Archive for the ‘প্রতিবাদ’ Category

বিশ্বের বৃহত্তম শ্রমশক্তির দেশ বাংলাদেশ এখন গুরুত্বহীন খেলাধুলায় আসক্ত


বাংলাদেশের বিশাল জনসম্পদের কারণে বিশ্বে এখন এ দেশ অন্যতম বৃহত্তম শ্রমশক্তির দেশ হিসেবে পরিচিত। খোদায়ী রহমতে পরিপূর্ণ এ বিশাল জনশক্তি কখনো হ্রাস পায়নি; বরং দিনে দিনে বৃদ্ধি পাচ্ছে। বাংলাদেশে প্রতিবছর ক্রমবর্ধমান হারে শ্রমশক্তি বৃদ্ধি পাচ্ছে। বলাবাহুল্য, এ বিশাল কর্মক্ষম জনগোষ্ঠীর হাতেই

অপারেটরদের বিজ্ঞাপনী এসএমএস এবং ফোনকল থেকে মুক্তি চাই


প্রায় ২০ কোটি জনসংখ্যার বাংলাদেশে মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১৫ কোটি ছাড়িয়েছে। যেহেতু একবার ব্যবহার শুরু করে কেউ মোবাইল ফোন ব্যবহার বন্ধ করে দেয় না, সেহেতু মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা কখনো কমে না, বরং প্রতিদিনই বাড়ছে এ সংখ্যা।   ইদানীং আমাদের

প্রসঙ্গ: মেট্রোরেল


মেট্রোরেলের ফলাফল আর যাই হোক না কেন, এতে অন্ততঃ যানজট কমবে না বরং দ্বিগুন হতে বাধ্য। অন্য সব কারণ বাদ দিয়ে শুধু একটা কারনই বিবেচনা করা হোক। সেটা হচ্ছে, যে ষ্টেশনগুলোতে রেল থামবে সেখান থেকে যাত্রীদের গন্তব্য স্থলে যাওয়ার বা আসার

জুতা চোর তারাই যারা ৮ রাকায়াত তারাবি পড়ে পবিত্র মসজিদ থেকে বের হয়ে যায়!


২০ রাকায়াত তারাবীহ নামায আদায় করা সুন্নতে মুয়াক্কাদা। কোনো জরুরত ছাড়া যারা ৮ রাকায়াত তারাবীহ পড়ে (৮ রাকায়াতে বিশ্বাসী) পবিত্র মসজিদ থেকে বের হয়ে যায় তারা নিশ্চয় জুতা চোর। এদের কে যেখানে পাবেন গণধোলাই দিয়ে পুলিশে ধরিয়ে দিন। – নূরে মুজাসসাম

চুষিলদের নির্লজ্জ ডাবল ষ্ট্যাণ্ডার্ড এবং মুসলিম বিদ্বেষ


সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়াতে সংগীতকার আল্লারাখা রহমান (এ আর রহমান) কে নিন্দা ও গালিগালাজ করছে তথাকথিত চুষিলরা। এই চুষিলদের মধ্যে ২ ধরণের লোকেরা আছে – হিন্দু ও ভণ্ড নাস্তিক ( ছুপা হিন্দু)।   সংগীতকার আল্লারাখা রহমান (এ আর রহমান) কে তথাকথিত চুষিলরা

মসজিদে সিসি ক্যামেরা! নাউযুবিল্লাহ! 


খবর বেরিয়েছিলো, প্রশাসন কথিত সন্ত্রাসবাদ ঠেকানোর অজুহাতে মসজিদে মসজিদে সিসি ক্যামেরা লাগানোর উদ্যোগ নিয়েছে। কিন্তু তখন ব্যাপারটিকে এত গুরুত্ব দিয়ে ভাবিনি। মনে করেছিলাম- গণতান্ত্রিক প্রশাসনতো এরকম উদ্ভট ও অযৌক্তিক কত কিছুই তো করার উদ্যোগ নিয়েছে, কিন্তু সবকিছুতো আর বাস্তবে করতে পারেনি।

সরকার কার টাকা কার জন্য খরচ করছে? 


