Archive for the ‘রাজনীতি’ Category

নানা প্রলোভনে উত্তরাঞ্চল এবং পার্বত্যাঞ্চলের জনগোষ্ঠীকে খ্রিষ্টান বানাচ্ছে বৈদেশিক বিভিন্ন এনজিও।


বাংলাদেশে খ্রিষ্টান জনগোষ্ঠী বৃদ্ধি করে আলাদা খ্রিষ্টান রাষ্ট্র তৈরীর পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে এনজিওগুলো। বিষয়টি অদূর ভবিষ্যতে গভীর শঙ্কার। রহস্যজনক কারণে নীরব সরকার। —————- একদিকে উত্তরাঞ্চল অপরদিকে পার্বত্য এলাকাকে ঘিরে এনজিও এবং আন্তর্জাতিক খ্রিস্টান লবি খ্রিস্টীয় সংস্কৃতি, কৃষ্টি ও ধর্ম প্রচারের লক্ষ্যে

খেলার অন্তরালের খেলা


ক্রিকেট-ফুটবল-হকি (অর্থাৎ যাবতীয় খেল-তামাশা), গান-বাজনা, নাটক-সিনেমা-টিভি, অভিনয়-মডেলিং ইত্যাদির মানে  হলো:- জুয়া, মদ, অবৈধ নারী সম্ভোগ, অবৈধ অর্থ, লুচ্চা, লম্পট, পতিতা, বেহায়া, বদ-চরিত্র, মারামারি, খুনাখুনি, সন্ত্রাস ইত্যাদি। দেশপ্রেমিক হলে তা বুঝতো দেশের কর্ণধাররা। কিন্তু তারা বিভ্রান্ত, মুনাফিক ও দালাল হওয়ায় উল্টো বলে-

মুক্তিযুদ্ধে ভারতীয় সেনা বাহিনীর লুটপাটের ইতিহাস ও সাহায্যের স্বরূপ


(সঙ্কলিত পোস্ট)- ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে বীর মুক্তি বাহিনী যখন দেশের ৯৫-৯৯ শতাংশ অঞ্চল মুক্ত করে ফেলেছিল, ঠিক তখন ৩রা ডিসেম্বর ভারতীয় আরদালী বাহিনী লুটপাট করার জন্য বাংলাদেশে প্রবেশ করে। তারা ১৬ ডিসেম্বরের পর বাংলাদেশ জুড়ে নজির বিহীন লুটপাট চালিয়েছিলো। ৯৩ হাজার

আপন জুয়েলার্সের স্বর্ণ জব্দ ও এর দৃশ্যমান কারণের পোস্টমার্টেম


আপন জুয়েলার্সের মালিক ও মালিকপুত্র খুব খারাপ বলে মিডিয়া চেঁচামেচি করছে। এটা তাদের ব্যবসার জন্য মানে পত্রিকার কাটতির জন্য করছে বলে আমার নিখাঁদ মূল্যায়ন। আর দুষ্টু মিডিয়ার চেঁচামেচির সাথে সুর মিলিয়ে সরকারি প্রশাসনও খুব তৎপর। যেটা হাটে হাড়ি ভাঙার মতো চোখে

শিবনারায়ণ দাস ছিল স্রেফ আঁকিয়ে, তাকে খোদ জাতীয় পতাকার ডিজাইনার বানিয়ে দেয়াটা মূর্খতা বৈ কিছুই নয়।


শিবনারায়ণ দাস ছিল স্রেফ আঁকিয়ে, তাকে খোদ জাতীয় পতাকার ডিজাইনার বানিয়ে দেয়াটা মূর্খতা বৈ কিছুই নয়। সম্প্রতি জয়ধ্বনি সাংস্কৃতির সংগঠন নামক একটি অখ্যাত সংগঠন দাবি করেছে, বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার ডিজাইনার হলো শিবনারায়ণ দাস, যাকে নাকি তার প্রাপ্য ‘কৃতিত্ব’ দেয়া হচ্ছে না।

সরি, কী সত্য যেন বলে ফেললাম!


