সরলমত -blog


...


 


সুখবর! সুখবর!! বন্ধ হয়ে গেছে কথিত গণশ্রাদ্ধ


অবশেষে বন্ধ হলো গণশ্রাদ্ধ নামের ষড়যন্ত্রের দুয়ার। এদেশে সাম্প্রাদায়িকতার বিষবাষ্প ছড়াতে ভারত থেকে কিছু মালাউন হিন্দুকে আমদানী করে আনার পরিকল্পনার ছিলো সন্ত্রাসী সংঘঠন আর এস এস এর। তাদের আরো উদ্দেশ্য ছিলো একটা দাঙ্গা লাগানো। দাঙ্গা লাগাতে পারলে এ চুতা দিয়ে ভারত



প্রসঙ্গ: বৌদ্ধদের রাজকীয় পুনর্বাসন এবং বাস্তুহারা লাখো মুসলমান


কিছুদিন পূর্বে রামুতে বৌদ্ধপল্লীতে ঘটনাক্রমে কিছু ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সরকার নিজ দায়িত্বে উদ্দেশ্যমূলকভাবে তাদেরকে রাজকীয়ভাবে পুনর্বাসন করে। কিন্তু প্রতি বছর লাখ লাখ লোক নদীভাঙনে ভিটাবাড়ি হারিয়ে সর্বস্বান্ত হয়; অথচ তাদেরকে পুনর্বাসনে সরকারের উল্লেখযোগ্য কোনো র্কাযক্রম নেই। বাস্তবতা হলো- সরকার নিজের টাকায়



জন্মাষ্টমী ও দুর্গাপূজায় কখনো সার্বজনীন ছুটি হতে পারেনা বরং ঐচ্ছিক দেয়া যেতে পারে


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘তোমরা আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার খিদমত করো ও তা’যীম করো এবং ছানা-ছিফত করো সকাল সন্ধ্যা অর্থাৎ দায়িমীভাবে সর্বদা।’ বর্তমানে ভারতে মুসলমান শতকরা ৪০ ভাগ আর মুশরিক হিন্দুও ৪০ ভাগ অর্থাৎ মুসলমান



সউদী ওহাবী মুনাফিক সরকার এ বছরও কোটি কোটি মুসলমান উনাদের হজ্জ নষ্ট করতে যাচ্ছে


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘নিশ্চয়ই মুনাফিকের স্থান জাহান্নামের অতল তলে।’ সউদী প্রেস এজেন্সীর ওয়েব সাইটে উল্লিখিত আরবী মাস উনার তারিখও বিভ্রান্তিকর। উম্মুল কুরা ক্যালেন্ডার অনুযায়ী এ তারিখ নির্ধারিত হয়ে থাকলে সউদী আরবের জাতীয় সংবাদ সংস্থার একই দিনে দুটো



ভারতে মুসলিম ভোট পেতে মরিয়া মুসলিমবিদ্বেষী বিজেপি, কিন্তু কেন?


গুজরাটে মুসলিমবিরোধী দাঙ্গা সৃষ্টিকারী নরেন্দ্র মোদী। তবু দলকে মুসলমানদের সমর্থন পাওয়ার জন্য উৎসাহিত করতে নিজের রাজ্যেরই উদাহরণ তুলে ধরলো মুসলিমবিদ্বেষী হিন্দু উগ্রবাদী এ পাতিনেতা। দিল্লিতে বিজেপি’র কর্মী-সংগঠকদের সভায় মোদী বললো, “গুজরাটে আমি যদি মুসলিমদের ভোট পেতে পারি, তাহলে অন্যত্র বিজেপি কেন



গো’আযমের রায় অবৈধ। এটা টাকা খাওয়া রায়।


লাখ লাখ লোক হত্যায় নেতৃত্ব দিয়ে যদি ৯০ বছরের জেল হয়, তাহলে ট্রাইবুনাল একটি অবিচার করলো। মানুষকে খুন খারাবীতে উৎসাহ দিলো। এ রায় কেউ মেনে নিবে না। কথিত সুশীল সমাজ কিভাবে েএরায়ে সন্তুষ্ট হয়, যারা দিনের পর  দিন গো’আযমের ফাঁসির জন্য রাস্তায়



পবিত্র রমাদ্বান শরীফ-উনার জরুরী মাসয়ালা মাসায়েলগুলো সংক্ষেপে জেনে নিন


পবিত্র মাহে রমাদ্বান শরীফ মাসতো আসলো! রমাদ্বান শরীফ এর মাসায়ালা মাসায়েল সমূহ স্মরণ আছে কি? যেহেতু এ মাস একটি পবিত্র মাস, আত্ম সংযমের মাস, সূতরাং অতি প্রয়োজনীয় কিছু মাসায়ালা মাসায়েল এখানে দেয়া হল- রোযা ফরয হওয়ার শর্তাবলী: রোযা ফরয হওয়ার জন্য



কান্ড জ্ঞানহীন মন্ত্রী সুরঞ্জিত ওরফে কালো বিড়াল পশুর চেয়ে খারাপ


‘সাভারের রানা প্লাজার ট্রাজেডি তেমন কিছু নয়’, সত্তর লাখ টাকা কেলেঙ্কারির খলনায়ক দপ্তর বিহীন মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের এই মন্তব্যকে দায়িত্বহীনতা ও অমানবিক বলেছেন বাংলাদেশ সংযুক্ত শ্রমিক ফেডারেশনের নেতারা।  তারা আরও বলেন, সে একজন কান্ড জ্ঞানহীন মন্ত্রী। তার মুখেই এসব কথা মানায়।



সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম হাসান আলাইহিস সালাম তিনি বিলাদত শরীফ লাভ করেন শা’বান মাসের ১৫ তারিখ বরাতের দিন বাদ আছর


সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম হাসান আলাইহিস সালাম যিনি ইমামুছ ছানী মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হিসেবে মশহুর, তিনি বিলাদত শরীফ লাভ করেন শা’বান মাসের ১৫ তারিখ বরাতের দিন বাদ আছর ইয়াওমুল আরবিয়ায়ি অর্থাৎ বুধবার দিন।মূলত উনাদের সংস্পর্শে এ বরকতপূর্ণ মাসটি আরো



২৬শে রজব, ইয়াওমুল খামিসী বা বৃহস্পতি বার দিবাগত রাতেই ২৭শে রজব তথা পবিত্র “শবে মিরাজ শরীফ”


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ করেন, ‘মহান আল্লাহ পাক যিনি উনার বান্দা (হাবীব) ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে কোন এক রাতের সামান্য সময়ে (প্রথমে) বাইতুল্লাহ শরীফ থেকে বাইতুল মুকাদ্দাস শরীফ পর্যন্ত, যার আশপাশ বরকতময়; অতঃপর উনার নিদর্শনসমূহ দেখানোর জন্য অর্থাৎ দীদার



অনেক সময় পর ব্লগটাকে লাইভ দেখে ভালোই লাগছে


দীর্ঘ সময় পর সবুজ বাংলা ব্লগ আবারো লাইভে।



গার্মেন্টস খাতে নাশকতায় জামাতের পরিকল্পনা!!! ১৭ লক্ষ টাকা উদ্ধার।


১৭ লক্ষ টাকা উদ্ধার। চট্টগ্রামে শীর্ষ জামায়াত নেতা-অর্থদাতাসহ আটক ৫। চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল মো.নূরুল্লাহ এবং সংগঠনটির চার অর্থদাতাসহ মোট পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে নগদ ১৭ লক্ষ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে নগরীর