এদেশের ৯৮ ভাগ জনগণ মুসলমান। এদেশের অর্থনীতির চাকা ঘুরে মুসলমানদের টাকায়। এদেশের উন্নয়নের প্রতিটি ধাপে মুসলমানদের শ্রমের ঘাম মিশে আছে। অথচ আফসুস! আজ মুসলমানদের এই টাকাগুলোই খরচ হচ্ছে অমুসলিম, বিধর্মীদের জন্য, তাদের ধর্ম পালনের জন্য। নাউযুবিল্লাহ! প্রতিবছর পূজাম-পে কোটি কোটি টাকা

নানা প্রলোভনে উত্তরাঞ্চল এবং পার্বত্যাঞ্চলের জনগোষ্ঠীকে খ্রিষ্টান বানাচ্ছে বৈদেশিক বিভিন্ন এনজিও।


বাংলাদেশে খ্রিষ্টান জনগোষ্ঠী বৃদ্ধি করে আলাদা খ্রিষ্টান রাষ্ট্র তৈরীর পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে এনজিওগুলো। বিষয়টি অদূর ভবিষ্যতে গভীর শঙ্কার। রহস্যজনক কারণে নীরব সরকার। —————- একদিকে উত্তরাঞ্চল অপরদিকে পার্বত্য এলাকাকে ঘিরে এনজিও এবং আন্তর্জাতিক খ্রিস্টান লবি খ্রিস্টীয় সংস্কৃতি, কৃষ্টি ও ধর্ম প্রচারের লক্ষ্যে

মুক্তিযুদ্ধ হয়েছে, মুক্তি হয়নি


ব্র্রিটিশ শাসনকে আমরা পরাধীনতা কেন বলি? অথবা একথাই বা কেন বলি যে পাকিস্তান আমাদের নির্যাতন করেছে? কারণ একটাই, তা হলো তারা আমাদের সম্পদ নিজেদের দেশে নিয়ে গিয়েছে, আমাদেরকে ব্যবহার করে নিজেদের দেশের উন্নয়ন করেছে; সোজা বাংলায়, আমাদের মাথায় কাঁঠাল ভেঙে খেয়েছে।

আসল সন্ত্রাসী কারা? মুসলমানরা, নাকি কাফিররা?


১. হিটলার ১ কোটি ১০ লক্ষ মানুষকে হত্যা করেছিলো। সে কিন্তু মুসলিম ছিলো না, ছিলো খ্রিস্টান। ২. জোসেফ স্টালিন ২ কোটি মানুষকে হত্যা করেছিলো। সেও মুসলমান ছিলো না। নাস্তিক দাবি করতো। ৩. মাওসেতুং দেড় থেকে ২ কোটি মানুষকে হত্যা করেছিলো। সেও

মুনাফিক ধ্বংসের জন্য বদ-দোয়া করুন প্রতিনিয়ত


হে দেশপ্রেমিক মুসলমান! নিজের প্রিয় দ্বীন- পবিত্র ইসলামের অস্তিত্ব রক্ষায় সবাই মহান আল্লাহ পাকের শাহী দরবারে হাত তুলুন- গুমরাহ শাসক, মুনাফিক, ধর্মব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে। গুমরাহ শাসক ও মুনাফিকরা এবার দেশের মাদরাসা শিক্ষা থেকে ‘জিহাদ বিষয়ক অধ্যায়’ বাদ দিয়ে ২০১৮ সালের বই ছাপাচ্ছে।

“হিন্দু পুলিশ ডি চরম খারাপ”


গুরুত্বপূর্ণ  কাজে গিয়েছিলাম শরীয়তপুর নড়িয়ায়৷কাজ শেষে যখন নড়িয়া থেকে ভোজেশ্বর ফিরে আসছিলাম তখন একটি অটোতে উঠলাম৷ বসেছি সামনের সিটে ড্রাইভারের পাশেই৷ আমি স্বভাবতই গাড়িতে উঠলে চুপ করে থাকতে পারি না৷যাকে পাশে পাই তার সাথেই গল্প জোড়ে দেই৷আমার পাশে বসা ড্রাইভারের সাথেই