পবিত্র দ্বীন ইসলামের আলোকে বিশ্ব, রাষ্ট্র বা সমাজে যতদিন সাম্য, সহিষ্ণুতা আর ন্যায় প্রতিষ্ঠিত না হবে, ততদিন সন্ত্রাসবাদ ফিরে ফিরে আসবে নতুন কোনো নামে নতুন কোনোখানে। সন্ত্রাসবাদ ঠেকাতে সবার আগে দরকার ইসলামী ঐক্য ও ভ্রতৃত্ববোধ। সন্ত্রাসবাদীকে সঙ্গী করে রাজনৈতিক কাটাকাটি বা

বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন- ‘পিন্ডির গুহা থেকে মুক্ত হয়ে দিল্লির কাছে বন্ধক দিতে পারি না’।


বাংলাদেশ সরকার ভারতকে এবং ভারত সরকার বাংলাদেশকে বন্ধুরাষ্ট্র বলে প্রচার করে থাকে। কিন্তু লেনদেনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ হচ্ছে চরম বৈষম্য আর শোষণের শিকার। এটা বন্ধুত্বের নিদর্শন হতে পারে না। বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন- ‘পিন্ডির গুহা থেকে মুক্ত হয়ে দিল্লির কাছে বন্ধক দিতে পারি না’।

জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ১১ দফা দাবিতে- আওয়ামী ওলামা লীগসহ সমমনা ১৩ ইসলামী দলের বিশাল মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত


(১). মীর কাসেমসহ কুখ্যাত যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী সরকারকে দেশ ও জাতীর পক্ষ থেকে তথা দ্বীনপ্রাণ মুসলমান ও আলিম উলামাদের পক্ষ থেকে আন্তরিক মোবারকবাদ। বাংলার ইহুদী রাজাকার সাঈদীরও ফাঁসির ব্যবস্থা করতে হবে। (২). বশহীদ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান

শক্ত হাতে নস্যাৎ করা হোক কুরবানীর বিরুদ্ধে সব ষড়যন্ত্র। বন্ধ করা হোক কুরবানীর নামে যত সব শয়তানী। ‘পবিত্র কুরআন-সুন্নাহ বিরোধী কোনো আইন পাস হবে না’- এ প্রতিশ্রুতির সরকারের জন্য ত্বরিৎ ও যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ জরুরী।


সৃষ্টির শুরু হতে যে চারটি মাসকে মহাপবিত্রতা দান করা হয়েছে তার মধ্যে পবিত্র যিলহজ্জ মাস অন্যতম। যা পবিত্র হারাম মাস ও পবিত্র কুরবানী করার মাস হিসেবে সমাদৃত। কুরবানী শব্দটি এসেছে ‘কুরব’ থেকে; যার অর্থ- নৈকট্য, সান্নিধ্য ও নিকটবর্তী হওয়া। কুরবানী করার

ভারতের মোদী সরকার আর বাংলাদেশের হিন্দুরা কিন্তু আপনাকে সারা জীবন ক্ষমতায় রাখবে না ।


মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, মার্কিনপন্থী ভারতের বর্তমান মোদী সরকার আর বাংলাদেশের হিন্দুরা কিন্তু আপনাকে সমর্থন দিয়ে সারা জীবন ক্ষমতায় রাখবে না । আপনার সাথে ভারতের সম্পর্ক তখন যখন ভারতের ক্ষমতায় রুশপন্থী কংগ্রেস। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রপন্থী মোদি এসেছে বলে আপনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রপন্থী হয়ে গেছেন এটা

ভারত বাংলাদেশে “আই এস” এর নামে গুলশান হত্যাকান্ড ঘটাবেন না, এটা কি আপনি মনে করেন ?


যে ভারত নিজ দেশে গার্মেন্টস শিল্প উন্নয়নের জন্য শ্রীলংকায় গৃহযুদ্ধ বাধাতে পারে, সে একই কারণে বাংলাদেশে “আই এস” এর নামে গুলশান হত্যাকান্ড ঘটাবেন না, এটা কি আপনি মনে করেন ?? ২০০৮-২০০৯ সালে শ্রীলংকায় তালিম টাইগারদের সাথে যে গৃহযুদ্ধ সংগঠিত হয়, ধারণা

বঙ্গকন্যা!! আপনি কি ভারতের অঙ্গরাজ্য সিকিমের লেন্দুপ দর্জিকে ভুলে গেছেন ?


বঙ্গ কন্যা আপনাকে বলছি !!!!!! আপনি কি ভারতের অঙ্গরাজ্য সিকিমের লেন্দুপ দর্জিকে ভুলে গেছেন ? ভারত লেন্দুপ দর্জিকে দিয়ে সিকিমে অরাজকতা ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। তারপর ভারতই ১৯৭৫ সালে বন্ধু সেজে সিকিম রাজার নিরাপত্তার জন্য সেনাবাহিনী প্রেরণ। ফলাফল স্বাধীন সিকিম বর্তমানে