Archive for the ‘শিক্ষা’ Category

ব্রিটিশ পত্রিকার দাবী, সৌদি চাঁদ না দেখে চাঁদের ঘোষণা দিয়েছে।


ব্রিটিশ মহাকাশবিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন আরবদের ঈদের চাঁদে নাকি ভেজাল ছিল। গ্রীনউইচ রয়াল অবজারভেটোরির মহাকাশবিজ্ঞানের ডাটা অনুযায়ী ৩ রা জুন কেবল সৌদী আরব নয় পৃথিবীর কোথাও চাঁদ দৃশ্যমান হয়নি। তাদের মতে আরবগন একদিন কম রোজা রেখেছেন। https://morningstaronline.co.uk/article/w/saudis-cause-controversy-in-the-muslim-world-for-celebrating-the-end-of-ramadan-a-day-earlier?fbclid=IwAR0jfNIUJMWWtoPXoendJ7tEmCdULP84vp6lL0HGKKBjhlptjx_XOneooa4

বিসিএস ই শেষ কথা নয় আরো আছে অনেক কিছু!


বিসিএসের পাশাপাশি রাখতে হবে অন্যান্য সুযোগের খোঁজ-খবর। ৩ মে অনুষ্ঠিত ৪০তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার জন্য নিবন্ধন করেছেন প্রায় ৪ লাখ ১২ হাজার তরুণ, যেখানে সুযোগ পাবেন মাত্র ১৯০৩ জন। শুধু বিসিএস নয়, আরও নানা রকম পেশা বেছে নেওয়ার সুযোগ আছে তরুণদের

জুতা চোর তারাই যারা ৮ রাকায়াত তারাবি পড়ে পবিত্র মসজিদ থেকে বের হয়ে যায়!


২০ রাকায়াত তারাবীহ নামায আদায় করা সুন্নতে মুয়াক্কাদা। কোনো জরুরত ছাড়া যারা ৮ রাকায়াত তারাবীহ পড়ে (৮ রাকায়াতে বিশ্বাসী) পবিত্র মসজিদ থেকে বের হয়ে যায় তারা নিশ্চয় জুতা চোর। এদের কে যেখানে পাবেন গণধোলাই দিয়ে পুলিশে ধরিয়ে দিন। – নূরে মুজাসসাম

প্রচলিত ইসলামবিরোধী শিক্ষানীতি পরিবর্তনে সরকারকে বাধ্য করতে হবে


রাশিয়ায় কমুনিস্টরা ক্ষমতা দখল করেই প্রথম যে কাজটি করেছিলো সেটি ছিলো- সম্পূর্ণ শিক্ষাব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন। কমুনিস্টরা নতুন শিক্ষাব্যবস্থা তৈরি করা পর্যন্ত বেশ কয়েকবছর তাদের সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে বন্ধ রাখে। এরপর তারা কমুনিজমকে শিক্ষার মূল পাঠ্য করে সেভাবেই পাঠ্যপুস্তকগুলো রচনা করে। কমুনিজমকে বাধ্যতামূলক

হিজরী সন বাতিলের আকাঙ্খা থেকে ফসলী (বাংলা) সনের উৎপত্তি


বিগত ১৪২১ ফসলী সনে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পহেলা বৈশাখ পালনের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল ‘প্রদীপ্ত বৈশাখে দীপ্ত পদাচারণা’। জাবির উক্ত কার্যক্রম নিয়ে ২০১৪ সালের ২৫শে এপ্রিলে ‘দৈনিক যায়যায়দিন’ পত্রিকার ওয়েব ভার্সনে প্রকাশিত ‘জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়: প্রদীপ্ত বৈশাখে দীপ্ত পদাচারণা’ শীর্ষক একটি প্রতিবেদনে উল্লেখ করা

সিলেবাস থেকে ‘চারু ও কারুকলা’ বিষয়টি বাদ দিতে হবে


এনসিটিবি কর্তৃক প্রণীত মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পাঠ্যপুস্তকের বিষয় তালিকার মধ্যে একটি বিষয় রয়েছে ‘চারু ও কারুকলা’। ষষ্ঠ শ্রেণী থেকে নবম-দশম শ্রেণী পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা এ বিষয়টি পড়তে বাধ্য হচ্ছে। চারু ও কারুকলা বিষয়টির মূল-ই হচ্ছে ছবি আঁকা, নকশা অঙ্কন, পুতুল, মূর্তি, ভাস্কর্য,

