Archive for the ‘ইসলাম ও জীবন’ Category

ছবি তোলা, আঁকা, রাখা, দেখা হারাম- ক্বিয়ামত পর্যন্তই ‘প্রাণীর ছবি’ হারাম থাকবে…


যদি আপনি কাউকে বলেন- দ্বীন ইসলাম উনার দৃষ্টিতে ছবি তোলা, আঁকা, রাখা, দেখা হারাম; ব্যস, আপনাকে শুনতে হবে- সারাবিশ্ব জুড়েই চলছে, এমন কোনো মানুষ নেই যে এ কাজ করছে না, দেশের বড় বড় আলেমরা করছে, এটা না করলে নাগরিক সুবিধা পাওয়া

সরকারকে মুক্তিযোদ্ধাদের কবরে মুনকার-নাকীরের সুওয়াল জাওয়াবেরও ব্যবস্থা করতে হবে


বাংলাদেশ ৯৮ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত দেশ। অথচ এখানে হারাম গান-বাজনা, ভারতীয় টিভি চ্যানেল, ছবি, খেলাধুলা, বেহায়া-বেপর্দায় সয়লাব। নাউযুবিল্লাহ! এদেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমান দুনিয়াতে শুধু শান্তি চায় না। ইন্তেকালের পরও শান্তি চায়। কিন্তু ইন্তেকালের পরে কি করে শান্তি পাবে? উক্ত সব হারাম কাজ

আপনার সন্তানের কারণে আপনাকে যেন জাহান্নামে যেতে না হয়…


আপনার সন্তানকে আপনি পড়ালেখা শেখার জন্য স্কুল-কলেজে পাঠাচ্ছেন। কিন্তু সেখানে তার পাঠ্যবইগুলোতে আপত্তিকর, ইসলামবিরোধী, বিধর্মী-বিজাতীয় লেখনী সর্বোপরি ইসলাম ও মুসলিম বিরুদ্ধ, সাংঘর্ষিক লেখা দিয়েই ঠেসে দেয়া হয়েছে স্কুল-কলেজের পাঠ্যবইগুলোকে। পাঠক! এই লেখাটির শিরোনামটি এইভাবে দেয়ার কারণ হলো- আপনি হয়তো নিজে নিজে

রাষ্ট্রীয় কোষাগারের অর্থ খরচের সুস্পষ্ট জবাবদিহিতা প্রাপ্তি জনগণের মৌলিক অধিকার


সরকার দেশের কর্ণধার, পরিচালক। একটি সরকার দেশের মালিক নয়, জাতির প্রতিনিধি মাত্র। তাকে রাষ্ট্রীয় যে কোনো কাজ করতে হলে যেমন জাতিকে অবহিত করতে হবে; অনুরূপ রাষ্ট্রীয় কোষাগারের আয়-ব্যয়ের হিসাবও সুস্পষ্টভাবে দিতে হবে। সরকারের ইচ্ছা হলেই কোনো খাতে রাষ্ট্রীয় টাকা ব্যয় করতে

প্রসঙ্গঃ ‘ভিটামিন-এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর ক্যাম্পেইন: আপনার সিদ্ধান্ত কি? প্রাকৃতিক ভিটামিন খাওয়াবেন, নাকি কৃত্রিম ক্যাপসুল খাওয়াবেন?


অনেকেই ফ্রিতে ভিটামিন-এ খাওয়ানোর কথা সন্তানকে নিয়ে দৌড় দেন। দৌড় দেয়ার আগে এ সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন। এরপরও যদি আপনার ভিটামিন-এ ক্যপসুলের ওই ফ্রি ক্যাপসুল সন্তানকে খাওয়াতে মন চায়, তাইলে সেটা আপনার ব্যাপার। পয়েন্ট-১: আপনার কি জানা আছে- ভিটামিন খাওয়ানোর এই

যারা পবিত্র মসজিদ উচ্ছেদ করবে তথা ভাঙ্গবে বা ভাঙ্গার কাজে সংশ্লিষ্ট থাকবে তাদের প্রত্যেককেই আবরাহার চেয়ে কঠিন পরিণতি ভোগ করতে হবে


যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- وَمَنْ اَظْلَمُ مِـمَّنْ مَّنَعَ مَسٰجِدَ اللهِ اَنْ يُّذْكَرَ فِيْهَا اسْـمُهٗ وَسَعٰى فِـىْ خَرَابِـهَا اُولٰٓئِكَ مَا كَانَ لَـهُمْ اَنْ يَّدْخُلُوْهَا اِلَّا خَآئِفِيْنَ لَـهُمْ فِـى الدُّنْيَا خِزْىٌ وَّلَـهُمْ فِى الْاٰخِرَةِ عَذَابٌ عَظِيْمٌ.

