Archive for the ‘বিভাগবিহীন’ Category

ঈমানদার আর কাফির কি করে বন্ধু হয়?


এক মুসলমান অন্য মুসলমানের ভাই। আর ইহুদী-নাছারা ও কাফির-মুশরিকরা মুসলমানগণের শত্রু। এ শত্রুতা আজকের নয়। পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার শুরু থেকেই এ শত্রুতা। পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনাকে পৃথিবী থেকে মিটিয়ে দিতে প্রতিনিয়ত যুদ্ধ করে যাচ্ছে পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার শত্রুরা। শত

ইলম ছাড়া কোনো ব্যক্তি বা জাতি উন্নতি করতে পারে না। আর ইলমের ভাণ্ডার হলেন ‘পবিত্র কুরআন শরীফ’


ইলম হলো আমলের ইমাম। তাহলে ইলমের গুরুত্বটা কতটুকু? ইলম ছাড়া কি কোনো আমল হতে পারে? এজন্য নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইলম অর্জনের উপর এতো তাগিদ দিয়েছেন। ইলমকে করেছেন মর্যাদায় অধিষ্ঠিত। নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক

হিটলার পৃথিবীটাকে ইহুদী হায়েনাদের কাছ থেকে মুক্ত করতে চেয়েছিল ॥ আজ কী তাই প্রমাণিত হচ্ছে না যে সে ভুল করেনি!


দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে হিটলার ৬০ লক্ষ কুচক্রী ইহুদীদের খতম করে কোনো ভুল করেনি, গুটিকয়েক ইহুদী আজ তাই প্রমাণ করছে। হিটলার চেয়েছিল পৃথিবীটাকে অশান্তি সৃষ্টিকারী ইহুদীদের হাত থেকে মুক্ত করতে। সম্মিলিত পশ্চিমা হায়েনাদের কারণে তা সম্ভব হয়নি। সন্ত্রাসের মাধ্যমে সৃষ্ট সন্ত্রাসী পরগাছা ইহুদী

ঝিনুক তার মূল্যবান মুক্তা লুকাতে ও রক্ষা করতে জানে, মানুষ তার মহামূল্যবান নারীকে প্রদর্শনী করে বেড়ায়।


মানুষ তার সবচেয়ে মূল্যবান জিনিস সবচেয়ে বেশি হিফাযতে রাখে। এটা মানুষের সভাবজাত, তেমনি প্রকৃতি তার মূল্যবান জিনিসগুলি অতিযতেœ সকলের অগচরে কঠিন আবরণে লুকিয়ে রাখে। যেমন মুক্তা। ঝিনুকের যখন কোনো কিছু থাকে না অর্থাৎ শূন্য থাকে, তখন উহা সাগরে বা নদীতে ভাসমান

” সন্ত্রাসবাদ একটি বিভ্রান্তির নাম “


সউদী আরব এবং ইসলামিক স্টেট এই দুইই সালাফি আদর্শে বিশ্বাসী রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান। যে আল-কায়েদা থেকে অনুপ্রেরণা নিয়ে আইএস-এর জন্ম, সেই আল-কায়েদার জন্ম হয়েছে সউদী আরবেরই প্রত্যক্ষ্য সহযোগিতায়। সউদী আরবপন্থি সালাফিদের সাথে আল-কায়েদাপন্থি সালাফিদের প্রধান মতপার্থক্যের বিষয় মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন সেনাবাহিনীর উপস্থিতি। এভাবেই

মক্কা বিজয়ের পরের কথা।


মক্কা বিজয়ের পরের কথা। মিশরের সম্রাট মিকাউকাস রাসূল পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে একটি উপহার পাঠালেন। তিনি উপহার স্বরূপ মুসলমানদের জন্য একজন চিকিৎসক পাঠান। নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ, হুযুর পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সেই চিকিৎসককে ফেরত পাঠান এবং মিকাউকাস কে

নাস্তিকগুলো দ্বৈত চরিত্রের মানুষ! সব নাস্তিকই মরণকালে বিশ্বাসী!শয়তানের চরিত্র আর কি!?


তথাকথিত নাস্তিকগুলো খুব দ্বিধাদ্বন্দ্বে ভুগে! খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার অস্তিত্ব স্বীকার করে না! কিন্তু বিপদে পড়লে সেই মহান স্রষ্টা খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার কাছেই ধর্ণা দেয়। যেহেতু এদের ঈমান নেই, তাই এদের চিন্তার কোনো সততা

গোল্ডেন রাইস একটি লোভনীয় “মূলা” 


গোল্ডেন রাইস প্রচলনের জন্য দেখানো হচ্ছে বিশেষ ধরণের লোভনীয় “মূলা”। এই রাইস দিয়ে বাংলাদেশ, ফিলিপাইনের রাতকানা রোগ সারাতে চায় কোম্পানি। এটা নাকি তাদের মানবহিতৈষী কর্মের একটা নিদর্শন। কোম্পানির বয়ান হচ্ছে এই রাইসে বিটা ক্যারোটিন উৎপাদনকারি জিন ট্রান্সফার করা হয়েছে, ফলে এই

রূহের কথা ভুলে গিয়ে, শরীরটা নিয়ে ব্যস্ত থাকা বোকামী ও গুমরাহী!


দুনিয়া নিয়ে অনেকেই ব্যস্ত, দারুণ ব্যস্ত! এমন ব্যস্ত যে, নাওয়া, খাওয়ার ফুরসৎটা পর্যন্ত পায় না। কিন্তু দুনিয়া কি এসবের তোয়াক্কা করে? দুনিয়ার জীবন শেষ হলে একটি মুহূর্ত কি দুনিয়া এখানে বসবাসের সুযোগ দিবে। অবশ্যই না। যাই হোক মানুষের যে দুটি সত্ত্বা

” পাছ আনফাস যিকিরের হাক্বীক্বত “


পাছ আনফাস ফারসী শব্দ; যার অর্থ শ্বাস-প্রশ্বাস। মানবজীবনে শ্বাস-প্রশ্বাস একটি অতি জরুরী প্রক্রিয়া, যা বন্ধ হলে মানুষের মৃত্যু ঘটে। শ্বাসের মাধ্যমে আমরা অক্সিজেন গ্রহণ করি। রক্ত কণিকা এই অক্সিজেন শরীরের দূর-দূরন্তে মাথার চুল থেকে পায়ের আঙ্গুলের নখ পর্যন্ত পৌঁছে দেয় এবং

“জনসংখ্যা সমস্যা নয়, উন্নয়নের মূল চালিকাশক্তি”


বাংলাদেশের বিশাল জনসংখ্যাকে জনশক্তিতে পরিনত করে দ্রুত অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ঘটাতে হলে দেশের বৃহৎ জনগোষ্ঠিকে কাজে লাগানোর মত পর্যাপ্ত শিল্প কারখানা গড়ে তুলতে হবে। বড় মাপের বিনিয়োগকারীদের পাশাপাশি ছোট ছোট বিনিয়োগকারীদের সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা ও সুযোগ সুবিধা দিয়ে ছোট ছোট কারখানা গড়ে তুলতে

” পাকী রাজাকার বনাম হিন্দুস্তানী রাজাকার “


‘রাজাকার’ শব্দটি অর্থের দিক দিয়ে খারাপ নয়। রাজাকার অর্থ সাহায্যকারী। ১৯৭১-এর স্বাধীনতা যুদ্ধে যারা পাক বাহিনীকে মুক্তযুদ্ধের বিপক্ষের শক্তি হওয়া সত্ত্বেও সাহায্য করেছে তাদের দেশবাসী রাজাকার হিসেবে চেনে। এই রাজাকাররা অনেকেই মানবতাবিরোধী কাজে লিপ্ত ছিলো। তাইতো স্বাধীনতার এত বছর পরে হলেও