১.৯২.৫ -blog


সত্য প্রকাশে সদা প্রত্যয়ী


 


পবিত্র তারাবীহ নামায উনার পর দোয়া-মুনাজাত করা সুন্নত


কাফির, নাস্তিক ও উলামায়ে ‘সূ’রা অনেক বিষয়েই বলে থাকে যা মনগড়া। সেগুলো কিছুতেই মানা যাবে না। আর সেগুলো মানলে কোনোভাবেই ঈমান থাকবে না। যেমন উলামায়ে ‘সূ’রা বলে থাকে- পর্দা করার দরকার নেই। নাউযুবিল্লাহ! ছবি তোলা জায়িয রয়েছে। নাউযুবিল্লাহ! এগুলো কি মানা



মহাপবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার বিরোধীরা আবু লাহাবের চেয়ে কোটি কোটিগুণ নিকৃষ্ট এবং জাহান্নামের কীট


আবু লাহাব একাধারে বারো বছর নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিরোধিতা করেছিল। মহান আল্লাহ পাক তিনি আবু লাহাব ও তার স্ত্রীসহ পরিবারের সকলের ধ্বংসের ব্যাপারে পবিত্র সূরা লাহাব শরীফ নাযিল করেছেন এবং তারা আযাবে-গযবে ধ্বংস হয়ে



আছ ছালিহ, নাশিরুল কুরআন, খলীফায়ে ছালিছ, খলীফাতুল মুসলিমীন, আমিরুল মু’মিনীন হযরত উছমান যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম উনার কিছু নছীহত


(১) চাকচিক্য পোশাকের লোভ যাদের অন্তরে, তাদের কাফনের কথা স্মরণ করা উচিত। জাঁকজমক বাড়ির আকাঙ্খা যাদের অন্তরে, তাদের উচিত কবরের ছোট্ট গর্তটির কথা স্মরণ করা। যারা সবসময় সুস্বাদু খাবারের লোভ করে তাদের কর্তব্য হচ্ছে- নিজের লাশটি যে শেষ পর্যন্ত কীটের খোরাক



ওয়ালিদুর রসূল, সাইয়্যিদুল বাশার, সাইয়্যিদুল কাওনাইন, মাহবূবে ইলাহী, নূরে মুয়াজ্জাম, নূরে ইলাহী, মালিকুল জান্নাহ, যাবীহুল্লাহ সাইয়্যিদুনা হযরত খাজা আব্দুল্লাহ


সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মু রসূলিনা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত গায়িবী নিদা মুবারক: বর্ণিত রয়েছে যে, সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মু রসূলিনা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনার সম্মানিত পিতা আলাইহিস সালাম উনাকে বলেছিলেন যে, হে আমার সম্মানিত আব্বাজান আলাইহিস সালাম, আমি যখন



এক নজরে খলীফাতু রসূলিল্লাহ, মুরতাজা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম উনার জীবনী মুবারক


পরিচিতি: নাম মুবারক- আলী। উপনাম আবূল হাসান ও আবূ তুরাব। সম্মানিত পিতা উনার নাম মুবারক- আবূ ত্বালিব। সম্মানিতা মাতা উনার নাম মুবারক- হযরত ফাতিমা বিনতে আসাদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা। বিশেষ উপাধি- আসাদুল্লাহ, হায়দার, মুরতাজা। তিনি আব্দুল্লাহ নামে প্রসিদ্ধ। তিনি নূরে মুজাসসাম



মহাপবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার গুরুত্ব


হযরত উম্মুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম এবং হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের এত শান-মান, মর্যাদা, ফযীলত মুবারক কেন? কারণ উনারা নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার আহাল-ইয়াল উনাদের অন্তর্ভুক্ত। সুবহানাল্লাহ! হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম



তারাবীহর নামায নিয়ে আমি ও এক লা মাযহাবীর কথোপকথন


আমিঃ আসসালামু আলাইকুম লা মাযহাবীঃ ওয়ালাইকুম (রাগত স্বরে) আমিঃ সামনে তো পবিত্র রমাদ্বান শরীফ মাস আসতেছে লা মাযহাবীঃ হুম আমিঃ আচ্ছা ভালো কথা! আপনারা তারাবীহর নামায ৮ রাকায়াত পড়েন কেন? তারাবীহর নামায তো ২০ রাকায়াত। লা মাযহাবীঃ কে বলছে ২০ রাকায়াত?



শবে বরাত ও এর দলীল ভিত্তিক প্রমাণ


১৪ই শা’বান দিবাগত রাতটি হচ্ছে পবিত্র শবে বরাত বা বরাতের রাত্র। কিন্তু অনেকে বলে থাকে কুরআন শরীফ ও হাদীছ শরীফ এর কোথাও শবে বরাত বলে কোনো শব্দ নেই। শবে বরাত বিরোধীদের এরূপ জিহালতপূর্ণ বক্তব্যের জবাবে বলতে হয় যে, শবে বরাত শব্দ



“মুহম্মদ” ও “আহমদ” নাম মুবারক লিখা প্রসঙ্গে


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে, দুনিয়াতে কেউ যদি ‘মুহম্মদ’ ও ‘আহমদ’ নাম রাখে তা হলে ওই ব্যক্তিকে জাহান্নামের আগুন পোড়াবে না। অর্থাৎ সে জান্নাতী হবে। সুবহানাল্লাহ! হযরত আবু উমামা আল বাহিলী রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত। আখিরী রসূল,



দেওবন্দীদের কুফরী আক্বীদা


(১) “মহান আল্লাহ পাক তিনি মিথ্যা বলতে পারেন।” নাঊযুবিল্লাহ মিন যালিক! (রশিদ আহমদ গাংগুহী, ফতওয়া রশিদিয়া ১ম খণ্ড: পৃষ্ঠা-১৯, রশিদ আহমদ গাংগুহী, তালিফাত রশিদিয়া, কিতাবুল আক্বাইদ অধ্যায়, পৃষ্ঠা-৯৮, খলীল আহমদ আম্বেঢী, তাজকিরাতুল খলীল, পৃষ্ঠা ১৩৫, মেহমুদ হাসান, আল-জিহাদুল মুগিল, পৃষ্ঠা ৪১)



খলীফায়ে ছালিছ, আমীরুল মু’মিনীন সাইয়্যিদুনা হযরত যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম উনার পবিত্র জীবনী মুবারক


আজ সুমহান বরকতময় ১৮ই পবিত্র যিলহজ্জ শরীফ। খলীফায়ে ছালিছ, আমীরুল মু’মিনীন সাইয়্যিদুনা হযরত যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম পবিত্র বিছাল শরীফ অর্থাৎ পবিত্র শাহাদত শরীফ দিবস। খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার এবং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া



পবিত্র ঈদুল আদ্বহার দিনে পবিত্র সুন্নত সমূহ


) খুব ভোরে ঘুম থেকে উঠা ২) গোসল করা ৩) মিসওয়াক করা ৪)সামর্থ্য অনুযায়ী নতুন পোশাক পরা ৫) আতর ব্যবহার করা ৬) মহল্লার মসজিদে গিয়ে জামায়াতে ফযরের নামায পড়া ৭) ঈদগাহে হেঁটে যাওয়া ৮) পবিত্র ঈদুল আদ্বহার দিন সকালে কিছু না