Archive for the ‘বিভাগবিহীন’ Category

সম্মানিত গাজওয়াএ হিন্দ সম্পর্কে হাদিস শরীফ –


সম্মানিত গাজওয়াএ হিন্দ- *************************** শাহ নেয়ামতুল্লাহ রহমতুল্লাহি একজন বুযুর্গ ব্যক্তি। তিনি বর্তমান পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত পাঞ্জাব প্রদেশে জন্মগ্রহণ করেন।আল্লাহ পাক তাঁকে অনেক জ্ঞান দান করেন এবং ভবিষ্যতেরও কিছু বিষয় জানানো হয়। তিনি সেগুলো লিখে রাখতেন এবং ১১৫২ খ্রিস্টাব্দে এক ক্বাসিদা (কবিতা) রচনা

শেখ হাসিনার মাধ্যমে বাংলাদেশ আবার তার স্বাধীনতা হারাবে ভারতের কাছে – কাসিদায় শাহ নেয়ামতুল্লাহ এর ভাবিষ্যতবানী!


*********************************************** নিকট ভবিষ্যতে ইসলাম ও মুসলমানের নিশ্চিত বিজয় প্রসঙ্গে ************************************************************* শাহ নেয়ামতুল্লাহ রহমতুল্লাহি একজন বুযুর্গ ব্যক্তি। তিনি বর্তমান পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত পাঞ্জাব প্রদেশে জন্মগ্রহণ করেন।আল্লাহ পাক তাঁকে অনেক জ্ঞান দান করেন এবং ভবিষ্যতেরও কিছু বিষয় জানানো হয়। তিনি সেগুলো লিখে রাখতেন এবং

শাহ নেয়ামাতুল্লাহ ওয়ালী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার ভবিষ্যৎবাণী : বাংলাদেশ পরিস্থিতি এবং গাজওয়াতুল হিন্দ।


শাহ নেয়ামাতুল্লাহ ওয়ালী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার ভবিষ্যৎবাণী : বাংলাদেশ পরিস্থিতি এবং গাজওয়াতুল হিন্দ! Qaseeda Shah Neyamtullah আল্লাহ্ তা‘য়ালা প্রদত্ত ইলহাম এর জ্ঞান দ্বারা আজ থেকে প্রায় সাড়ে আটশত বছর পুর্বে ( হিজরী ৫৪৮ সাল মোতাবেক ১১৫২ সালে খ্রিস্টাব্দে) শাহ নেয়ামতুল্লাহ রহঃ

শাহ নেয়ামাতুল্লাহ ওয়ালী রহমতুল্লাহি আলাইহি এর ভবিষ্যৎবাণী : বাংলাদেশ পরিস্থিতি এবং গাজওয়াতুল হিন্দ।


শাহ নেয়ামাতুল্লাহ ওয়ালী রহমতুল্লাহি আলাইহি এর ভবিষ্যৎবাণী : বাংলাদেশ পরিস্থিতি এবং গাজওয়াতুল হিন্দ। *********************************************************************************** Qaseeda Shah Neyamtullah আল্লাহ্ তা‘য়ালা প্রদত্ত ইলহাম এর জ্ঞান দ্বারা আজ থেকে প্রায় সাড়ে আটশত বছর পুর্বে ( হিজরী ৫৪৮ সাল মোতাবেক ১১৫২ সালে খ্রিস্টাব্দে) শাহ নেয়ামতুল্লাহ

মুসলমান তার শ্রেষ্ঠত্ব অস্বীকার করতে পারে, কিন্তু কাফির-মুশরিকরা যে কখনোই তাদের গোলামের পরিচয় অস্বীকার করতে পারে না!


