GMT কবে ধ্বংস হবে; KMT কবে জারি হবে?



কুরআন শরীফ-এ ইরশাদ হয়েছে, তোমরা তা বল কেনো যা তোমরা করো না।”
মক্কা শরীফ টাওয়ারে স্থাপিত ঘড়িটি GMT ‘র বিকল্প হিসেবে চালু হবে বলে সউদী আরবের সংবাদ মাধ্যমগুলোতে প্রচার পেলেও বাস্তবে কোন লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না।
KMT (Kaba Shareef Mean Time) চালু করার পূর্বে কাবা শরীফ-এর উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করা উচিত।
মক্কা শরীফ টাওয়ারে স্থাপিত ঘড়িটি GMT ‘র বিকল্প হিসেবে চালু হবে বলে সউদী আরবের সংবাদ মাধ্যমগুলোতে প্রচার পেলেও বাস্তবে কোন লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। KMT (Kaba Shareef Mean Time) চালু করার পূর্বে কাবা শরীফ-এর উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করা উচিত।

মক্কা শরীফ টাওয়ারে পৃথিবীর বৃহত্তম ঘড়িটি স্থাপিত হবার পর সউদী আরব থেকে প্রকাশিত ইংরেজী দৈনিক আরব নিউজ-এ ২০১০ সালের ১০ই আগস্ট, মঙ্গলবার শিরোনাম এসেছিলো- Makkah Time a new alternative for GMT জিএমটির বিকল্প হতে পারে মক্কা শরীফ-এর সময়- এই শিরোনামে পত্রিকাতে এলেও বাস্তবে কোন উদ্যোগ নেই। কেননা এখন টাওয়ারের যে যে অংশে ঘড়ি চালু হয়েছে তা চলছে GMT -এর সময়কে কেন্দ্র করে।

মূলত কিভাবে মক্কা শরীফ-এর ঘড়িটি জিএমটির বিকল্প হতে পারে সউদী ওহাবী সরকারের এ বিষয়ে পূর্ণ ধারণা নেই। তাদের উচিত যারা এ বিষয়ে অভিজ্ঞ তাদের সাথে পরামর্শ করে অচিরেই জিএমটির পরিবর্তে কেএমটির প্রচলন ঘটানো।
আমাদের সদা-সর্বদা মহান আল্লাহ পাক উনার স্বরণ করা উচিত, অথচ প্রতিদিনের সময় নিরুপণ করার সময় মহান আল্লাহ পাক উনার পবিত্র ঘর কাবা শরীফ-এর স্মরণ না করে মানুষ বিশেষত মুসলমানগণ স্মরণ করছে কাফিরদের গ্রীনিচকে।

তবে গ্রীনিচের স্মরণ না করে মহান আল্লাহ পাক এবং উনার পবিত্র ঘর কা’বা শরীফ-এর স্মরণের ক্ষেত্রে বিশ্বের মুসলমানগণকে সবচেয়ে বেশি সহায়তা দিতে পারে সউদী আরব সরকার। যেহেতু পবিত্র মক্কা শরীফ সউদী আরবে অবস্থিত।

সউদী সরকারের উচিত বিশ্বের সকল মুসলিম দেশগুলোর সমর্থন নিয়ে গ্রীনিচের পরিবর্তে কাবা শরীফ-এর উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করা। কাফিররা তা অনুসরণ করবে কী করবেনা তা তাদের নিজস্ব ব্যাপার। কিন্তু মুসলমানগণের এ ব্যাপারে দৃঢ়চিত্ততা প্রকাশ করতে হবে।

অনেক তথাকথিত মুসলিম জিএমটির পরিবর্তে কেএমটি চালুর বিষয়টি উপলব্ধি করতে না পেরে এটিকে অপ্রয়োজনীয়, জটিল, অর্থহীন এসব শব্দ ব্যবহার করে। নাঊযুবিল্লাহ! অথচ মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার নির্দেশের অনুসরণের জন্যই কেএমটির প্রচলন হওয়া দরকার। মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ করেন, “তোমরা আল্লাহ পাক উনাকে স্মরণ করো।” অথচ আমরা যখন জিএমটি অনুযায়ী সময় নির্ধারণ করি তখন ইচ্ছা অনিচ্ছায় আমরা কাফিরদের স্মরণ করি। (নাঊযুবিল্লাহ) কারণ জিএমটি নির্ধারিত হয়েছে কাফিরদের গ্রীনিচকে কেন্দ্র করে।

প্রাইম মেরিডিয়ান সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিলো ১৮৮৪ সালে। সেই সিদ্ধান্ত সর্বকালের জন্য মুসলমানগণ মানতে বাধ্য নয়। মুসলমানগণের উচিত, নতুন করে এসব বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা। কাবা শরীফ-এর উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করে নিয়ে মক্কা শরীফ-এর সময় অনুযায়ী পৃথিবীর সকল সময় অঞ্চল নির্ধারণ করাটা এখন অপরিহার্য হয়ে পড়েছে। অবশ্যই এ ব্যাপারে সউদী সরকারকে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখতে হবে।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

২৫টি মন্তব্য

  1. সুন্দর পোস্ট। প্রিয়তে রাখলাম। KMT চালু হোক, GMT নিপাত যাক। Clock

  2. সুন্দর পোস্ট। প্রিয়তে রাখলাম।

  3. জামানআখতারুজ্জামান says:

    ঐ দিন আর বেশী দূরে নয়। Clock

  4. Islamer Muncittro says:

    েক, এম,িট মান টাইম ইসলাম সম্মত হওয়ায় মুসলমানেদর পরােণর দাবী। অিচেরই চালু েহাক।

  5. গ্রীনিচের পরিবর্তে কাবা শরীফ-এর উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করা হলে গ্রীনিচের স্মরণ না করে মহান আল্লাহ পাক এবং উনার পবিত্র ঘর কা’বা শরীফ-এর স্মরণের ক্ষেত্রে বিশ্বের মুসলমানদের সবচেয়ে বেশি সহায়ক হবে যা GMT ‘র বিকল্প হিসেবে KMT (Kaba Shareef Mean Time) চালু করার অন্যতম মূল উদ্দেশ্য।
    এছাড়াও পবিত্র কা’বা শরীফ-এর উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করলে আন্তর্জাতিক তারিখ রেখার অবস্থান হয় সুবিধাজনক স্থানে। গ্রীনিচের উপরে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করা অযৌক্তিক এবং প্রচলিত আন্তর্জাতিক তারিখ রেখাও আঁকাবাঁকা।
    গ্রীনিচের উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করায় আন্তর্জাতিক তারিখ রেখা নিয়েও সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। প্রচলিত আন্তর্জাতিক তারিখ রেখা হচ্ছে ১৮০ ডিগ্রি পূর্ব এবং ১৮০ ডিগ্রি পশ্চিম দ্রাঘিমা রেখার সংযোগস্থলে। এই তারিখ রেখার পশ্চিমে রয়েছে উত্তর গোলার্ধে রাশিয়া এবং দক্ষিণ গোলার্ধে নিউজিল্যান্ড। এই তারিখ রেখা সরাসরি উত্তর গোলার্ধ থেকে দক্ষিণ গোলার্ধে নেমে যেতে পারেনি। যখনই জনবসতিপূর্ণ এলাকার উপরে এসেছে তখনি ঠেলে দেয়া হয়েছে পানির দিকে। ১৮০ ডিগ্রি দ্রাঘিমা রেখা বিচ্যুত সময় রেখার অংশগুলো হলো বেরিং প্রণালী, এলিউশিয়ান দ্বীপপুঞ্জের পশ্চিমাংশ, ফিজির পূর্বাংশ ইত্যাদি।
    বর্তমান অবস্থানে আন্তর্জাতিক তারিখ রেখা থাকায় যে সমস্যাগুলো সৃষ্টি হয়েছে তার কিছু নমুনা দেয়া যেতে পারে।
    ফিজি ১৮০ ডিগ্রি দ্রাঘিমার পশ্চিমে আর টোঙ্গা, সেমওয়া ১৮০ ডিগ্রি পূর্বে। আর কিরিবাতি দ্বীপকে ১৮০ ডিগ্রি দ্রাঘিমা রেখা দ্বি-ভাগ করেছে। কিন্তু ফিজি, টোঙ্গা এবং কিরিবাতি আন্তর্জাতিক তারিখ রেখার পশ্চিমে অবস্থান নিয়েছে আর সেমওয়া অবস্থান নিয়েছে আন্তর্জাতিক তারিখ রেখার পূর্বে। টোঙ্গা এবং সেমওয়ার সময় একই থাকলেও ১ দিনের পার্থক্য রয়েছে। আবার ফিজি এবং টোঙ্গা কাছাকাছি হলেও ফিজির সময় টোঙ্গার সময়ের চেয়ে ১ ঘণ্টা পিছিয়ে। আবার সেমওয়ার চেয়ে অনেক পূর্বে হাওয়াই দ্বীপের অবস্থান হলেও সময়ের পার্থক্য মাত্র ১ ঘণ্টা। এছাড়া ১৯৯৫ সালের পূর্ব পর্যন্ত কিরিবাতি দ্বীপে তারিখ নিয়ে ছিল গরমিল। একই দ্বীপে দুইটি তারিখ প্রচলিত ছিল। কিরিবাতির পশ্চিমাংশ সবসময় পূর্বাংশ থেকে এক দিন এগিয়ে থাকতো। সপ্তাহের মাত্র ৪ দিন দুই অংশের মধ্যে ব্যবসায়িক কাজ কর্ম সম্পাদন হতো। এ সকল সমস্যার সমাধানের জন্য ১৯৯৫ সালের পহেলা জানুয়ারিতে কিরিবাতির প্রেসিডেন্ট টিবুরোর টিটো আর্ন্তজাতিক তারিখ রেখাকে কিরিবাতির পূর্বে সরিয়ে নেবার ঘোষণা দেন।


    ”International

    কিন্তু কাবা শরীফ-এর উপর দিয়ে প্রাইম মেরিডিয়ান স্থির করলে ১৮০ ডিগ্রি দ্রাঘিমা বা আন্তর্জাতিক তারিখ রেখা যাবে আলাস্কা এবং কানাডার মাঝামাঝি স্থান দিয়ে (বর্তমান ১৪০ ডিগ্রি পশ্চিম দ্রাঘিমা রেখা বরাবর)। আন্তর্জাতিক তারিখ রেখা উত্তর প্রশান্ত মহাসাগর দিয়ে নিচে নেমে দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগর দিয়ে দক্ষিণ গোলার্ধে চলে যাবে। সম্পূর্ণ তারিখ রেখাটি যাবে পানির উপর দিয়ে ফলে স্থলভাগের ডানে ও বামে তারিখ রেখা সরিয়ে দেয়ার কোন প্রয়োজন পড়বে না।

  6. Present প্রিয়তে রাখলাম। Rose সুন্দর পোস্ট। Clock

  7. সুন্দর পোস্ট। প্রিয়তে রাখলাম।GMT ধ্বংস হোক

  8. ঐ দিন আসবে যে একবার…~~~ আমরা কে এম টি অনুযায়ী চলব… Clock

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে