান মুবারক সম্পর্কে



সংবিধান অনুযায়ীই সরকার বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন কিছুতেই করতে পারে না


‘বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন’-এ বলা হয়েছে বাল্যবিবাহ যারা করবেন, সেই বিয়ে যারা পরিচালনা করবেন অথবা তা আয়োজনে সম্পৃক্ত থাকবেন, তারা সবাই দ-ের আওতায় পড়বেন। নাউযুবিল্লাহ মিন যালিক! এই আইন মুসলিম এই দেশে ইসলামের প্রতি প্রকাশ্য বিরোধিতা করা শুধু নয়, সংবিধানের ধারার সাথেও



পবিত্র আশুরা শরীফ উনার মাঝে মুসলমানদের জন্য খাছভাবে দোয়া করুন আর কাফিরদের জন্য কঠিন বদদোয়া করুন


পবিত্র আশুরা শরীফ উনার রাতে প্রত্যেকটি দোয়াই খাছভাবে ক্ববুল করা হবে। সুবহানাল্লাহ! আর এজন্য মুসলমানদের মুক্তির জন্য এবং বিপদ থেকে হিফায়েতর জন্য বিশেষ দোয়া করা মুসলমানদের কর্তব্য। আর সেসকল সন্ত্রাসী কাফির মুশরিকদের বিরুদ্ধে কঠিন বদদোয়া করা এখন ঈমানের দাবী। বর্তমান সময়ে



সিলেবাসের পরিবর্তন ছাড়া মুসলমানদের অধিকার কখনোই প্রতিষ্ঠিত হবে না


রাশিয়ায় কমুনিস্টরা ক্ষমতা দখল করেই প্রথম যে কাজটি করেছিলো সেটি ছিলো- সম্পূর্ণ শিক্ষাব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন। কমুনিস্টরা নতুন শিক্ষাব্যবস্থা তৈরি করা পর্যন্ত বেশ কয়েকবছর তাদের সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে বন্ধ রাখে। এরপর তারা কমুনিজমকে শিক্ষার মূল পাঠ্য করে সেভাবেই পাঠ্যপুস্তকগুলো রচনা করে। কমুনিজমকে বাধ্যতামূলক



মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র সুন্নত মুবারক প্রচার-প্রসার করার বেমেছাল ফযীলত মুবারক


মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, عَنْ حَضْرَتْ اِبْنِ عَبَّاسٍ رَضِىَ اللهُ تَعَالـٰى عَنْهُ قَالَ سَـمِعْتُ حَضْرَتْ عَلِـىِّ بْنَ اَبِــىْ طَالِبٍ عَلَيْهِ السَّلَامُ يَقُوْلُ خَرَجَ عَلَيْنَا رَسُوْلُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فَقَالَ اللَّهُمَّ ارْحَمْ خُلَفَائِـىْ قَالَ



কাবিল যেভাবে সমস্ত হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী, ঠিক সেভাবে বিশ্বের মুসলিম হত্যার জন্য বিধর্মীরা দায়ী


ফিলিস্তিনের গাজায় বর্তমানে ইসরায়েলিদের যে হত্যাকাণ্ড পরিচালিত হচ্ছে, তাতে সকলেই দোষারোপ করছে ইহুদিদের বন্ধু পাশ্চাত্যের খ্রিস্টানদেরকে। কিন্তু মুসলিম নির্যাতনের জন্য দায়ী এই যে বর্তমান বিশ্বের খ্রিস্টীয় মেরুকরণ, তার পেছনে কে দায়ী তা নিয়ে কিন্তু কেউই কোনো ফিকির করে না। বর্তমান বিশ্বের



যে বা যারা কথিত ছোঁয়াচে রোগ নামক শিরকী বিশ্বাসে বিশ্বাসী হয়ে মুসলমানদেরকে মসজিদে যেতে নিরুৎসাহিত করছে, কাতারে ফাঁক ফাঁক


পবিত্র মসজিদে আসার ব্যাপারে বাধা প্রদান করা, নিষেধ করার বিষয়ে মহান আল্লাহ পাক উনার অত্যন্ত কঠিন সতর্কবাণী: পবিত্র মসজিদে আসার ব্যাপারে যারা বাধা প্রদান করে, নিষেধকারীদের প্রসঙ্গে স্বয়ং মহান আল্লাহপাক রাব্বুল আলামীন তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন-



পবিত্র সূরা ফাতিহা শরীফ উনার মধ্যেই রয়ে গেছে আসল সমস্যার সমাধান


পবিত্র সূরা ফাতিহা শরীফ উনার গুরুত্ব অনুধাবন করা যায়, প্রত্যেক নামাযের প্রত্যেক রাকাতে এ পবিত্র সূরা শরীফ পাঠ করার বাধ্যবাধকতা দেখে। একজন মানুষ দৈনিক ৫ ওয়াক্ত ফরয নামাযের ১৭ রাকাতে ১৭ বার, ৩ রাকাত ওয়াজিব নামাযে ৩বার এবং ১২ রাকাত সুন্নতে



পবিত্র শবে বরাত অস্বীকারকারীরা চরম বিদয়াতী ও গুমরাহ


আরবী বছরের যে পাঁচটি খাছ রাতে দোয়া কবুলের কথা পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ঘোষণা করা হয়েছে তার মধ্যে অন্যতম একটি হচ্ছে ‘বরাত’ উনার রাত। পবিত্র কুরআন শরীফ উনার ভাষায় পবিত্র শবে বরাত উনাকে “লাইলাতুম মুবারকা বা বরকতময় রজনী” এবং পবিত্র



সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুছ ছালিছ আলাইহিস সালাম উনাকে ‘শিয়াদের ইমাম’ বলে অপপ্রচারকারীরা চরমভাবে বিভ্রান্ত


শতকরা ৯৮ ভাগ মুসলমান উনাদের এদেশে পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার ইতিহাসের ঐতিহাসিক দিন পবিত্র ১০ই মুর্হরম শরীফ অর্থাৎ পবিত্র আশূরা শরীফ উপলক্ষে বাংলাদেশের সংবাদপত্রগুলোর এলোমেলো ভাষ্য বিশেষ করে হযরত ইমাম হুসাইন আলাইহিস সালাম উনাকে ‘শিয়াদের ইমাম’ বলে আখ্যায়িত করা; যা সত্যিই