Archive for the ‘ইসলাম ও জীবন’ Category

পাথরের চেয়ে ভারী কি? আকাশের চেয়ে উচু কী?


একদিন হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাহাবিদের জিজ্ঞেস করলেন, ১.পাথরের চেয়ে ভারী কি? ২.আকাশের চেয়ে উচু কী? ৩.আগুনের চেয়ে গরম কী? ৪.বরফের চেয়ে ঠান্ডা কী? হযরত সাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুমগণ বললেন, এ সম্পর্কে আমরা জানি না, এ বিষয়ে

এক বেদুইনের ইসলাম গ্রহন!


এক বেদু্ঈন তার কাপড়ের আস্তিত্বের ভিতরে কিছু লুকিয়ে হুযুর ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার খেদমতে হাজির হলো এবং বললো, হে মুহাম্মদ! যদি আপনি বলতে পারেন যে আমার আস্তিনের ভিতর কি আছে, তাহলে আমি স্বীকার করবো যে আপনি সত্যিকার নবী। হুযুর পাক

মুহব্বত করাই হচ্ছে ঈমান


সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, শাফেউল মুজনেবীন, রহমাতুল্লিল আলামীন, হাবীবুল্লাহ হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হচ্ছেন সমস্ত কায়িনাত বা সৃষ্টি জগতের মূল উৎস। তিনি আল্লাহ পাক রব্বুল আলামীন উনার সকল নিয়ামতের উৎস। উনার সন্তুষ্টি ব্যতিত আল্লাহ পাক উনার সন্তুষ্টি কখনোই

নিয়ামতরাজী


মহান আল্লাহ পাক তিনি বলেন, “আমি আমার নেককার বান্দাগণের জন্য এমন সব নিয়ামতরাজী রেখেছি যা কোন চোখ কখনো দেখেনি, কোন কান কখনো শুনেনি, কোন মানুষ তা অন্তরে চিন্তাও করেনি।” সুবহানাল্লাহ! সর্বোপরি মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- وازلفت الجنة للمتقين

কাফির ব্যতিত, সৃষ্টিকুলের সবাই জানেন হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আল্লাহর রসূল


বনী নজারের বাগানে এক পাগলা উট কোথা হতে এসে আশ্রয় নিল। বাগানে কেউ গেলে, সেই উট তাকেই কামড় দেয়ার জন্য দৌড়ে আসতো। লোকেরা বড় সমস্যায় পড়ল এবং হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার খেদমত মুবারকে এসে সমস্ত ঘটনা আরয করলো।

শিয়ারা মুসলমান দাবী করলেও ইসলামী দৃষ্টিকোন থেকে তারা মুসলমান নয়!


কারবালার ময়দানে যখন হযরত ইমাম হুসাইন আলাইহিস সালাম তিনি ইয়াযীদ বাহিনীকে অকাট্য যুক্তির মাধ্যমে বুঝাতে চাইলেন যে,   জুলুম অত্যাচার থেকে বিরত থাকো, আমার রক্ত দ্বারা তোমাদের হাত রন্জিত করো না।আমি তোমাদের কোন ক্ষতি করিনি।আমি তো কূফাবাসীর আহবানে এসেছি। তারা যখন

যেভাবে হাতছাড়া স্বাধীন আরাকান


========== আজকের নির্যাতিত আরাকানের মুসলমানদের রয়েছে গৌরবময় অতীত। একসময় আরাকান রাজ্যের রাজা বৌদ্ধ হলেও সে মুসলমান উপাধি গ্রহণ করতো। তার মুদ্রায় ফারসি ভাষায় লেখা থাকত কালেমা শরীফ।   আরাকান রাজদরবারে কাজ করতেন অনেক বাঙালি মুসলমান। বাংলার সঙ্গে আরাকানের ছিল গভীর রাজনৈতিক

পবিত্র আশুরা শরীফ উনাকে সম্মান করায় খ্রিষ্টান ব্যক্তিকে মহান আল্লাহ পাক পবিত্র ঈমান দান করলেন এবং জান্নাত দিয়ে সম্মানিত করলেন”সুবহানাল্লাহ


আল্লাহ পাক উনি ইরশাদ করেন, তোমরা খাও, পান করো, তবে অপচয় করো না। আর হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ হয়েছে, যে ব্যক্তি আশুরা শরীফ উনার দিন তার পরিবার পরিজনের জন্য ভালো খাদ্যের ব্যবস্থা করবে মহান আল্লাহ পাক উনি তাকে এক বৎসরের

অর্থ,সম্পদ সবক্ষেত্রে সমৃদ্ধি ছিলো যে সময়ে


কাফিররাও স্বীকার করতে বাধ্য যে ১৪০০ বছর আগের যুগটিই ছিলো স্বর্ণ যুগ,সত্য ও ন্যায়ের যুগ। ইনসাফের নিদর্শন ছিল সে সভ্যতার প্রতিটি বিষয়ে। খিলাফত চলাকালীন সময়েও সাম্যই বিরাজমান ছিলো। ছিলো সমৃদ্ধি। আমীরুল মু’মিনীন,খলিফায়ে ছালিছ সাইয়্যিদুনা হযরত যুননূরাইন আলাইহিস সালাম উনার খিলাফতকালে মুসলমানগণ

আহলু বাইত শরীফ উনাদের বিরুধীতার জবাব ১০:::


১০. তোমরা কখনো পর্যন্ত ঈমানদার থাকতে পারবেনা। যতক্ষন না পর্যন্ত তোমরা তোমাদের বাবা-মা, আহলিয়া, সন্তান সন্ততি, ধন-সম্পদ ও নিজের জীবনের চাইতেও হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ও আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেকে না মহব্বত করবে। ততক্ষন পর্যন্ত তুমি পরিপূর্ণ

নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি স্বয়ং খোদা তায়ালা নন, তবে তিনি খোদা তায়ালা থেকে জুদাও নন


পবিত্র হাদীছে কুদসী শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত হয়েছে- যিনি খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক রব্বুল আলামীন তিনি ইরশাদ মুবারক করেন يا حبيبى انا وانت وما سواك خلقت لاجلك قال رسول الله صلى الله عليه وسلم يا رب انت وما انا

বালতি ছিদ্র হওয়া থেকে সাবধান…


অসাধারণ ফুটো বালতি থিওরি বাই বালতি ছিদ্র হওয়া থেকে সাবধান… . 1. আপনি আবায়াও পরিধান করেন, হিজাব ও পড়েন, কিন্তু তার সাথে মেকাপ করতে ও পারফিউম দিতেও ভুলেন না। (ফুঁটো বালতি… . 2. আপনি সুন্নাহর অনুসরণ করে দাঁড়ি রাখেন কিন্তু রাস্তায়