Archive for the ‘ইসলাম ও জীবন’ Category

আক্বীদা শুদ্ধ করার মাস হচ্ছে ‘পবিত্র ছফর শরীফ মাস’


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘হে ঈমানদাররা! তোমরা ঈমান আনো। অর্থাৎ পবিত্র আক্বীদা উনাকে বিশুদ্ধ করো।’ সুবহানাল্লাহ! পবিত্র আক্বীদা শুদ্ধ করার মাস হচ্ছে ‘পবিত্র ছফর শরীফ মাস’। সুবহানাল্লাহ! যার আক্বীদা শুদ্ধ সেই মু’মিন বা মুসলমান। আর যার আক্বীদা শুদ্ধ

যে ব্যক্তি নিজেকে মুসলমান দাবি করবে আবার পূজার শুভেচ্ছাও দিবে সে কিন্তু মুশরিক হয়ে যাবে


যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই মুশরিকরা নাপাক।” (পবিত্র সূরা তওবা শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ-২৮) “তোমরা ছবি বা মুর্তির অপবিত্রতা বেঁচে থাকো এবং মিথ্যা কথা বা (গান-বাজনা, নাটক-সিনেমা, কাল্পনিক, মনগড়া-বানোয়াটি

অভিশপ্ত ইয়াজীদ লানতুল্লাহি আলাইহি সম্পর্কে পূর্ব হতেই হযরত নবী-রাসূল আলাইহিমুস সালামগণ অবগত ছিলেন


কারবালা প্রান্তরে ঘটে যাওয়া মর্মান্তিক ঘটনা ও সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুছ ছালিস মিন আহলে বাইতি রাসূলাল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার শহীদকারী ইয়াজীদ লানতুল্লাহি আলাইহি সম্পর্কে পূর্ব হতেই হযরত নবী-রাসূল আলাইহিমুস সালামগণ অবগত ছিলেন… ***হযরত আদম শফীউল্লাহ আলাইহিস সালাম একটি রেওয়ায়েতে বর্ণিত

নামাযে যতটুকু খুশু-খুজু প্রয়োজন !


বান্দা নামাজ পড়ে অথচ তা থেকে তার জন্য ছয় ভাগে এক ও দশ ভাগের এক অংশও লিখিত হয় না। কেবল ততটুকুই লেখা হয়,যতটুকু সে বুঝে শুনে পড়ে। -নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম। যে ব্যক্তি খুশু সহকারে নামাজ

বিষয়: ক্বাযা নামায 


সম্মানিত শরীয়ত অনুযায়ী প্রত্যেক ফরয ও ওয়াজিব নামাযের জন্য সময় নির্দিষ্ট আছে। সেই নির্দিষ্ট সময়ে নামায আদায় না করে পরে সেই নামায আদায় করাকে ক্বাযা নামায বলা হয়। বিশেষ কোন কারণ ব্যতীত ফরয বা ওয়াজিব নামায নির্দিষ্ট সময়ে আদায় না করা

সর্বকালের সর্বযুগের সর্বশ্রেষ্ঠ মুজাদ্দিদ, সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম


মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালাম পাক উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন- وَلِلّٰـهِ الْعِزَّةُ وَلِرَسُوْلِهٖ وَلِلْمُؤْمِنِيْنَ وَلٰكِنَّ الْمُنَافِقِيْنَ لَا يَعْلَمُوْنَ অর্থ: “সমস্ত ইজ্জত-সম্মানের অধিকারী মহান আল্লাহ তিনি এবং উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি, আর

যারা কামিল শায়েখ বা মুর্শিদ ক্বিবলা উনার নিকট বাইয়াত হয় না, তারা পথভ্রষ্ট।


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “যে ব্যক্তি গোমরাহীর মধ্যে দৃঢ় থাকে, সে তার জন্য কোনো ওলীয়ে মুর্শিদ (কামিল শায়েখ) পাবে না।” অর্থাৎ যারা কামিল শায়েখ বা মুর্শিদ ক্বিবলা উনার নিকট বাইয়াত হয় না, তারা পথভ্রষ্ট। কাজেই, সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত

আজ সুমহান ঐতিহাসিক মহা পবিত্র আশূরা মিনাল মুহররমুল হারাম শরীফ উনার সম্মানিত দিন। সুবহানাল্লাহ!


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘আমার হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করো আমার সন্তুষ্টি মুবারক লাভের জন্য।’ সুবহানাল্লাহ! আজ সুমহান ঐতিহাসিক মহা পবিত্র আশূরা মিনাল মুহররমুল হারাম শরীফ উনার সম্মানিত

কারবালার হৃদয় বিদারক ঘটনার সাথে সম্পৃক্তরা কঠিন খোদায়ী গযবে পতিত


সাইয়্যিদু শাবাবি আহলিল জান্নাহ, ইমামুছ ছালিছ মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সালাম উনাকে কারবালায় শহীদ করার ব্যপারে হযরত উলামায়ে কিরামগণ উনারা ইজমা করেছেন যে, বিশ্বের ইতিহাসে সবচেয়ে আশ্চর্যজনক, নির্মম, বেদনাদায়ক এবং হৃদয়বিদারক বিষয় হলো কারবালার ঘটনা। সাইয়্যিদুনা হযরত

পবিত্র আশূরা মিনাল মুহররমুল হারাম শরীফ উনার কতিপয় বৈশিষ্ট্য


১। পবিত্র মুহররমুল হারাম শরীফ মাসটি চারটি হারাম বা পবিত্র মাসের মধ্যে অন্যতম মাস। ২। এ মাসটি বিশেষভাবে সম্মানিত । ৩। পবিত্র আশূরা শরীফ উনার দিনটি পবিত্র মুহররমুল হারাম শরীফ মাসের দশ তারিখ বলে এর নাম পবিত্র আশূরা শরীফ হয়েছে। ৪।

নিজের যাকাত ফিতরা নিজেরাই বিতরণ করাটা শরীয়ত সম্মত নয়


মাসয়ালাটি শুনে নতুন মনে হতে পারে কিন্তু এটাই সত্য ও সঠিক মাসয়ালা যে, নিজের যাকাত ফিতরা নিজেরাই বিতরণ করাটা শরীয়ত সম্মত নয়। কেবল যাকাত-ফিতরার ক্ষেত্রেই নয় অনেক মাসয়ালাই মানুষ মনগড়াভাবে এবং সম্মানিত শরীয়ত উনার খিলাফ আমল করে থাকে। যেমন বাজার থেকে

উম্মুহাতুল মুমিনীন উনা‌দের সম্প‌র্কে জ্ঞান অর্জন করা সমস্ত মুসলমান‌দের জন্য ফরয ওয়া‌জিব


আমা‌দের প্রিয় নবী‌জি উনার সম্মা‌নিতা আজওয়াজুন মুতাহহারাতুন তথা সম্মা‌নিতা জীবন সঙ্গী‌নি উনারা হ‌লেন উম্মুহাতুল মু‌মিনীন তথা সমস্ত কা‌য়িনা‌তের মাতা। উনারা সমস্ত কা‌য়িনাতবাসীর জন্য উসওয়াতুন হাসনাহ তথা আর্দশ মুবারক। অথচ উনা‌দের সম্প‌র্কে কয়জন মুসলমান বা জা‌নে? উনা‌দের‌কে মহান আল্লাহপাক কত সম্মা‌নিত ক‌রে‌ছেন