Archive for the ‘আন্তর্জাতিক’ Category

মধ্যপ্রাচ্যের বিষফোঁড়া ইসরাইলের সাথে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর গলাগলি সম্পর্ক


সৌদিআরব, বাহরাইন, আরব আমিরাত এবং মিসরের সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্যের বিষফোঁড়া ইসরাইলের যে গলাগলি সম্পর্ক চলছে, এর ফলে ফিলিস্তিনের আকাশে কেবলই কালোমেঘ ঘন হচ্ছে। সাম্প্রতি নিউইয়র্ক থেকে ইহুদিদের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল এসে বাহরাইন ঘুরে গেছে। বাহরাইনে পাওয়া সম্মান ও আতিথেয়তায় উৎফুল্ল প্রতিনিধি

নানা প্রলোভনে উত্তরাঞ্চল এবং পার্বত্যাঞ্চলের জনগোষ্ঠীকে খ্রিষ্টান বানাচ্ছে বৈদেশিক বিভিন্ন এনজিও।


বাংলাদেশে খ্রিষ্টান জনগোষ্ঠী বৃদ্ধি করে আলাদা খ্রিষ্টান রাষ্ট্র তৈরীর পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে এনজিওগুলো। বিষয়টি অদূর ভবিষ্যতে গভীর শঙ্কার। রহস্যজনক কারণে নীরব সরকার। —————- একদিকে উত্তরাঞ্চল অপরদিকে পার্বত্য এলাকাকে ঘিরে এনজিও এবং আন্তর্জাতিক খ্রিস্টান লবি খ্রিস্টীয় সংস্কৃতি, কৃষ্টি ও ধর্ম প্রচারের লক্ষ্যে

বহুজাতিক কোম্পানীর পন্য তালিকা


*ইউনিলিভারের শোষণ নীতির বেড়ার জালে পণ্য নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর তালিকা । যা বাংলাদেশের বাজারকে সয়লাব করে রেখেছে । **পণ্য সামগ্রী সমূহ তা নিম্নে তুলে ধরা হল: ১.লাক্স সাবান ২.ক্লোজআপ টুথ পেষ্ট ৩.সারফ এক্সেল ওয়াশিং পাউডার ৪.ক্লিয়ার শ্যাম্পু ৫.হুইল পাউডার ৬.ফেয়ার এণ্ড

মালানা আশরাফ আলী থানভী(ব্রিটিশ) সরকার থেকে ৬০০ রুপী মাসিক ভাতা পেত


এটা জানা গেছে যে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক সরকার মালানা আশরাফ আলী থানভীকে আরাম দিয়েছিল এবং তাকে আয়েসী জীবনযাপন করার ব্যবস্থা করেছিল। এখন কথা হলো এই আরামের, আয়েসী জীবনযাপনটা কেমন ছিল? এই আরাম দেয়ার বিষয়টা হল ব্রিটিশ সরকার আশরাফ আলী থানভীকে মাসিক ৬০০

দেওবন্দের ফতোয়া, ছবি তোলা নাজায়েজ


তারা একেক বার একেক ফতওয়া দেয়, আবার নিজেরাই ফতওয়ার বিরুদ্ধে আমল করে। কিন্তু ঢাকা রাজারবাগ শরীফ উনার সম্মানিত শায়েখ আলাইহিস সালাম তিনি প্রথমে যে ফতওয়া দিয়েছেন, এখনও সেই ফতওয়াই দেন এবং তার উপরই আমল করেন। সুবহানাল্লাহ। এ দ্বারাও প্রমাণিত হয়, তিনি

রবি ঠকের দাদা চোর ছিল


ব্যাংক লুঠ নিয়ে আজ সারা দেশ যখন তোলপাড়, আমরা বরং একটু ইতিহাস দেখে নিই। ~বাংলায় প্রথম ব্যাংক লুট করেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পিতামহ দ্বারকানাথ ঠাকুর। ১৮২৯ সালে দ্বারকানাথ ঠাকুর তৈরি করেন ইউনিয়ন ব্যাংক। সেই ব্যাংকের কর্তৃত্ব নিজের হাতে রাখার জন্য তিনি তার

মূর্তি এবং ভাস্কর্যের মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই।


প্রাণীর প্রতিকৃতি যেকোনো উদ্দেশ্যে তৈরি করা হোক না কেন, সবই মূর্তির অন্তর্ভুক্ত। মূর্তি এবং ভাস্কর্যের মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। যারা মূর্তি এবং ভাস্কর্যের মাঝে পার্থক্য করতে চায়, তারা আশাদ্দুদ দরজার জাহিল ও মূর্খ। দেশের বিভিন্ন স্থানে সরকারিভাবে অসংখ্য মূর্তি স্থাপনে একদিকে

হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি স্বয়ং নিজেই বাল্যবিবাহ করেছেন। যা মূলতঃ মহান আল্লাহ পাক উনার পবিত্র ওহী মুবারক উনার অন্তর্ভুক্ত।


কাজেই বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে বলা মানে স্বয়ং মহান আল্লাহ পাক উনার ও উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদেরই বিরুদ্ধে বলা; যা কাট্টা কুফরী। কারণ, বাল্যবিবাহ খাছ সুন্নত মুবারক। অতএব হক্কানী রব্বানী আলিম উলামাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য

পবিত্র ছলাত বা দুরূদ শরীফ পাঠ করার বেমেছাল ফযীলত ,,,,


পবিত্র দুরূদ শরীফ পাঠ করার ফযীলত সম্পর্কে হযরত আউলিয়া কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহি উনাদের ক্বওল শরীফ: (১) শাইখ আহমদ ইবনে ছাবিত আল মাগরিবী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি উনার ‘কিতাবুত তাফাক্কুর ওয়াল ইতিবার’ নামক কিতাবে লিখেন, ‘আমি পবিত্র দুরূদ শরীফ পাঠের মাধ্যমে যে সকল

What does Bangladesh really need right now?


“Bangladesh” has been a frequent word for last few years in world politics, be it the Rohingya issue or the newly discovered unthinkable amount of natural gas resource (goo.gl/49Ucmq). One way or the other, Bangladesh is going to encounter the league

আইএসকে অস্ত্র সরবরাহ করে যুক্তরাষ্ট্র: সউদী আরব


সিরিয়া ও ইরাক-ভিত্তিক সন্ত্রাসী গোষ্ঠী ‘আইএস’ যে অস্ত্রে যুদ্ধ করছে, তার প্রায় এক তৃতীয়াংশই যুক্তরাষ্ট্র ও সউদী আরবের। সিরিয়া-ইরাকের যুদ্ধক্ষেত্রে রিয়াদ-ওয়াশিংটন তাদের মদদপুষ্ট পক্ষকে এই অস্ত্র সরবরাহ করে। এভাবে হাত বদল হয়ে তা পৌঁছানো হয় সন্ত্রাসী গোষ্ঠীটির হাতে। জরিপ চালিয়ে এ

আসল সন্ত্রাসী কারা? মুসলমানরা, নাকি কাফিররা?


১. হিটলার ১ কোটি ১০ লক্ষ মানুষকে হত্যা করেছিলো। সে কিন্তু মুসলিম ছিলো না, ছিলো খ্রিস্টান। ২. জোসেফ স্টালিন ২ কোটি মানুষকে হত্যা করেছিলো। সেও মুসলমান ছিলো না। নাস্তিক দাবি করতো। ৩. মাওসেতুং দেড় থেকে ২ কোটি মানুষকে হত্যা করেছিলো। সেও