Archive for the ‘বিভাগবিহীন’ Category

প্রত্যেকটি পবিত্র ও সম্মানিততম সুন্নত মুবারক পালন করা ফরযে আইন মুবারক


মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার পবিত্র ও সম্মানিততম কালাম পাক উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন- وَمَا آتَاكُمُ الرَّسُولُ فَخُذُوهُ وَمَا نَهَاكُمْ عَنْهُ فَانْتَهُوا وَاتَّقُوا اللَّـهَ إِنَّ اللَّـهَ شَدِيدُ الْعِقَابِ অর্থ: নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি তোমাদের

মুসলমানদের অসুস্থ বানার লক্ষেই জিএমও ফসল ফলার চিন্ত-ভাবনা। এখনই সময় জিএম ফসলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা।


আমরা বাংলাদেশে ৯৮ ভাগ মুসলমান বাস করি। আমরা সুখে থাকি ও ভালো ভাবে জীবন যাপন করি এটা কাফির মুশরিকসহ কোন দেশই চায় না। এজন্য তারা বিভিন্ন রকম ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। আমাদের বংশ বৃদ্ধি, আমাদের সুস্থতা, আমাদের সচ্ছলতা কোনাটাই কিন্তু বহির্বিশ্বের বরদাস্ত

পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র হাদীছ শরীফ উনাদের মধ্যে আছে বলেই কথিত জাতীয় সঙ্গীত বন্ধে রিট মামলা দায়ের করা হয়েছে


পবিত্র কুরআন শরীফ মহান আল্লাহ পাক উনার কালাম। আর পবিত্র হাদীছ শরীফ যিনি সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, রহমাতুল্লিল আলামীন, খাতামুন নাবিয়্যীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ক্বওল, ফে’ল ও তাকরীর অর্থাৎ কথা মুবারক, কাজ মুবারক ও

সুমহান পবিত্র ১৩ রজবুল হারাম শরীফ: আমীরুল মু’মিনীন, বাবুল ইলম, দামাদে রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের অন্যতম হযরত ইমামুল আউওয়াল মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বরকতময় পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ দিবস


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, احبوا اهل بيتى لحبى অর্থাৎ “তোমরা আমার হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করো আমার মুহব্বত মুবারক উনার কারণে।” আমীরুল মু’মিনীন, বাবুল ইলম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল

মাদ্রাসার ছাত্র বনাম স্কুল ছাত্র


মাদ্রাসার ছাত্র বনাম স্কুল ছাত্র মাদ্রাসার ছাত্র : ১.আরবী পড়তে জানে । ***আরবী হচ্ছে ইন্টারন্যাশনাল একটি শ্রেষ্ঠ ভাষা। ***আরবী হচ্ছে জান্নাতী মানুষের ভাষা। ***আরবী কুরআন শরীফের ভাষা। ***হাদীস শরীফের ভাষা আরবী। ***মাদ্রাসার ছাত্ররা আরবী থেকে বাংলা,ইংরেজী,রুশ.স্পানীশ সব ভাষায় অনুবাদ করতে পারে

সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত মহাসম্মানিত ১২ খলীফা আলাইহিমুস সালাম উনারা হচ্ছেন


(১). খলীফায়ে আউওয়াল- ছিদ্দীক্বে আকবর সাইয়্যিদুনা হযরত আবূ বকর ছিদ্দীক্ব আলাইহিস সালাম, (২). খলীফায়ে ছানী- ফারূক্বে আ’যম সাইয়্যিদুনা হযরত উমর ইবনুল খত্ত্বাব আলাইহিস সালাম, (৩). খলীফায়ে ছালিছ- রফিকুল জান্নাত সাইয়্যিদুনা হযরত উছমান যুন নূরাঈন আলাইহিস সালাম, (৪). খলীফায়ে রাবি’- আসাদুল্লাহিল গালিব

ওহাবীরাই দাজ্জালের চেলা এ কারণে যে তাদের কথিত এক মুরুব্বী বলেছে ‘উম্মত’ বলা যাবে না ‘গোলাম’ বলতে হবে; মূলত উম্মত শব্দটি পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র হাদীছ শরীফ উনাদের মধ্যে অসংখ্যবার উল্লেখ রয়েছে, গোলাম শব্দটি তো রয়েছেই। সুবহানাল্লাহ!


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে عن حضرت ابى هريرة رضى الله تعالى عنه قال قال رسول الله صلى الله عليه وسلم يكون فى اخر الزمان دجالون كذابون يأتونكم من الاحديث بما لم تسمعوا انتم ولا ابائكم فاياكم واياهم

সাইয়্যিদু শাবাবি আহলিল জান্নাহ, সিবতু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, ইবনু খইরি বানাতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আন নূরুল ঊলা আলাইহাস সালাম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম ইবনে হযরত যুন নূর আলাইহিস সালাম উনার সংক্ষিপ্ত জীবনী মুবারক


হাফাদাতু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তথা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত সিবতুন (নাতি) আলাইহিমুস সালাম এবং মহাসম্মানিতা সিবত্বাতুন (নাতনী) আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের সংক্ষিপ্ত পরিচিতি মুবারক: নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম

বাবুল মুরাদ, আত তাক্বী, আয যাকী, মুরতযা, মুজতবা, মালিকুল কায়িনাত সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুত তাসি’ মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত সংক্ষিপ্ত জীবনীমুবারক


সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুত তাসি’ মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সবচেয়ে বড় পরিচয় মুবারক হচ্ছেন তিনি হচ্ছেন সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খ¦তামুন নাবিয়্যীন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু

সম্মানিত ইয়ারমূকের জিহাদ


রোমান সৈন্যদের একদল কানাতীরের নেতৃত্বে লাজিকিয়ার পথ ধরে এগুতে আরম্ভ করলো। আরেকদল জার্জিরের নেতৃত্বে জাদাতুল উজমার ও সাওমীনের পথ ধরে এগুতে থাকলো। আরেকদল কাওরীনের নেতৃত্বে হালাব ও হামাতের পথ ধরে এগুতে থাকলো । আরেকদল দীরজানের নেতৃত্বে আওয়াসিমের পথ ধরে এগুতে থাকলো

ইমামুর রাসিখীন, গারীক্বে¡ বাহরে বিছাল, শাহিদে তাজাল্লিয়াতে যুল জালাল, যিকরানে কা’বায়ে মাকছূদ, আরবাবে হিদায়িত, আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুত তাসি’ মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র সাওয়ানেহ উমরী মুবারক


মুবারক নাম ও পরিচিতি: আওলাদে রসূল, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুত তাসি’ মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি পবিত্র আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের নবম ইমাম অর্থাৎ সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুত তাসি’ মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম।

মহিলা ও পুরুষদের চোখের দৃষ্টির পর্দা সম্পর্কে জানার কিছু বিষয়


প্রত্যেক মু’মিনা, মুসলিমা নারীদের পর্দা করা হলো ফরযে আইন। অনূরূপভাবে প্রত্যেক মু’মিন, মুসলমান পুরুষদের জন্যও পর্দা রক্ষা করা ফরযে আইন। তবে পুরুষদের পর্দা নারীদের পর্দার থেকে কিছুটা ব্যতিক্রম। পুরুষদের পর্দা বলতে বুঝায় হারাম কিছুর দিকে নজর না করা, পরনারী থেকে ইজ্জত