স্কুল-কলেজের বর্তমান শিক্ষাপদ্ধতি শিক্ষার্থীদের ‘মুসলিম’ পরিচয়ে আঘাত করছে 


প্রাইমারি থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত অমুসলিম শিক্ষকদের গড় হার ৫৮ ভাগেরও বেশি। কোনো কোনো বিদ্যালয়ের ৮৫ ভাগ শিক্ষকই বিধর্মী। অনেক ক্ষেত্রে স্কুলের ইসলাম শিক্ষা বই পড়ায় বিধর্মী শিক্ষক। একটি শিশু কোমল মন নিয়ে যখন শিক্ষালাভ শুরু করে, তখন তার শিক্ষকের বা

নাস্তিক্যবাদী পাঠ্যসূচীর কারণেই সামাজিক অবক্ষয় ও অস্থিরতা 


যেকোনো শিক্ষা ব্যবস্থার প্রধান ও সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ অংশ বা ভিত্তি হলো প্রাথমিক শিক্ষা। প্রাথমিক শিক্ষাকে সঠিকভাবে রূপায়ন করা গেলে সার্বিকভাবে শিক্ষার মান উন্নয়ন সম্ভব হবে। কেননা, এ স্তরের প্রধান অংশ হলো শিশু, যার কচি হৃদয় ও মস্তিষ্ক থাকে সমস্ত পঙ্কিলতামুক্ত। যার

উসমানীয় সুলতানদের স্বভাব চরিত্র


সাম্রাজ্য শাসন ও নানা ধরনের প্রশাসনিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার পাশাপাশি বিদ্রোহ দমন এবং নতুন নতুন রাজ্য জয়ের সামরিক নেতৃত্ব দিতেন ওসমান সুলতানরা। ফলে দিনরাত তাদের সময় কাটতে ভীষণ ব্যস্ততায়। রাজা-মহারাজা, সুলতানদের জীবনে এটি স্বাভাবিক নিয়ম। তবে মানুষ হিসেবে প্রত্যেকে ভালোলাগা থাকে ওসমানী

ভারতের প্রভাব বলয়ের বাইরে চলে যাচ্ছে নেপাল! বাংলাদেশেরও উচিৎ হবে নেপালের কাছ থেকে শিক্ষা গ্রহণ করা।


নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি এখন পাঁচ দিনের চীন সফরে রয়েছে। চীনের গণমাধ্যমগুলো তার এই সফরকে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে প্রচার করছে। সরকারি পত্রিকা গ্লোবাল টাইমস লিখেছে যে নেপাল সেদেশে আর্থিক বিনিয়োগ আর অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পগুলোকে চূড়ান্ত রূপ দিতে চাইছে। তবে পত্রিকাটি

মুসলমানদের নির্যাতনের ফলসরূপ খোদায়ী গজব: মহারাষ্ট্রের মারাঠওয়াড়া জেলায় ৬ মাসে ৪৩৩ কৃষকের আত্মহত্যা


ভারতের মহারাষ্ট্রের খরা কবলিত মারাঠওয়াড়ার আটটি জেলায় ১লা জানুয়ারি থেকে ১৭ই জুন পর্যন্ত লাগাতার কৃষক আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। সম্প্রতি একটি রিপোর্ট থেকে এমনই জানা গিয়েছে। দুর্দশাগ্রস্ত কৃষকরা ঋণের দায়ে আত্মঘাতী হয়েছে বলেই অভিযোগ। রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে, পাহাড় প্রমাণ ঋণের বোঝার

মুসলমানদের উচিত সপ্তাহের বারসমূহ হাদীছ শরীফ অনুযায়ী উচ্চারণ করা।


একজন বয়োঃপ্রাপ্ত ও সুস্থ বিবেকসম্পন্ন মুসলমান পুরুষ-মহিলার জন্য দৈনিক ৫ ওয়াক্ত নামায আদায় করতে হয়। এ পাঁচ ওয়াক্ত নামাযের নামকরণ পবিত্র হাদীছ শরীফ দ্বারাই হয়েছে। যেমন ফজর, যুহর, আছর, মাগরিব ও ‘ইশা। আজ পর্যন্ত কোন মুসলমান এই পাঁচ ওয়াক্ত নামাযকে ওয়াক্তের