পবিত্র মসজিদ উচ্ছেদ বা ভাঙার ষড়যন্ত্রকারীরা দ্বীন ইসলাম উনার শত্রু


বর্তমানে ইহুদী-খ্রিস্টান, কাফির-মুশরিক ও তাদের এজেন্ট মুনাফিক্বরা একাত্ম হয়েছে পৃথিবীর বুক থেকে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম ও সম্মানিত মুসলমানদের নাম নিশানা মুছে দেয়ার জন্য। না‘ঊযুবিল্লাহ! তাই তারা তাদের সে অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছার জন্য একের পর এক সর্বঘৃণ্য ও সর্বনিকৃষ্ট ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে

সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার প্রচার-প্রসারে পবিত্র বাইতুল মাল উনার গুরুত্ব ও তাৎপর্য


ভূমিকা: মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন- يَا أَيُّهَا النَّاسُ قَدْ جَاءَتْكُم مَّوْعِظَةٌ مِّن رَّبِّكُمْ وَشِفَاءٌ لِّمَا فِي الصُّدُوْرِ وَهُدًى وَّرَحْـمَةٌ لِّلْمُؤْمِنِيْنَ. قُلْ بِفَضْلِ اللهِ وَبِرَحْـمَتِهِ فَبِذٰلِكَ فَلْيَفْرَحُوْا هُوَ خَيْرٌ مِّـمَّا يَجْمَعُوْنَ. অর্থ : “নিশ্চয়ই

মহান আল্লাহ পাক উনাকে এবং উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাবীব, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে হাছিল করার উসীলা মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনারা


মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনারা হচ্ছেন মহান আল্লাহ পাক উনাকে এবং উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাবীব, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে অর্থাৎ উনাদেরকে হাছিল করার একমাত্র উসীলা বা মাধ্যম, উনারা ব্যতীত

মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে সম্মানিত মুহব্বত মুবারক করার এবং উনাদের সম্মানিত নিসবত মুবারক হাছিল করার বেমেছাল ফযীলত মুবারক


যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, وَتَـحْسَبُهُمْ اَيْقَاظًا وَّهُمْ رُقُوْدٌ وَّنُقَلِّبُهُمْ ذَاتَ الْيَمِيْـنِ وَذَاتَ الشِّمَالِ وَكَلْبُهُمْ بَاسِطٌ ذِرَاعَيْهِ بِالْوَصِيْدِ لَوِ اطَّلَعْتَ عَلَيْهِمْ لَوَلَّيْتَ مِنْهُمْ فِرَارًا وَّلَمُلِئْتَ مِنْهُمْ رُعْبًا. অর্থ: “(আপনি সমস্ত জিন-ইনসান, বান্দা-বান্দী, উম্মতদেরকে বলে দিন,)

সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার অবমাননাকারীদের প্রতি বিখ্যাত কয়েকজন খলীফা উনাদের ফায়ছালা


আমীরে শো’বাহ হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার ফায়ছালা হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি জানতে পারলেন যে, বনু হানিফার এক মসজিদে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র রিসালাত মুবারক অস্বীকারকারী ও

এক মহান ব্যক্তিত্ব মুবারক এলেন পবিত্র ৯ই জুমাদাল ঊলা শরীফ-এ


পবিত্র ৯ই জুমাদাল ঊলা শরীফ তারিখে যিনি তাশরীফ নিলেন তিনি তো আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত হাদিউল উমাম আলাইহিস সালাম। উনি একজন উচ্চ মর্যাদাসম্পন্ন মহাপুরুষ। মুজাদ্দিদে আ‘যম আলাইহিস সালাম উনার দামাদ হতে পারে এমন যোগ্যতা চেয়ে পাওয়া যায় না। এটা মহান আল্লাহ