ত্বলিবে ইলম -blog


...


 


খাছ সুন্নতী বাল্যবিবাহ বিষয়টি দ্বীন ইসলাম উনার সাথে সম্পৃক্ত ও মুসলমানদের পবিত্র ঈমানের সাথে সংশ্লিষ্ট


বর্তমানে ইহুদীদের এজেন্ট হিসেবে মুসলমানদের ঈমান আমলের সবচেয়ে বেশী ক্ষতি করছে যারা তারা হলো “উলামায়ে সূ”, ইহুদীদের এজেন্ট উলামায়ে ‘সূ’রা হারাম টিভি চ্যানেল, পত্র-পত্রিকা, কিতাবাদি ও বক্তব্য বা বিবৃতির মাধ্যমে খাছ সুন্নতি বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে বলছে। অর্থাৎ তাদের বক্তব্য হচ্ছে সম্মানিত শরীয়ত



এদেশে সংখ্যালঘুদের ছুটি ঐচ্ছিক করুন: অর্থনীতির চাকা সচল রাখুন


বাংলাদেশের জনসংখ্যার ক্ষদ্র থেকে ক্ষুদ্রতম একটি অংশ অমুসলিমরা। এই গুটিকয়েক সংখ্যালঘুদের জন্য দেশের বিশাল জনসংখ্যাকে ছুটি কাটাতে হয়। অর্থাৎ মাত্র কয়েক ভাগ অমুসলিমদের ছুটিতে দেশের ৯৮ ভাগ জনসংখ্যাকে অলস বসিয়ে রাখায় দেশের অর্থনীতি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এক্ষেত্রে সরকারের উচিত হবে মাত্র



একা একা প্রকৃত মুসলমান হওয়া যায় না, ওলীআল্লাহগণ উনাদের সংস্পর্শে আসতে হয়


অনেকেই মনে করেন এবং বলে থাকেন- আমি নিজে নিজে পবিত্র কুরআন শরীফ, পবিত্র হাদীছ শরীফ পড়েই সবকিছু শিখে নিবো। কিন্তু তাদের এ কথা আদৌ সঠিক নয়। সাধারণ দুনিয়াতেই একজন ছেলে-মেয়েকে মাদরাসা বা স্কুলের সব বই কিনে ঘরে বসিয়ে দিলে তার পক্ষে



‘রু’ইয়াতুল হিলাল’ বা বাঁকা চাঁদ বিষয়ক আলোচনা


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন- وَمَا خَلَقْتُ الْـجِنَّ وَالْاِنْسَ اِلَّا لِيَعْبُدُوْنِ. অর্থ : “আমি জিন ও ইনসানকে একমাত্র আমার ইবাদত করার জন্য সৃষ্টি করেছি।” (পবিত্র সূরা যারিয়াত শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ-



সম্মানিত বদর জিহাদে অংশশগ্রহণকারী হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম


হযরত আমির ইবনে ফুহায়রা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু। হযরত ইবনে হিশাম রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি বলেন, হযরত আমির ইবনে ফুহায়রা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বনূ আসাদের নিকট পরাধীন ছিলেন। সাইয়্যিদুনা হযরত ছিদ্দীক্বে আকবার আলাইহিস সালাম তিনি উনাকে তাদের হাত থেকে খরিদ করে মুক্ত



আপনি কি পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করতে চান ?


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “হে ঈমানদার গন! তোমরা বেশি বেশি মহান আল্লাহ পাক উনার যিকির কর এবং সকাল-সন্ধা উনার তাসবীহ পাঠ কর।” (সূরা আহযাবঃ ৪১,৪২) মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন,“সাবধান” আল্লাহ পাক উনার যিকির উনার দ্বারাই



দাবা এমন একটি খেলা যেটা ইসলাম সরাসরি নিষিদ্ধ করেছে


দাবা এমন একটি খেলা যেটা ইসলাম সরাসরি নিষিদ্ধ করেছে। এবং এর নিকৃষ্টতা এবং অপবিত্রতা সর্ম্পকেও অবহিত করা হয়েছে। অথচ বাংলাদেশের দাবাড়ুরা সে সত্য মেনে নিতে না পেরে হাদীস শরীফের বিরোধীতা করেছে। সৌদি আরব থেকে একটা ফতোয়া প্রকাশ হয়েছে যেখানে বলা হয়েছে



সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুছ ছানী মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহা-সম্মানিত বংশ মুবারক পরিচিতি


সাইয়্যিদু শাবাবি আহলিল জান্নাহ, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম হাসান বিন আলী বিন আবী তালিব আলাইহিস সালাম তিনি সম্মানিত কুরাইশ বংশের হাশেমী শাখায় তাশরীফ মুবারক আনেন। হিজরী ৩য় সনে পবিত্র শা’বান শরীফ মাস উনার ১৫ তারিখ সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুছ ছানী মিন আহলি বাইতি



আপনি জানেন কি?


(১) কোন্ দেশ সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার কথা বললেও অনুসরণ করে ইহুদী কাফিরদের? (২) কোন্ দেশ চাঁদ দেখে আরবী মাস শুরু করার কথা বললেও বাস্তবে আরবী মাস শুরু করে মনগড়া ভাবে? (৩) কোন্ দেশ সবসময় আগে চাঁদ দেখার মিথ্যা দাবি করে?



ভারতবর্ষের আত্মঘাতী মুসলমান ও তাদের দুধকলা দিয়ে শত্রু পোষার আত্মঘাতী ধারাবাহিকতা


  “বাঙালি (হিন্দু) পুরুষ ইংরেজ রাজত্বের আগে একমাত্র মুসলমান নবাবের কর্মচারী হইলে মুসলমানী পোশাক পরিত, উহা অন্দরে লইয়া যাওয়া হইত না। বাহিরে বৈঠকখানার পাশে একটা ঘর থাকিত, সেখানে চোগা-চাপকান-ইজার ছাড়িয়া পুরুষেরা ধুতি পরিয়া ভিতরের বাড়িতে প্রবেশ করিত। তাহার প্রবেশদ্বারে গঙ্গাজল ও



পাট শিল্প লোকসানী খাত হতে পারে না।বর্তমান ও আগামী বিশ্বে পাটের সম্ভাবনা উজ্জ্বল।কেবলমাত্র সদিচ্ছা, সততা ও সক্রিয়তাই পাটের সোনালী


লোকসানের ভারে ন্যুব্জ দেশের ঐহিত্যবাহী পাট শিল্পকে বন্ধ করার পরামর্শ দেয় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। গত ২ নভেম্বর-২০১৫ ইয়াওমুল ইছনাইনিল আযীম (সোমবার) মন্ত্রিসভার বৈঠকে ক্ষোভ প্রকাশ করে অর্থমন্ত্রী বলেছে, পাট খাতে বছরের পর বছর ভর্তুকি দিতে হচ্ছে; কিন্তু এ খাতের



শেভরন-নাইকো’র নিকট হতে ৫০ হাজার কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ আদায়ের দাবিতে জনগণকে সোচ্চার হতে হবে ॥


শেভরন-নাইকো’র নিকট হতে ৫০ হাজার কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ আদায়ের দাবিতে জনগণকে সোচ্চার হতে হবে ॥ এতো বিপুল পরিমাণ পাওনা আদায়ে সরকারের কোনো কথাই শোনা যায় না কেন? বাজেটেও কখনোই তার উল্লেখ থাকে না কেন? সব সরকার যুক্তরাষ্ট্রসহ আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থার কাছে