Archive for the ‘খবর’ Category

কে বেশি শক্তিশালী: সরকার নাকি সিন্ডিকেট?


সরকার নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্যের আমদানি শুল্ক হ্রাস করলেও খাদ্যদ্রব্যের মূল্য কমেছে এমন নজির বাংলাদেশে নেই। বাংলাদেশে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির কারণ জানতে, একটি বিশেষ গবেষণার জরিপে উল্লেখ করা হয়েছে যে, বাংলাদেশে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির মূল কারণ সিন্ডিকেট ও মূল্য নিয়ন্ত্রণে সরকারের ব্যর্থতা এবং রাজনীতিবিদদের দুর্নীতি।

বিকেন্দ্রীকরণই একমাত্র সমাধান 


ঢাকায় চাকার গতি ১০ বছর আগে ছিল ঘণ্টায় ২১ কিলোমিটার, আর বর্তমানে তা প্রায় ৪ কিলোমিটারে নেমে আসছে। মানুষের হাঁটার গতির মান ঘণ্টায় গড়ে পাঁচ কিলোমিটারের মতো। এর মানে কী? গাড়িগুলো কি হেঁটে যাচ্ছে। ‘ঘোড়ায় চড়িয়া মর্দ হাঁটিয়া চলিল’ দশাই কি

ভারতের মলমিশ্রিত নোংরা পানি ঢুকছে বাংলাদেশে, দুর্গন্ধে পরিবেশ বিপর্যয়


  ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের রাজধানী আগরতলা থেকে সুয়ারেজের নোংরা পানি বাংলাদেশের প্রবেশ করছে। এতে শুধু সুয়ারেজ লাইনের পানি নয়, আছে আগরতলার ইন্দিরা গান্ধী মেমোরিয়াল হাসপাতাল, ডাইং কারখানা, চামড়া কারখানা ও মেলামাইন কারখানার বিষাক্ত দুর্গন্ধযুক্ত বর্জ্য। যে খালের মাধ্যমে এই দুষিত পানি

প্রসঙ্গ: সীমান্তে সন্ত্রাসী বিএসএফ কর্তৃক বাংলাদেশী হত্যা 


ভারতের সীমান্ত বাহিনী হানাদার বিএসএফ বাংলাদেশ সীমান্তে অনেক দিন ধরে বাংলাদেশীদের উপর গুলি চালিয়ে আসছে; যাতে নিহত হয়েছেন বহু বাংলাদেশী। এমন কোনো দিন নেই যেদিন হানাদার বিএসএফ সীমান্তে বাংলাদেশীদের উপর নির্যাতন চালায় না। কিন্তু কি সরকার, কি জনগণ কেউ-ই প্রতিবাদ জানায়

উন্নয়নের কথা বলে পবিত্র মসজিদগুলো ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে! নাউযুবিল্লাহ!


পবিত্র মসজিদ হচ্ছে মহান আল্লাহ পাক উনার ঘর। সম্মানিত মুসলমানগণের ইবাদত- বন্দেগীর স্থান। বাংলাদেশ ৯৮ ভাগ মুসলমানের দেশ। সঙ্গতকারণে অতিব প্রয়োজনে বিভিন্ন স্থানে গড়ে উঠেছে পবিত্র মসজিদসমূহ। প্রতিটি এলাকার মুসল্লিগণের অর্থে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এসব পবিত্র মসজিদ। অথচ নানা অজুহাত দাঁড় করিয়ে

এসব অপকর্ম চললে তাহলেতো চারুকলা ইন্সটিটিউট বন্ধ করে দেয়া উচিত


চারুকলা ইন্সটিটিউট। ৯৮ ভাগ মুসলিম অধ্যুষিত দেশের মুসলমানের টাকায় পরিচালিত এ প্রতিষ্ঠানের মূল কাজ কি? মূল কাজ হলো- বাঙালি মুসলমানদের তাহযীব-তমাদ্দুন (মুসলিম সংস্কৃতি) তুলে ধরা। কিন্তু বাস্তব প্রেক্ষাপটে আমরা কী দেখতে পাই? চারুকলায় এবার মহাধূমধামে আয়োজিত হয়েছে হোলি পূজা। আয়োজকদের ভাষায়-

প্রথম আলোর কাঁধ থেকে শয়তান কি কখনো নামবে না?


