Archive for the ‘বিভাগবিহীন’ Category

রাত সমূহের মধ্যে উত্তম রাত হচ্ছে পবিত্র মীলাদুন্নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের রাত


হানাফী মাযহাবের বিখ্যাত ফতোয়ার কিতাব ‘রদ্দুল মুহতার আলা দুররুল মুখতার’ কিতাবে বর্ণিত আছে, أَنَّ أَفْضَلَ اللَّيَالِي لَيْلَةُ مَوْلِدِهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ ثُمَّ لَيْلَةُ الْقَدْرِ ، ثُمَّ لَيْلَةُ الْإِسْرَاءِ وَالْمِعْرَاجِ ، ثُمَّ لَيْلَةُ عَرَفَةَ ، ثُمَّ لَيْلَةُ الْجُمُعَةِ ، ثُمَّ لَيْلَةُ

সম্মানিত দ্বীন ইসলাম সম্পর্কিত আর্টিকেল লেখার জন্য ইংরেজি ভাষার কিছু সংস্কার করা আবশ্যক


বর্তমানে সারাবিশ্বে সবার নিকট বোধগম্য ভাষা বলতে ইংরেজিকেই বোঝানো হয়। অন্যান্য ভাষা থেকে ইংরেজি ভাষায় বিভিন্ন প্রবন্ধ ও আর্টিকেল লিখে ছড়ানো হয়, যেন তা অন্যান্য ভাষাভাষীর নি`কট পৌঁছানো যায়। তবে এখানে একটি সমস্যা রয়েছে, তা হচ্ছে প্রচলিত ইংরেজি ভাষায় আদব, শরাফত,

সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ মুবারক হো! পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালন করার তরতীব


সাইয়্যিদে ঈদে আ’যম ওয়া ঈদে আকবর পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তথা পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালন করার তরতীব সম্পর্কে মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মাঝে ইরশাদ মুবারক করেন- “হে হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!

পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার বোনাস চালু করুন।


যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি সম্মানিত কিতাব কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন- “সমস্ত কাফির-মুশরিক মুসলমানদের শত্রু। তোমরা কখনই তাদেরকে বন্ধুরূপে গ্রহণ করিও না” এবং তাদেরকে অনুসরণ করিও না। কাজেই নববর্ষ সেটা বাংলা হোক, ইংরেফজ হোক, আরবী

সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার উদযাপন বিশ্ববাসীর জন্য সবচেয়ে বড় ঈদ এবং নাজাতের উত্তম উসীলা


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “হে হাবীব নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আপনি উম্মতদেরকে বলে দিন মহান আল্লাহ পাক উনার ফযল ও রহমত লাভ করার কারণে তারা যেন আনন্দ, খুশি প্রকাশ করে।”

সুমহান ২৮শে পবিত্র ছফর শরীফ ও সরকারের দায়িত্ব-কর্তব্য


২৮শে পবিত্র ছফর শরীফ খুবই বরকতময়। ইমামুছ ছানী মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুছ ছানী হাসান আলাইহিস সালাম তিনি এদিন উনার পবিত্র বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করেন। এ সুমহান ব্যক্তিত্ব উনাকে মুহব্বত করা, তা’যীম-তাকরীম করা ও

জোড়া লাগাও জোড়া ভেঙ্গো না; জোড়া ভাঙ্গলে কিছুই পাবে না


এ পৃথিবীর সকল সৃষ্টি ও দ্বীনী অঙ্গনে জোড়তত্ত্ব কার্যকর রয়েছে। এ জোড়া থেকেই নব নব সৃষ্টির হয় উন্মেষ। যার নেই কোনো শেষ। তবে নিম্নে এর মধ্য থেকে কয়েকটি জোড়ার করছি সমাবেশ- (১) পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র আহলে বাইত শরীফ উনাদের

মৃত্যু যেহেতু আছেই, তবে প্রকৃত ঈমানদার-মুসলমান হয়েই মৃত্যুবরণ করুন


মৃত্যু যে শ্বাশত সত্য- এটা মহান আল্লাহ পাক তিনিও পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মাঝে ইরশাদ মুবারক করেছেন। এ সম্পর্কে পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মাঝে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- “প্রত্যেক নফসকে, প্রত্যেক মানুষকে তথা জিন-ইনসানসহ সমস্ত মাখলুকাতকে মৃত্যুবরণ করতে হবে।” (পবিত্র সূরা আল

‘শিক্ষানীতি’তে দেশের কোটি কোটি মুসলমানদের আশা-আকাঙ্খার প্রতিফলন নেই কেন !!


এটা সবারই জানা আছে, পড়ালেখা করুক আর না করুক- সবাই এই কথাটিকে আওড়িয়ে থাকে। ‘শিক্ষা জাতির মেরুদ-’। কিন্তু শিক্ষা নামক এই মেরুদন্ড নিয়ে এ দেশের মুসলমানদের কখনো কোনো চিন্তা-ভাবনা করে থাকে বলে মনে হয় না। কারণ আজ অনেক বছর থেকেই দেশের

মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার ছোহবত মুবারক ব্যতীত হক্বের উপর থাকা অসম্ভব


সাইয়্যিদুল শোয়ারা হযরত মুসলিহুদ্দীন শেখ সা’দী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি বলেন, “নেককারের ছোহবতে নেককার হয়, আর বদকারের ছোহবতে বদকার হয়।” হযরত নূহ আলাইহিস সালাম উনার পুত্র কেনান, হযরত নবী আলাইহিস সালাম উনার পুত্র হওয়া সত্ত্বেও কাফির-মুশরিকদের ছোহবতে থাকার কারণে কাফির-মুশরিকদের অন্তর্ভুক্ত হয়ে

ইমামতির জন্য বা ইমাম হওয়ার জন্য শর্ত


ইমাম হওয়ার জন্য অনেক শর্ত-শারায়িত উল্লেখ রয়েছে। তবে যেসব শর্ত না হলে কারো জন্য মসজিদের ইমাম হওয়া কিংবা ইমাম নিয়োগ দেয়া উচিত নয় তা হচ্ছে- (১) ক্বিরায়াত বিশুদ্ধ হওয়া, (২) ইমাম হওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় মাসয়ালা-মাসায়িল জানা এবং ক্বলবী ইলম তথা ইলমে

ইতিহাসের পাতায় ওলীআল্লাহগণ উনাদের অঢেল অর্থ খরচের উদাহরণ এবং সেই অর্থের প্রতি বিধর্মীদের লোলুপ দৃষ্টি


চিশতীয়া তরীক্বা উনার একজন প্রধান ওলীআল্লাহ হযরত নিযামউদ্দীন আউলিয়া রহমতুল্লাহি আলাইহি। দিল্লীতে ছিল উনার খানকা শরীফ। ইতিহাসে লেখা রয়েছে, খানকা শরীফ ও লঙ্গরখানার খরচ বহনের জন্য তিনি উনার খাদিমকে নির্দেশ মুবারক দিয়ে রেখেছিলেন, যদি কখনো অর্থের দরকার হয় অমুক তাকের মধ্যে