তাজদীদ -blog


...


 


আমাদের সর্বপ্রথম পরিচয় আমরা মুসলিম, এরপর অন্য পরিচয়….


কিছুদিন আগে আমাদের দেশের একজন মন্ত্রী বলেছে- সে প্রথমে মানুষ, এরপর বাঙালি, এরপর সে মুসলমান।’ শুধু কেবল এই একজন মন্ত্রীর কথা নয়, এ কথা এখন সারা বিশ্বের বহু মুসলিমরাই এরকম বলে থাকে। মূলত, এই তত্ত্বটি(!) তথাকথিত মানবতাবাদীদের জঘন্যতম একটি বুলি। এই



কল্যাণমূলক রাষ্ট্রের ধারণা ও ক্বিয়ামত-এর তথ্য


অধুনা পুলিশী রাষ্ট্রের পরিবর্তে কল্যাণমূলক রাষ্ট্রের ধারণার প্রবর্তন হয়েছে। কিছুটা অনুশীলন হচ্ছেও বলে দাবি করা হচ্ছে। কিন্তু কল্যাণমূলক ধারণার প্রকৃত ব্যাপ্তি নির্দেশিত হয়েছে কুরআন শরীফ-এ। ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “হে মহান আল্লাহ পাক! আপনি আমাদের দুনিয়াবী কল্যাণ দান করুন এবং পরকালীন কল্যাণ



সন্তান প্রসবের ক্ষেত্রে আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে সিজারিয়ান, চলছে গলাকাটা বাণিজ্য, সিজারিয়ান রোধে প্রয়োজন সচেতনতা


দেশে স্বাভাবিক প্রসবের তুলনায় সিজারিয়ান পদ্ধতিতে সন্তান জন্ম হওয়ার হার আশঙ্কাজনকভাবে বাড়ছে। সরকারি জরিপেও এ তথ্যটি উঠে এসেছে। পরিসংখ্যান এবং বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সিজারিয়ান পদ্ধতিতে যে সংখ্যক নবজাতক জন্ম হচ্ছে এর ৩৫ শতাংশই অপ্রয়োজনীয়। পরিসংখ্যান বলছে, প্রতি একশ নবজাতকের মধ্যে ২৩ জনেরই



সম্মানিতা হুর-গেলমানের আলোচনায় কুণ্ঠাবোধ করে অনেকেই তবে অশ্লীল শব্দ আওড়াতে ভুলেনা


জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জীবনের একটি অসতর্ক অধ্যায় হলো সাম্যবাদীদের দ্বারা সাময়িক বিভ্রান্তি। কবি তখন অকুণ্ঠচিত্তেই লিখেছেন- “গাহি সাম্যবাদের গান।”অভিযোগ রয়েছে, নজরুলের অভাব ও আত্মভোলা মানসিকতাকে পুঁজি করে তখন সাম্যবাদী তথা সমাজতন্ত্রীরা বেশ কিছু কবিতা লিখিয়ে নিয়েছিল। তার মধ্যে বহুল



সচ্চরিত্রবান মুরীদই শায়েখ বা মুর্শিদ ক্বিবলা উনার সর্বাধিক নৈকট্যশীল ও সন্তুষ্টিপ্রাপ্ত


হুসনুল খুলক বা সচ্চরিত্রবান হওয়ার জন্য সালিক বা মুরীদকে অরা’ উনার মাক্বাম ত্বয় বা হাছিল করা প্রয়োজন। কেননা ورع (অরা’) উনার মাক্বাম ত্বয় বা হাছিল করতে পারলে মুর্শিদ ক্বিবলা উনার খিদমত মুবারকে আঞ্জাম দেয়া সহজ ও সম্ভব হবে। সাথে সাথে উনার