সুযোগ পেলেই ইসলাম বিদ্বেষী পরিচয়টা দিতে ভুল করেনা। দূর পরবাস =>আমেরিকা সেকশনে “বান্ধবী বনাম বউ ” প্রবন্ধে পবিত্র হাদীছ শরীফ নিয়ে কটাক্ষ করে। মূল লিংকঃhttp://archive.is/qMNA8 পরবর্তীতে অনেক পাঠকের প্রতিবাদে তা ফেসবুক থেকে ডিলিট করে দেয় এবং মূল লিংক থেকে এডিট করে

চাকরিক্ষেত্রে ভারতীয়; এ কেমন দেশপ্রেম? 


এটা এখন ওপেন সিক্রেট খবর যে, বাংলাদেশে নামে-বেনামে, বৈধ-অবৈধভাবে লাখ লাখ ভারতীয় অবস্থান করছে। তারা বিভিন্নভাবে নিজেদের দেশে প্রায় হাজার হাজার মিলিয়ন ডলার আমাদের দেশ থেকে পাচার করছে। ভারতের রেমিট্যান্স উৎসের শীর্ষ পাঁচে রয়েছে বাংলাদেশ। এই সংখ্যা শুধু সরকারি হিসাবে। কিন্তু

বিজাতীয় পন্থায় দ্বীন ইসলাম কায়িম করার অলীক স্বপ্ন 


ক্ষমতালোভী ধর্মব্যবসায়ী উলামায়ে ‘সূ’রা গণতন্ত্র করে। তাদের যুক্তি হচ্ছে- গণতন্ত্রের মাধ্যমে ক্ষমতায় গিয়ে তারা সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার বিধিবিধান জারি করবে। তারা হারাম নারী নেতৃত্ব মেনে থাকে। এক্ষেত্রে তারা ধোঁকাপূর্ণভাবে বলে থাকে- পবিত্র দ্বীন ইসলাম কায়িমের জন্য সাময়িক সময়ের জন্য এটা

ঢাকার বিকেন্দ্রীকরণের বিকল্প নেই


দেশের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, প্রশাসন, বিচার ব্যবস্থা, ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সকল ব্যবস্থা গড়ে উঠেছে ঢাকাকে কেন্দ্র করে। এ অবস্থায় ঢাকা পরিণত হয়েছে দেশবাসীর প্রধান গন্তব্যস্থলে। ঢাকা: দেশের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, প্রশাসন, বিচার ব্যবস্থা, ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সকল ব্যবস্থা গড়ে উঠেছে ঢাকাকে কেন্দ্র করে। এ অবস্থায় ঢাকা পরিণত

পানির জন্য ভারতের দরকার নেই, নদী ড্রেজিংয়েই পর্যাপ্ত পানির যোগান দেয়া সম্ভব


বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ। প্রতিবছর শুষ্ক মৌসুমে ভারত কৃত্রিম বাঁধ সৃষ্টি করে আমাদের নদীগুলো বালুচরে পরিণত করছে। এর ফলে আমাদের ফসল-ফলাদী ব্যাপকভাবে খরায় আক্রান্ত হয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। আসলে পানির জন্য ভারতের দ্বারস্থ হওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই। আমাদের নদীগুলো ১০০-১৫০ হাত গভীর করা

বাংলার বুকে নতুন ইসরাইল সৃষ্টির পাঁয়তারা। আলাদা জুম্মল্যান্ড বানানোর গভীর ষড়যন্ত্র। তৈরি করছে আলাদা মানচিত্র ও নিজস্ব মুদ্রা।


পার্বত্য চট্টগ্রাম বাংলাদেশের এক অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ। ব্রিটিশ হিল ম্যানুয়েল এ্যাক্ট-১৯০০ কিংবা উপজাতিদের প্রথাগত ভূমি অধিকারের ধুয়া তুলে কতিপয় রামপন্থী ও বামপন্থী নেতা এবং তাদের বিদেশী ত্রাতারা আবারো পার্বত্য চট্টগ্রাম সমস্যাকে নতুনভাবে তাঁতিয়ে তুলছে। ১৯৪৭ সালের পাকিস্তান-ভারত বিভক্তির পর পার্বত্য চট্টগ্রাম তৎকালীন