Ahmad -blog


...


 


সুমহান ১৮ই যিলহজ্জ শরীফ উনার মুবারক সম্মানার্থে…


একদিন হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হযরত সাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদের লক্ষ্য করে ইরশাদ মুবারক করলেন, “আপনারা উঠুন এবং আপনাদের সমমর্যাদার ব্যক্তিত্ব উনাদের সাথে মুয়ানাকা করুন।“ সেখানে হযরত আবু বকর ছিদ্দিক্ব আলাইহিস সালাম, হযরত উমর ফারুক্ব আলাইহিস



দুই বার সম্মানিত জান্নাত খরিদ করেছেন যিনি…


যখন মসজিদে নববী শরীফ সম্প্রসারিত করার প্রয়োজন দেখা দিল, তখন নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ, হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ঘোষণা মুবারক করলেন, যিনি এই খিদমত মুবারকের আঞ্জাম দিবেন উনার জন্য জান্নাত ওয়াজিব হয়ে যাবে। সুবহানাল্লাহ! একজন সম্মানিত ছাহাবী তিনি এই



মৃত্যুকালীন সমস্ত নেক আরজু পূরণ হওয়া সম্ভব শুধুমাত্র একটি আমলের মাধ্যমে!


একজন মানুষ যতবড় ফাসিক ফুজ্জারই হোক, তার অন্তরে যদি বিন্দুমাত্র ঈমান থাকে তাহলে সে আশা করে, মৃত্যুকালে সে যেনঃ ……… তওবাকারীরূপে ইন্তিকাল করে ……… পরিপূর্ণ ঈমানদাররূপে ইন্তিকাল করে ……… সমস্ত গুনাহখতা হতে ক্ষমাপ্রাপ্ত হয়ে ইন্তিকাল করে ……… শহীদী অবস্থায় ইন্তিকাল করে



আজকের রাতটিই এই বছরের জন্য দুয়া কবুলের পাঁচ রাতের মধ্যে শেষ রাত


সাধারনভাবে কোন মুসলমান যদি সত্য কথা বলে ও হালাল খাদ্য খায়, তাহলে তার সমস্ত দুয়াই সবসময় কবুল হয়। তারপরেও বান্দা বান্দীদের প্রতি মহান আল্লাহ পাক ও উনার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের খাছ ইহসান, যে বিশেষ পাঁচটি রাত দেয়া হয়েছে



সম্মানিত আরাফার দিবসঃ ক্ষমা ও সন্তুষ্টি মুবারক অর্জনের এক মহান উছীলা


যখন মহান আল্লাহ পাক যমীনে উনার খলীফা বা প্রতিনিধি সৃষ্টি করা ও পাঠানোর বিষয়ে হযরত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনাদের জানিয়েছিলেন, তখন হযরত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারা পূর্ব অভিজ্ঞতা থেকে মারামারি কাঁটাকাঁটি ও রক্ত প্রবাহিত করার বিষয়টি উল্লেখ করেছিলেন। এতে মহান আল্লাহ



হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার শানে যারা কটুক্তি করে, তাদের ক্বতল করা ওয়াজিব


আব্বাসীয় খলীফা হারুনুর রশীদ হযরত ইমাম মালেক রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার কাছে পত্রের মাধ্যমে জানতে চাইলেন, “নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার শানে কুটক্তিকারীদের শাস্তি কি? ইরাকের ইসলামী স্কলারগণতো হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার শানে অবমাননাকারীদের



যালিম মিয়ানমার, মজলুম রোহিঙ্গা ও বাকি সারা বিশ্বের মুসলমানদের প্রতি…


নমরুদ একসময় সারা দুনিয়া শাসন করেছে। তাতে কি হয়েছে? তাকে ধ্বংস করার জন্য মহান আল্লাহ পাক উনার একটা ল্যাংড়া মশাও খরচ হয়নি। আর আরেক প্রতাপশালী ফেরাউনকে মারার জন্য তো কোন কিছুই লাগেনি। পানিতে চুবিয়ে মারা হয়েছে। সেখানে, পুরো পৃথিবী দূরে থাকুক;



জিহ্বার অতিরিক্ত ব্যবহারের কুফল সম্পর্কে


নারীদের নিয়ে যত জোকস প্রচলিত আছে তার একটা বিরাট অংশ হল, তাদের বেশি কথা বলা অর্থাৎ বাচালতাকে কেন্দ্র করে। বেশিরভাগ মহিলাই এগুলো পড়ে হেসে উড়িয়ে দেন, নিজ ত্রুটিটা সংশোধনের চেষ্টা করেন না। জিহ্বার এই অতিরিক্ত ব্যবহারের কুফল জানেন?   প্রথমত, অনর্থক



কালিমা শরীফ শুধু ঠোঁট পর্যন্ত না, অন্তর পর্যন্ত পৌঁছাতে হবে


১০ম হিজরী সনের ১০ রবিউল আউওয়াল শরীফ ইয়াওমুছ ছুলাছা (মঙ্গলবার), নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত আওলাদ সাইয়্যিদুনা হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালাম তিনি দুনিয়া থেকে পর্দা মুবারক করেন। উনাকে রওযা শরীফে রাখার পর হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু



“সুফিয়া কামাল” হল কর্তৃপক্ষের ড্রেস কোড সংক্রান্ত নোটিশ প্রসঙ্গে


“সুফিয়া কামাল” হল কর্তৃপক্ষ নোটিশ দিয়েছে, দিনে বা রাতে অশালীন পোশাক পড়ে ঘোরাফেরা বা হল অফিসে প্রবেশ করা যাবে না। তারা অশালীন পোশাকের সংজ্ঞাও দিয়ে দিয়েছে; তা হল সালোয়ারের উপর গেঞ্জি! কত লজ্জার বিষয় যে, আমাদের দেশের ম্যাচিওর মেয়েদের শেখাতে হয়



সুমহান ২রা যিলহজ্জ শরীফ, মুবারক হো!


৮ম হিজরি সনের ২রা যিলহজ্জ শরীফ জুমুয়াবার রাত। অফুরন্ত রহমত, বরকত, সাক্বীনার ফোয়ারা ছিটিয়ে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত মারিয়া কিবতিয়া আলাইহাস সালাম উনার কোল মুবারকে তাশরীফ আনেন, হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সর্বকনিষ্ঠ আওলাদ, আন নূরুর রাবি’ সাইয়্যিদুনা হযরত



যিলহজ্জ শরীফ মাসের প্রথম দশদিনঃ অফুরন্ত নিয়ামতের উৎস


একটি শবে ক্বদর পেতে বান্দাদের পাঁচটি রাত তালাশ করতে হয়…আর এক বছর রোযা রাখা তো সম্ভবই হয় না…অথচ মহান রব তায়ালা কত সহজে এতো অসীম নিয়ামত হাছিলের উপায় দিয়ে দিলেন। দশটি রাতের ইবাদত দশটি শবে ক্বদরের সমপরিমাণ! দশদিন রোযা দশ বছরের