১৮৫৭ সালের ব্রিটিশবিরোধী মহাবিদ্রোহের সময়ের ঘটনা। ব্রিটিশ হানাদারেরা দিল্লী অবরুদ্ধ করে রেখেছে। এমতাবস্থায় সম্রাট বাহাদুর শাহ জাফরের মনে খেয়াল হলো, যেহেতু হিন্দুরা গরুকে দেবতা মানে, সেহেতু ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে দিল্লীর হিন্দুদের সমর্থন পেতে হলে গরু কুরবানীর ব্যাপারে ছাড় দিতে হবে। সম্রাট আইন

সম্মানিত আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াত উনার বিশুদ্ধ আক্বীদাহ মুবারক!


(ক) ‘সম্মানিত ও পবিত্র দ্বীন ইসলাম’ উনার মধ্যে প্রবেশ করার একমাত্র মাধ্যম হচ্ছেন ‘সম্মানিত ঈমান’। সুবহানাল্লাহ! যখন কেউ সম্মানিত ঈমান আনেন, তখন তিনি সম্মানিত ও পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে প্রবেশ করেন। আর সম্মানিত ঈমান সুসংঘঠিত হয়ে থাকেন সম্মানিত আক্বীদাহ মুবারক

পবিত্র ক্বদর উনার রাত্রির মর্যাদা ও খুছূছিয়ত সম্পর্কে!


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ” নিশ্চয়ই আমরা উহা (পবিত্র কুরআন শরীফ) নাযিল করেছি ক্বদর উনার রাত্রে অর্থাৎ পবিত্র ক্বদর উনার রাতে সম্পূর্ণ পবিত্র কুরআন শরীফ দুনিয়ার আকাশে অবস্থিত পবিত্র বাইতুল ইজ্জতে নাযিল করেন। আপনি কী

পবিত্র ই’তিকাফ উনার বিধান!


মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার পবিত্র সূরা বাক্বারা শরীফ উনার পবিত্র আয়াত শরীফ উনার ১২৫ নম্বর পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে ই’তিকাফ সম্পর্কে ইরশাদ মুবারক করেছেন, “এবং আমি ওহী মুবারক করলাম হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালাম ও হযরত ইসমাইল

ভারতীয় গো-মূত্র মিশানো খাদ্য-পণ্য মুসলমানদের বর্জন করতে হবে!


খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, হে ঈমানদারগণ! নিশ্চয়ই যারা মুশরিক তারা (নাপাক) অপবিত্র। (পবিত্র সূরা তওবা শরীফ পবিত্র আয়াত শরীফ ২৮) যারা নিজের হাতে বানানো মূর্তিকে পূজা করে তাদেরকে মহান আল্লাহ

দুনিয়া ও আখিরাত উভয় জাহানে লা’নতগ্রস্থ বা অভিশপ্ত ও কঠিন যন্ত্রণায়দায়ক আযাবযোগ্য ব্যক্তিদের সংক্ষিপ্ত পরিচিতি


খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালাম পাক উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন – ان الذين يؤذون الله ورسوله لعنهم الله فى الدنيا والاخرة واعد لهم عذابا مهينا. অর্থ : “যারা মহান আল্লাহ পাক উনাকে এবং উনার রসূল নূরে

মহাসম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের এবং আওলাদে রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের মধ্যে পার্থক্য:


এটি একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। অনেকে মনে করে থাকে যে, যিনি আওলাদে রসূল তিনিই আহলু বাইত শরীফ। আওলাদের রসূল এবং আহলু বাইত শরীফ উনাদের মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। আবার অনেকে মনে করে থাকে যে, আওলাদে রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের

আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াত উনার বিশুদ্ধ আক্বীদাহ মুবারক!


(ক) ‘সম্মানিত ও পবিত্র দ্বীন ইসলাম’ উনার মধ্যে প্রবেশ করার একমাত্র মাধ্যম হচ্ছেন ‘সম্মানিত ঈমান’। সুবহানাল্লাহ! যখন কেউ সম্মানিত ঈমান আনেন, তখন তিনি সম্মানিত ও পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে প্রবেশ করেন। আর সম্মানিত ঈমান সুসংঘঠিত হয়ে থাকেন সম্মানিত আক্বীদাহ মুবারক