Archive for the ‘ইসলাম ও জীবন’ Category

সুমহান মহাপবিত্র ২রা রজবুল হারাম শরীফ-


মহান আল্লাহ পাক ইরশাদ করেছেন- “(হে হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!) তাদেরকে (বান্দা-বান্দীদেরকে) মহান আল্লাহ পাকের বিশেষ বিশেষ দিন ও রাতগুলো স্মরণ করিয়ে দিন। (যাতে তারা সেসব দিন ও রাত্রগুলো উদযাপন বা পালন করতে পারে।)” সুবহানাল্লাহ! সুমহান মহাপবিত্র ২রা রজবুল হারাম

সর্বত্র ‘পবিত্র দ্বীন ইসলাম’কেই প্রাধান্য দিতে হবে


মহান আল্লাহ পাক ইরশাদ করেন, ‘হে ঈমানদারগণ! তোমরা পবিত্র দ্বীন ইসলামের মধ্যে পরিপূর্ণরূপে দাখিল হয়ে যাও। আর শয়তানের পদাঙ্ক অনুসরণ করো না। নিশ্চয়ই শয়তান তোমাদের প্রকাশ্য শত্রু।’ বাংলাদেশের ৯৮ ভাগ লোক মুসলমান এবং রাষ্ট্রধর্ম হচ্ছেন ‘পবিত্র ইসলাম’। পাশাপাশি এদেশের সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ

আত্মহত্যা মহাপাপ , মুক্তির একমাত্র পথ আত্মহত্যা নয় !


*স্বামী-স্ত্রীর একটু আনমন হলে দৌড়ে যায় ফাসি দিতে। এ নিয়ে ৪ বার হলো কোশেশ, প্রতিবারই হায়াতের জোড়ে বেচেঁ গেছে। এবার জিব প্রায় বের হয়েই গিয়েছিল , সৌভাগ্যক্রমে এবারও বেচেঁ গেছে। বলা হয়ে থাকে , কোন ব্যক্তি যদি জিদের বশে বারবার ফাসিঁর

মসজিদে নববী বা রওযা শরীফ-উনাদের ছবিযুক্ত জায়নামাযে নামায পড়া হারাম ও নাজায়িয।


(১) মসজিদে নববী বা রওযা শরীফ-উনাদের ছবিযুক্ত জায়নামাযে নামায পড়া হারাম ও নাজায়িয। আর আমভাবে কা’বা শরীফ-উনাদের ছবিযুক্ত জায়নামাযে নামায পড়া মাকরূহ তাহরীমী এবং খাছভাবে হারাম ও নাজায়িয। অতঃপর আমভাবে নকশা খচিত জায়নামাযে নামায পড়া সুন্নতের খেলাফ বা মাকরূহ এবং হুযূরী

সেলাই বিহীন লুঙ্গির দলিল


একটি দলিল সমৃদ্ধ বিশ্লেষণ “”””‘””””””‘”””””‘”” বিষয়ঃ– ♦♦♦♦♦♦ সিলাই বিহীন লুঙ্গী পরিধান করা খাছ সুন্নত সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সর্বদা ﺍﺯﺍﺭ (ইযার ) বা সেলাই বিহীন লুঙ্গী মুবারক পরিধান করেছেন। এবং হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু

“নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক তিনি মানুষের প্রতি অত্যন্ত স্নেহশীল এবং অতীব দয়াময়।”


“নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক তিনি মানুষের প্রতি অত্যন্ত স্নেহশীল এবং অতীব দয়াময়।” নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি একজন মহিলা কয়েদিকে দেখলেন, সে তার হারানো শিশুকে পাগলের ন্যায় খুঁজে ফিরছে। যখন সে শিশুকে পেল না তখন সে

“নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক উনার রহমত মুহসিনীন আওলিয়ায়ে কিরাম উনাদের নিকটে রয়েছে।”


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- “মহান আল্লাহ পাক উনার রহমত ব্যতীত কোন বান্দা সম্মানিত জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবেনা। ” (বায়হাক্বী শরীফ, মিশকাত শরীফ) অর্থাৎ মহান আল্লাহ পাক উনার রহমত মুবারক ব্যতীত কোন বান্দা-বান্দীর

“বান্দার উচিত সে যেন তার নিজের জন্য নিজ থেকে পাথেয় সংগ্রহ করে।”


“অবশ্যই মুমীন বান্দা দু’টি ভয়ের মধ্যে থাকবে। একটি হচ্ছে, তার অতীতে কি করেছে সে বিষয়ে বান্দা জানে না যে মহান আল্লাহ পাক তিনি এর কি ফায়সালা করেছেন। অপরটি হচ্ছে, ভবিষ্যতে কি হবে এবং মহান আল্লাহ পাক তিনি কি ফায়সালা করবেন সে

নামায ক্বাযা আদায় করার শাস্তি।


সম্মানিত শরীয়ত উনার দৃষ্টিতে প্রত্যেক মুসলমানের জন্য ফরয হচ্ছে- পাঁচ ওয়াক্ত নামায যথাযথভাবে আদায় করা। আর যে ব্যক্তি এক ওয়াক্ত নামায ক্বাযা আদায় করবে অর্থাৎ সময়মত পড়লো না- পরে ক্বাযা করে নিলো- তবুও তাকে আশি হোক্ববা অর্থাৎ দুই কোটি আটাশি লক্ষ

সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার বিশেষ বিশেষ দিনগুলো- তথা সম্মানিত আইয়্যামুল্লাহ শরীফ


১ মুহররমুল হারাম: খলীফায়ে ছালিছ, আমীরুল মু’মিনীন, খলীফাতুল মুসলিমীন, সাইয়্যিদুনা হযরত যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম উনার সম্মানিত খিলাফত মুবারক উনার দায়িত্ব গ্রহণের সুমহান দিবস।: সুমহান ঐতিহাসিক পবিত্র পহেলা মুহররমুল হারাম শরীফ- খলীফায়ে ছালিছ, আমীরুল মু’মিনীন সাইয়্যিদুনা হযরত যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম

ইসলাম প্রচারের নামে অশ্লীলতা প্রচার করছেন না তো ?


কিছু কিছু মানুষের টাইমলাইনে ঢুকলে আপনি ভয় পেয়ে যাবেন। পুড়ো টাইমলাইন ইসলামীক পোস্ট সমৃদ্ধ, নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের মশহূর ঘটনায় পরিপূর্ণ, প্রতিটি ঘটনার সাথে সাথে রয়েছে উনাদের কাল্পনিক ছবিও। ছবি দেখে বুঝার উপায় নেই, পোস্টের মাধ্যমে কি ইসলাম প্রচার হচ্ছে নাকি

তাজিমী সিজদাহ করা সম্পুর্ণরূপে হারাম। নাউজুবিল্লাহ!


মহান আল্লাহ পাক ব্যতীত অন্য কাউকে সিজদা করা সম্পূর্ণ হারাম ও নাজায়েয এবং প্রকাশ্য শিরক-এর অন্তর্ভূক্ত। চাই সিজদায়ে তা’যীমী হোক অথবা সিজদায়ে উবূদিয়া। অথবা তাহিয়্যার (পবিত্রতার) জন্যই সিজদা করা হোক না কেন। অর্থাৎ মহান আল্লাহ পাক ব্যতীত অন্য কাউকে ইবাদতের উদ্দেশ্যে