আসন্ন পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার সম্মানার্থে সরকার কত টাকার বাজেট করেছে?


আসন্ন পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার সম্মানার্থে সরকার কত টাকার বাজেট করেছে? যেখানে শরীয়াত উনার দৃষ্টিতে সর্বপ্রকার খেলাধূলা হারাম আর সেই হারাম খেলাধুলার জন্য রাজধানীকে সাজাতে সরকার কোটি কোটি টাকার বাজেট করে! নাউযুবিল্লাহ! পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, 

মুসলমানদের পারিবারিক বন্ধনের প্রতি হিংসা করেই বিধর্মীরা বাল্যবিবাহের বিরোধিতা করে থাকে


বাল্যবিবাহ নিয়ে পশ্চিমা বিশ্ব এবং তাদের প্ররোচনায় এদেশেও বহু আলোচনা হচ্ছে। সরকার না বুঝে ব্রিটিশদের তৈরি আইন বলবৎ রাখছে। আমাদের সমাজের রীতিনীতি নিয়া এই সব অসভ্যদের এতো মাথা ব্যথা কেন? যাদের সমাজ থেকে বিবাহ প্রথা উঠে গেছে, যারা সমলিঙ্গে বিয়ের নামে 

পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে একটি বিশেষ দিন ‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ’


‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ’ বলতে পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার শেষ বুধবার উনাকে বলা হয়। পবিত্র ছফর শরীফ মাস ব্যতীত আর কোনো মাস উনার শেষ আরবিয়া বা বুধবারকে ‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ’ বলা হয় না। যেমন ‘আশূরা’ শব্দটি আরবী 

মহান আল্লাহ পাক উনার এবং উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের মুহব্বত, নিসবত


পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার শেষ ইয়াওমুল আরবিয়া বা বুধবারকে ফার্সী ভাষায় ‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ’ শরীফ বলা হয়। দিনটি আখিরী রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার অনেক বরকতপূর্ণ স্মৃতি ধারণ করে রেখেছে। ফলশ্রুতিতে সকল মু’মিন-মুসলমান 

নাসী’ করা তথা মাস ও তারিখকে আগে-পিছে করা কুফরী


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই নাসী (তথা মাস, দিন বা সময়কে আগে-পিছে) করা কুফরী বৃদ্ধি করে।” নাউযুবিল্লাহ! অর্থাৎ এক কুফরী আরো শত কুফরীকে, এক হারাম আরো শত হারামকে ডেকে আনে। তেমনি পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার ব্যাপারে আক্বীদা 

আরবী সনের দ্বিতীয় মাস উনার নাম ‘ছফর’ রাখার কতিপয় কারণ


আরবী সনের দ্বিতীয় মাস ‘পবিত্র ছফর শরীফ’। ‘ছফর’ শব্দটি একবচন। এর বহুবচন আছফার। ‘ছফর’ শব্দের অর্থ এবং এ নামে মাসটির নামকরণ সম্পর্কে কয়েকটি বর্ণনা পাওয়া যায়। (১) ‘ছফর’ অর্থ খালি হওয়া। পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার পূর্ববর্তী ‘পবিত্র মুহররমুল হারাম শরীফ 

” আরবী সনের দ্বিতীয় মাস উনার নাম ‘ছফর’ রাখার কতিপয় কারণ “


আরবী সনের দ্বিতীয় মাস ‘পবিত্র ছফর শরীফ’। ‘ছফর’ শব্দটি একবচন। এর বহুবচন আছফার। ‘ছফর’ শব্দের অর্থ এবং এ নামে মাসটির নামকরণ সম্পর্কে কয়েকটি বর্ণনা পাওয়া যায়। (১) ‘ছফর’ অর্থ খালি হওয়া। পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার পূর্ববর্তী ‘পবিত্র মুহররমুল হারাম শরীফ 

কোরআনের বিষ্ময়কর দিক – ফেরাউনের লাশ


কোরআনে অনেক বিষয়ে অনেক আলোচনা এসেছে, যেমনঃ ঐতিহাসিক ঘটনা নিয়ে অনেক আয়াত এসেছে, যা আধুনিক বিজ্ঞান ছাড়া প্রমাণ করা যাবেনা। যেমনঃ হযরত কালীমুল্লাহ আলাইহিস সালাম ও ফেরাউনের ঘটনা, কোরআন ফেরাউনের ডুবে মরার কথা বলেছে এবং পরবর্তী মানুষের জন্য শিক্ষা ও উপদেশ 

যাকাত-উশর যথাযথভাবে দিলে বন্যা, তুফানে, খরায় ফসল নষ্ট হবে না


পত্রিকার পাতা খুললে সংবাদ দেখা যায়, “বন্যায় তলিয়ে গেছে হাজার হাজার একর জমি”। “খরায় ফসল নষ্ট।” “ভেসে গেছে মাছ”। ইত্যাদি ক্ষয় ক্ষতির বিবরণ। এর কারণ কি? পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “যমীনে ও পানিতে যত মাল সম্পদ বিনষ্ট 

পবিত্র ছফর শরীফ মাস বরকত, রহমত ও রহস্যময় এক মাস


মহান আল্লাহ পাক রব্বুল আলামীন উনার পক্ষ থেকে বান্দার প্রতি গণনার সুবিধার্থে দান করা ১২টি মাস উনাদের মধ্যে পবিত্র ছফর শরীফ মাস অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ। এ পবিত্র মাস অবারিত রহমত, বরকত, সাকীনা ও মাগফিরাত দ্বারা বেষ্টিত। সুবহানাল্লাহ! এক নজরে পবিত্র ছফর শরীফ 

অশুভ বা কুলক্ষণ বিশ্বাস করা কুফরী


ফক্বীহুল উম্মত হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার থেকে বর্ণনা করেন। মহান আল্লাহ পাক উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, 

নূরে মুজাস্সাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি প্রাণীর ছবি ধ্বংস করে ফেলতেন আর আপনি তা তৈরি


বুখারী শরীফ ২য় যিলদ ৮৮০পৃষ্ঠায়- মিশকাত শরীফ ৩৮৫ পৃষ্ঠায় উল্লেখ রয়েছে- ﻋﻦ ام الـمؤمنين حضرت ﻋﺎﺋﺸﺔ ﻋﻠﻴﻬﺎ ﺍﻟﺴﻼﻡ ﺣﺪﺛﺘﻪ ﺍﻥ ﺍﻟﻨﺒﻰ ﺻﻠﻰ ﺍﻟﻠﻪ ﻋﻠﻴﻪ ﻭﺳﻠﻢ ﻟﻢ ﻳﻜﻦ ﻳﺘﺮﻙ ﻓﻰ ﺑﻴﺘﻪ ﺷﻴﺌﺎ ﻓﻴﻪ ﺗﺼﺎﻟﻴﺐ ﺍﻻ ﻧﻘﻀﻪ অর্থ: উম্মুল মুমিনীন হযরত আয়িশা ছিদ্দীকা