হারাম নাটক-সিনেমার ভয়াবহ কুফল রাষ্ট্র অস্বীকার করতে পারছে না


পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার দৃষ্টিতে নাটক-সিনেমা করা ও দেখা হারাম- ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র তা মানে না। কিন্তু নাটক-সিনেমার ভয়াবহ কুফল রাষ্ট্র অস্বীকার করতে পারছে না। ডিস এন্টেনার প্রসার অজোপাড়াগাঁয়েও। হিন্দি সিরিয়ালের কুপ্রভাবে দেশ জাতি বিপর্যস্ত। ‘রাজার গায়ে তো পোশাক নেই’- এই সত্য



স্বীয় সন্তানদেরকে মহাসম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের জীবনী মুবারক শিক্ষা দেয়া প্রত্যেক পিতা-মাতার জন্য ফরযে আইন


এই সম্পর্কে সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- عَنْ حَضْرَتْ عَلِـىّ بْنِ اَبِـىْ طَالِبٍ عَلَيْهِ السَّلَامُ قَالَ قَالَ رَسُوْلُ اللهِ صَلَّى الله عَلَيْهِ وَسَلَّمَ اَدّبُوْا اَوْلَادَكُمْ عَلـٰى ثَلَاثِ خِصَالٍ حُبّ نَـبِـيّكُمْ وَحُبّ اَهْلِ بَيْتِهٖ وَقِرَاءَةِ الْقُرْاٰنِ অর্থ: “সাইয়্যিদুনা হযরত



মুসলমানদের উচিত স্বকীয়তা ধারণ করে প্রকৃত মুসলমানে পরিণত হওয়া


আমরা অনেকেই পবিত্র সুন্নতের অনুসরণ করিনা কিন্তু নিজেদের মুসলমান এবং ঈমানদার বলে দাবি করি। অথচ মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “যদি তোমরা ঈমানদার দাবি করে থাকো তবে আল্লাহ পাক উনাকে ও উনার রসূল নূরে মুজাসসাম,



উম্মুল মু’মিনীন হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার সংক্ষিপ্ত পরিচিতি


নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রথমা চিরসহধর্মীনী হচ্ছেন উম্মুল মু’মিনীন হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম। মূল নাম মুবারক : হযরত “খাদীজা” আলাইহাস সালাম। উপ-নাম মুবারক: উম্মু হিন্দ। উপাধী বা লক্বব মুবারক: ত্বহিরা, কুবরা। বিলাদত শরীফ: মশহুর মতে, আমুল ফীলের ১৫ বছর পূর্বে



উম্মুল মুমিনীন আলাইহিমাস সালাম উনাদের ফযীলত


পবিত্র কুরআন শরীফ ও হাদীছ শরীফ-এর অসংখ্য স্থানে হযরত উম্মুল মু’মিনীন আলাইহিমাস সালাম উনাদের শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত বর্ণিত রয়েছে। মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন-  وازواجه امهاتكم. অর্থাৎ- “নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার আহলিয়াগণ উনারা তোমাদের



তালাক কী ও তালাকের প্রকারভেদ


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে আরো বর্ণিত আছে- عن حضرت ابن عمر رضى الله تعالى عنه ان النبى صلى الله عليه وسلم قال ابغض الحلال الى الله الطلاق. অর্থ: হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে উমর রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত। নিশ্চয়ই সাইয়্যিদুল



এক নজরে- ‘ইখলাছ অর্জন করা ফরয’ (দলিল সংকলন)


মহান আল্লাহ্ পাক উনার কালামে পাকে ইরশাদ করেন,  *وَمَۤا أُمِرُوْۤا اِلَّا لِيَعْبُدُوْا اللهَ مُخْلِصِيْنَ لَهُ الدِّيْنَ. অর্থঃ- “আল্লাহ্ পাক তিনি নির্দেশ দিচ্ছেন, একমাত্র খালিছভাবে আল্লাহ্ পাক উনার সন্তুষ্টির জন্যই ইবাদত করবে।” (সূরা বাইয়্যিনাহ/৫)  *اَحْسِنُۤوْا إِنَّ اللهَ يُحِبُّ الْـمُحْسِنِيْنَ অর্থঃ- “ইহ্সান (ইখলাছ)