সত্যকথন -blog


...


সত্যকথন
 


আওলাদে রসূল সাইয়্যিদাতুনা হযরত নিবরাসাতুল উমাম আলাইহাস সালাম উনার লক্ষ-কোটি মুবারক খুছূছিয়ত বা বৈশিষ্ট্যসমূহের মধ্য হতে কতিপয় খুছূছিয়ত বা


মহামূল্যবান ক্বওল শরীফ হচ্ছে- من له المولى فله الكل “যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনাকে পেয়ে যান, তিনি সব কিছুই পেয়ে যান।” আওলাদে রসূল সাইয়্যিদাতুনা হযরত নিবরাসাতুল উমাম আলাইহাস সালাম তিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার এবং



পবিত্র রমাদ্বান শরীফ মাস উনার মাধ্যমে অর্জিত তাক্বওয়া পবিত্র রমাদ্বান শরীফ উনার পরবর্তী মাসগুলোতেও বজায় রাখতে হবে


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমাদের মধ্যে ওই ব্যক্তি মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট অধিক সম্মানিত যে ব্যক্তি অধিক মুত্তাক্বী।” আর এ মুত্তাক্বী হওয়ার জন্য বা তাক্বওয়া অর্জন করার জন্যই মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র রমাদ্বান শরীফ মাস উনার



রবীন্দ্রের পূর্বপুরুষ ছিল কুলি সর্দার! তার ‘ঠাকুর’ পদবী ব্রাহ্মণ অর্থে নয়, বরং কুলি সর্দার অর্থেই


কথিত কবি রবীন্দ্রের পূর্বপুরুষরা ছিলো খুবই সাধারণ অখ্যাত মানুষ। তাদের নামগুলোও ছিল অত্যন্ত মামুলি এবং আড়ম্বরবিহীন। যেমন কামদেব, জয়দেব, রতিদেব ও শুকদেব। কামদেব ও জয়দেব কাল্পনিত হিন্দুধর্ম ত্যাগ করে মুসলমান হয়ে গিয়ে তাঁদের নাম হয়েছিল যথাক্রমে কামালুদ্দিন ও জামালুদ্দিন। রবীন্দ্রের পূর্বপুরুষরা



কাজী নজরুলকে ‘কাফের’ ফতওয়া বনাম নজরুলের কবিতা নিয়ে হিন্দুদের অশ্লীল প্যারোডি


কাজী নজরুল ইসলাম যখন প্রমীলা ওরফে আশালতা সেনগুপ্তাকে বিয়ে করবেন তখনকার ঘটনা। বর মুসলমান ও কনে হিন্দু, এ কারণে প্রশ্ন উঠলো যে, বিয়ে কোন মতে হবে? হিন্দু মতে তো হতে পারে না। হতে পারে সিভিল অ্যাক্টে, যেখানে বলা হয়েছে যে বর



অথর্ব জাতি, ভারহীন জাতি, নির্বোধ জাতি…


সাংবাদিকঃ অনুবাদ করো- আমি জিপিএ-৫ পেয়েছি। ছাত্রঃ I am GPA 5. (আমি জিপিএ ৫) মাছরাঙা টিভির এই প্রতিবেদন এখন ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। অনেকে হয়তো ভিডিওতে জিপিএ-৫ ওয়ালাদের নির্বুদ্ধিতা দেখে চোখ কপালে তুলছে, কিন্তু আমি মোটেই অবাক হইনি। কারণ আমি



মুসলমানদের বেশি বেশি সন্তান জন্ম দেয়ার কোশেশ করতে হবে


তুরস্কের রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান যেই কথাটি আজকে বলেছেন, সেই কথাটি বিধর্মীদের ধর্মীয় নেতারা বছরের পর বছর ধরে বলে আসছে। এরদোগান বলেছেন, ‘পরিবার পরিকল্পনা ও জন্মনিয়ন্ত্রণের ধারণা মুসলমানদের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ নয়। আমরা আমাদের উত্তরসূরি কয়েক গুণ করব। এই ক্ষেত্রে প্রধান দায়িত্ব বর্তায়



