Archive for the ‘ইসলাম ও জীবন’ Category

সন্তানদের জন্য শিক্ষা মূলক বিষয়


সম্মানীত মুসলমান উনাদের জন্য ফরজ-ওয়াজীব হচ্ছে নিম্ন লিখিত বিষয় গুলো তাদের সন্তানদেরকে শিক্ষা দেওয়া । ১.নুরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লহু আলাইহি ওয়া ছাল্লাম উনার মুহব্বত মুবারক শিক্ষা দিতে হবে। ২.আহলু বাইত শরীফ উনার বিষয় গুলো শিক্ষা দিতে হবে। ৩.সম্মানীত কালামুল্লাহ শরীফ শিক্ষা

সম্মানীত বাল্য বিবাহ করা খাছ সুন্নত


***সম্মানীত বাল্য বিবাহ করা খাছ সুন্নত*** ইসলামী শরীয়ত অনুযায়ী বাল্যবিবাহ করা খাছ সুন্নত।যে কোন মুসলামান ব্যক্তি যে কোন সময় তার প্রয়োজনে বিবাহ করতে পারে।এখানে বয়স কোন শর্ত নয় । যারা বাল্য বিবাহ উনার বিরুদ্ধে বলে তাদেরকে দলিল দিতে হবে ,,তারা কেন

নবাজাতক শিশুকে তাহনীক করানো সুন্নত। সুবহানাল্লাহ!


  باب تَسْمِيَةِ الْمَوْلُودِ غَدَاةَ يُولَدُ، لِمَنْ لَمْ يَعُقَّ عَنْهُ، وَتَحْنِيكِهِ حَدَّثَنِي إِسْحَاقُ بْنُ نَصْرٍ، حَدَّثَنَا أَبُو أُسَامَةَ، قَالَ حَدَّثَنِي بُرَيْدٌ، عَنْ أَبِي بُرْدَةَ، عَنْ أَبِي مُوسَى ـ رضى الله عنه ـ قَالَ وُلِدَ لِي غُلاَمٌ، فَأَتَيْتُ بِهِ النَّبِيَّ صلى الله

হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি স্বয়ং নিজেই বাল্যবিবাহ করেছেন। যা মূলতঃ মহান আল্লাহ পাক উনার পবিত্র ওহী মুবারক উনার অন্তর্ভুক্ত।


কাজেই বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে বলা মানে স্বয়ং মহান আল্লাহ পাক উনার ও উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদেরই বিরুদ্ধে বলা; যা কাট্টা কুফরী। কারণ, বাল্যবিবাহ খাছ সুন্নত মুবারক। অতএব হক্কানী রব্বানী আলিম উলামাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য

ভারতের সম্রাট চেরামান পেরুমল যে কারণে ইসলাম গ্রহন করেছিলেন !


ভারতের কেরালা প্রদেশের তৎকালীন ২৬ বছরের সম্রাট চেরামান পেরুমল হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলােইহি ওয়া সাল্লাম কর্তৃক আকাশে চাঁদ দ্বিখন্ডিত হবার মুজিযা শরীফটি স্বচক্ষে দেখেছিলেন। মালাবারে আগত আরব বনিকদের থেকে তিনি নবীজী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার খবর পান এবং মক্কা শরীফের

‘ভ্যালেন্টাইন ডে’ ঈমান ধ্বংসের একটি পাঁয়তারার নাম


সংবাদ মাধ্যমগুলো খ্রিস্টান, মুশরিকদের অনুষ্ঠানগুলোকে বাংলাদেশেও প্রচার-প্রসারে উঠেপড়ে লেগেছে। কথিত ‘ভ্যালেন্টাইন ডে’ হচ্ছে সে রকম নোংরা অপসংস্কৃতির আরেকটি নাম। এদেশে তথাকথিত ভালোবাসা দিবস প্রচলনকারী হলো- কাট্টা ইসলামবিদ্বেষী ও নাস্তিক ‘যায়যায়দিন’ পত্রিকার প্রাক্তন মালিক শফিক রেহমান। সে ‘যায়যায়দিন পত্রিকার মাধ্যমে ১৯৯৩ সালে

জানেন কি? আইয়্যামিল্লাহ দিনগুলো পালনকারীকে আল্লাহপাক কুদরতীভাবে বিপদ থেকে হেফাজত করে থাকেন


আল্লাহপাক সব কিছুর একচ্ছত্র অধিপতি, মালিক। তারপরেও কিছু দিন, কাল, স্থান, মাস, বছর এবং বিষয়কে মহান আল্লাহ পাক তিনি নিজের জন্য খাছ করেছেন এবং আইয়্যামিল্লাহ পালনকারী ব্যক্তিকে আল্লাহপাক অবশ্যই সমস্ত বিপদ থেকে কুদরতিভাবে হেফাজত করে থাকেন। সেদিন রাতে মামা আর আমি

পবিত্র ছলাত বা দুরূদ শরীফ পাঠ করার বেমেছাল ফযীলত ,,,,


পবিত্র দুরূদ শরীফ পাঠ করার ফযীলত সম্পর্কে হযরত আউলিয়া কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহি উনাদের ক্বওল শরীফ: (১) শাইখ আহমদ ইবনে ছাবিত আল মাগরিবী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি উনার ‘কিতাবুত তাফাক্কুর ওয়াল ইতিবার’ নামক কিতাবে লিখেন, ‘আমি পবিত্র দুরূদ শরীফ পাঠের মাধ্যমে যে সকল

হেদায়াত এমন একটি পবিত্র নিয়ামত যা, না চাইলে কাউকে দেয়া হয় না


  হেদায়াত এমন একটি পবিত্র নিয়ামত যা, না চাইলে কাউকে দেয়া হয় না।যারা সৎ পথের সন্ধানের চেষ্টা করবে, তাদেরকে সৎ পথের সন্ধান দেয়াই আল্লাহপাকের নীতি। হেদায়েত চায় নি বা ছিল না বলেই হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুজিযা শরীফ

আমল করেই জান্নাতে যেতে চান? তাহলে আপনার জন্য রয়েছে দুঃসংবাদ !


এক ব্যক্তি ২০ বছর একস্থানে নামায পড়ে কিছুদিন আগে জানতে পারলো তার বাসায় ক্বিবলা নির্ধারণ ভুল ।এক্ষেত্রে তার ২০ বছরের আমলের বদলা কি হবে ? এক্ষেত্রে তার কি-বা উপায় থাকতে পারে আল্লাহর রহমতের উপর নির্ভর ব্যতিত? অথচ মানুষ আমল করেই জান্নাতে

আমলে নয়, আক্বীদার বিশুদ্ধতা ও আল্লহ’র রহমতে জান্নাত মিলে


এক ব্যক্তি ২০ বছর একস্থানে নামায পড়ে কিছুদিন আগে জানতে পারলো তার বাসায় ক্বিবলা নির্ধারণ ভুল ।এক্ষেত্রে তার ২০ বছরের আমলের বদলা কি ? এক্ষেত্রে তার কি উপায় থাকতে পারে আল্লাহর রহমতের উপর নির্ভর ব্যতিত। অথচ মানুষ আমল করেই জান্নাতে চলে

দান ছদকা করলে হায়াত বৃদ্ধি পায় !


একবার হযরত জিবরীল আলাইহিস সালাম তিনি হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার খিদমত মুবারকে উপস্থিত হয়ে বললেন, ইয়া রসূলাল্লাহ ইয়া হাবীবাল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ! অমুক সাহাবী উনার হায়াত মুবারক আর একদিন আছে, অত:পর হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি