Archive for the ‘বিভাগবিহীন’ Category

পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালন করার প্রতিদান


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করার উপলক্ষ্যে হযরত ছুয়াইবা আলাইহাস সালাম উনাকে আবু লাহাব আযাদ করার কারণে সারা জীবন কুফরী করা সত্ত্বেও মৃত্যুর পর প্রতিদানস্বরূপ প্রতি ইছনাইনিল আযীম শরীফ (সোমবার) শীতল

পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালনের যারা বিরোধিতা করে তারা কিভাবে ঈমানদার-মুসলমান হতে পারে


পবিত্র কালিমা শরীফ ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রসূলাল্লাহ’ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ঈমান আনয়নের জন্য পাঠ করতে হয়, মনে প্রাণে মেনে নিতে হয়, সেই পবিত্র কালিমা শরীফ উনার প্রথমাংশ ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ’ প্রকাশ ঘটতো না যদি না শেষাংশ হতো। তাহলে লা

নীম মোল্লা খতরে ঈমান


আজকাল কিছু সংখ্যক লোক বেরিয়েছে, যারা কম জ্ঞান ও কম বুঝের কারণে পবিত্র কুরআন শরীফ, পবিত্র হাদীছ শরীফ, পবিত্র ইজমা ও পবিত্র কিয়াস শরীফ থেকে দূরে সরে গিয়ে মনগড়া আমল ও বক্তব্যের দ্বারা সমাজের মধ্যে নানাবিধ ফিতনা ফাসাৎ ও বিভ্রান্তির সৃষ্টি

পবিত্র ১২ রবীউল আউওয়াল শরীফই হচ্ছেন- নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সুমহান বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করার সঠিক তারিখ


ধর্মব্যবসায়ী, মুনাফিক, ভন্ড- শ্রেণীর কিছু লোক মানুষকে ধোঁকা দেয়ার জন্য বলে থাকে- সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিলাদত শরীফ উনার তারিখ নিয়ে মতভেদ আছে। তাই মতভেদযুক্ত বিষয়ে আমল করা যাবে না। অর্থাৎ

মুসলমানগণ উনাদের সবচেয়ে বড় ঈদ পবিত্র সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ উনার জন্য সরকারের বাজেট নেই কেন?


‘ধর্মীয় সম্প্রীতি রক্ষা করা বর্তমান সরকারের নীতি’- মাত্র গুটিকয়েক খ্রিস্টানদের কল্যাণে ‘খ্রিস্টান ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্ট’ গঠন করেছে সরকার। এই ট্রাস্টে সরকার প্রতিষ্ঠার বছরই খ্রিস্টানদের কল্যাণে ১ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। এখন এ বরাদ্দ বাড়িয়ে ৫ কোটি করা হয়েছে। এ ফান্ড মূলত

মুসলমানদের নাম বিকৃতি করা বিধর্মী বিজাতীদের পরিকল্পিত চক্রান্ত !


ইহুদী নাসারা মুশরিক তথা বিধর্মী বিজাতিরা এত বেশি ইসলাম ও মুসলিম বিদ্বেষী যে, তারা ইসলামী কিংবা মুসলিম ভাবাপন্ন কোনো নাম নিশানাকেও বরদাশত করতে পারে না। যে কারণে তারা তাদের লিখিত গল্প কবিতা সাহিত্য রচনায় সব সময় মুসলমান উনাদের প্রকৃত নামগুলো বিকৃত

বিধর্মীরা মুসলমানদের খাদিম…


বিধর্মীদের আবিষ্কৃত তৈরিকৃত যন্ত্রপাতি, আসবাব ইত্যাদি ব্যবহার নিয়ে অনেকেই মুসলমানদের মাঝে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে থাকে। মহান আল্লাহ পাক তিনি ও নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা যেহেতু মুসলমানদের জন্য কাফির-মুশরিক তথা তাবৎ বিধর্মী অমুসলিমদের সাথে কোনো প্রকার মিল-মুহব্বত

গরু জবাই যদি হিন্দুদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানে, তবে মূর্তিপূজাও মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়


বছর খানেক আগে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ নামক একটি সংগঠন এক ঘোষণায়- বাংলাদেশে আইন করে গরু জবাই নিষিদ্ধ করার দাবি তুলেছে। (তথ্যসূত্র: দৈনিক মানবজমিন, তারিখ: ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬) হিন্দুদের দাবি- “গরু তাদের মা, গরু জবাই করলে তাদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানে।” এক্ষেত্রে

যার তার পিছনে যেরূপ নামায পড়া জায়িয নেই; তদ্রুপ যাকে তাকে যাকাত দেয়াও জায়িয নেই


যেই ব্যক্তির ঈমান-আক্বীদা ছহীহ-শুদ্ধ নয় এবং যে ব্যক্তির আমল-আখলাক্ব ছহীহ শুদ্ধ নয় অর্থাৎ যার আক্বীদা সম্মানিত আহলে সুন্নত ওয়াল জামায়াত উনাদের আক্বীদার ন্যায় আক্বীদা নয় এবং যার আমল-আখলাক্ব সম্মানিত শরীয়ত ও সম্মানিত সুন্নত মুয়াফিক্ব নয় তথা যারা ফরয, ওয়াজিব, সুন্নতে মুয়াক্কাদা

সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল উমাম আলাইহাস সালাম উনার মুবারক মজলিস হচ্ছে হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের তা’লীমী মজলিসের হাক্বীক্বী মিছদাক


যিকির-ফিকির, রিয়াযত-মাশাক্কাত করে কখনো মুজাদ্দিদে আ’যম হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার সম্মানিতা যাওজাহ হওয়া সম্ভব নয়। এই বিষয়টি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার এবং উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের কর্তৃক মনোনীত।

হক্কানী-রব্বানী শায়েখ বা মুর্শিদ ক্বিবলা উনার নিকট বাইয়াত গ্রহণ করা প্রত্যেক মুসলমানদের জন্য ফরয


মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআনুল কারীম উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, أَطِيْعُوا اللهَ وَأَطِيْعُوا الرَّسُوْلَ وَأُولِي الْأَمْرِ مِنْكُمْ অর্থ: “তোমরা মহান আল্লাহ পাক উনাকে ও উনার রসূল নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদেরকে অনুকরণ কর এবং

যাতায়াতের রাস্তা বন্ধ করে পূজামন্ডপ হলে প্রতিবাদ করুন ও প্রশাসনকে জানান


আগামী কিছু দিনের মধ্যেই বাংলাদেশের সংখ্যলুঘু অচ্ছুৎ জনগোষ্টী হিন্দুদের পূজা অনুষ্ঠান দূর্গাপূজা শুরু হতে যাচ্ছে। সারাদেশের বিভিন্নস্থানে তারা এ উপলক্ষে মন্ডপ বানানোর আয়োজনও শুরু করেছে। প্রতিবছরই দেখা যায়, দেশের অনেক জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তা, অলিগলি ও স্কুল মাঠ দখল করে এসব পূজামন্ডপ তৈরি