মুসলমানদের কোয়ালিটির অভাব যেখানে…


দিনাজপুরে হিন্দু শিক্ষকের দ্বারা নির্যাতিত এক ছাত্রীকে কানে ধরে পুরো স্কুল ঘোরানো হয়েছে। তার অপরাধ, তাকে তার শিক্ষক শ্লীলতাহানী করলে সে স্কুল কর্তৃপক্ষের নিকট অভিযোগ করেছিল। এতে করে অভিযুক্ত শিক্ষক তপু রায়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো নির্যাতিত ছাত্রীকে কানে ধরে



ধর্মনিরপেক্ষতা ও অসাম্প্রদায়িকতা: বুদ্ধিবৃত্তিক ভ্যাসেকটমির উপকরণ


আমাদের দেশে বিদেশী এনজিও ও সংস্থাগুলো সাময়িক জন্মবিরতিকরণের সাথে সাথে স্থায়ী জন্মবিরতিকরণের জন্য প্রচার চালায়। লাইগেশন, ভ্যাসেকটমি করিয়ে জনগণকে বন্ধ্যা করতে চায় তারা। মুসলমানদের জন্য খোজাকরণের প্রেসক্রিপশন দিলেও নিজেদের ক্ষেত্রে কিন্তু তারা উল্টোটা করে থাকে। অমুসলিমরা নিজেদের দেশে ঘোষণা দিয়ে থাকে,



সরকারের দুর্বল দিকটি প্রকাশিত হচ্ছে, পতন সন্নিকটে


আজকে শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণা দেখে বুঝতে পারলাম, সরকার আসলে হিন্দুদের খুশি করার জন্য কতোটা দেউলিয়াপনা শুরু করেছে। হিন্দু ধর্ম সাবজেক্টে ফেলের ঘটনায় শিক্ষকদের বেতন বন্ধ করা হবে, তাদের চাকরি খাওয়া হবে, এমনকি আদালতের মাধ্যমে ডিসিশন নিয়ে তাদেরকে জেলের ভাত খাওয়ানোরও ঘোষণা দিয়েছে



মাল মুহিতের মন্দিরসর্বস্ব বাজেট বক্তব্য ও সরকারের বাড়াবাড়ি হিন্দুতোষণ


কে কতোভাবে হিন্দুদের খুশি করতে পারে, তা নিয়ে যেন রীতিমতো প্রতিযোগিতা শুরু করেছে বর্তমান সরকারের মন্ত্রীরা। সকালে শুনলাম, কুশিক্ষামন্ত্রী নাহিদ ঘোষণা দিয়েছে যে, যারা হিন্দুধর্ম বিষয়ে ফেল করানোর জন্য দায়ী তাদের বেতন বন্ধ করা হবে, এমনকি চাকরি থেকে পর্যন্ত বরখাস্ত করা



“রেখেছ বাঙালি করে, মানুষ করোনি” লাইনটির আসল ব্যাখা


আচ্ছা পাঠকেরা, আপনারা নিশ্চয়ই শরৎচন্দ্রের ‘শ্রীকান্ত’ উপন্যাসের ঐ লাইনটির কথা শুনেছেন যে, “আজ বাঙালি ও মুসলমান ছেলেদের মধ্যে ফুটবল খেলা হবে”। এই লাইনে কী বোঝানো হয়েছে তাও সবাই জানেন। কলকাতার হিন্দুরা মুসলমানদেরকে ‘বাঙালি’ বলে স্বীকার করতে চায় না, তারা ‘বাঙালি’ বলতে



ঠাকুর ঘরে কে রে, আমি কলা খাই না…


হিন্দুদের কাজকর্ম দেখলে ঠিক এই প্রবাদটির কথাই স্মরণ হয়। এরা একেকবার মুসলিম বিরোধী বক্তব্য, কর্মসূচি ঘোষণা করে। যদি দেখে যে মুসলমানরা প্রতিবাদ করছে না, তখন বিষয়টি বাস্তবায়ন করে। আর যদি প্রতিবাদ করে, তখনই নেংটি ইঁদুরের মতো লেজ গুটিয়ে কুঁইকুঁই করে সমস্ত