ব্রিটিশ প্রবর্তিত SIR এবং MADAM পরিহার করুন!


ব্রিটিশ প্রবর্তিত SIR এবং MADAM পরিহার করুন! SIR এবং MADAM শব্দ দুটো বেশ প্রচলিত। কথিত মুসলমানও বলে যাচ্ছে অবলীলায়। কিন্তু এই দুটি শব্দ কিভাবে এসেছে তা কি কখনো ভেবে দেখেছে? ১) SIR: কথিত ‘স্যার’ শব্দটি যতখানি কথিত সম্মানের, তার চেয়ে বেশি 

আখিরী চাহার শোম্বা শরীফ উপলক্ষে সর্বশ্রেষ্ঠ আমল সুন্নতী আমলসমূহ


কোন আমলই পবিত্র সুন্নত মুবারক ব্যতীত পূর্ণতায় পৌঁছেনা। পবিত্র সুন্নত মুবারক উনার মধ্যেই রয়েছেন শতভাগ রহমত বরকত ও সাক্বীনা। আর এই অবারিত রহমত মুবারক নিয়ে এলেন পবিত্র আখেরী চাহার শোম্বাহ শরীফ। যে দিনটিতে কিছু সুন্নতী আমল তথা সর্বশ্রেষ্ঠ ও সর্বোত্তম আমল 

পবিত্র সুন্নত মুবারক উনার বিরোধিতাকারীরাই পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার বিরোধিতাকারী


হযরত ইমাম মালিক রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার মুয়াত্তা শরীফ উনার মধ্যে বর্ণনা করেন, মহান আল্লাহ পাক উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “আমি তোমাদের জন্য দুটি পবিত্র নিয়ামত মুবারক রেখে যাচ্ছি, এই দুটি 

সম্মানিত জিহাদ উনার বিরোধিতাকারীরা মুসলমান নয়


সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার আবশ্যকীয় বিধান সমূহের মধ্যে সম্মানিত জিহাদও একটি। সম্মানিত দ্বীন ইসলাম ও সম্মানিত মুসলমান উনাদের শত্রু হচ্ছে তাবৎ কাফির, মুশরিক ও মুনাফিকরা। অর্থাৎ ইহুদী, নাছারা, বৌদ্ধ, মজূসী ইত্যাদি ধর্মাবলম্বীরা। তারা সম্মানিত মুসলমান ও সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনাদের বিরোধিতা 

পর্দা পালনে নারীদের অনীহা কেন?


অনেক মহিলা এমন আছে, পাঁচ ওয়াক্ত নামায পড়ে রোযা রাখে এমনকি অনেক নফল ইবাদত করে থাকে, কিন্তু পর্দাকে কোন গুরুত্ব দেয় না। এর মধ্যে অনেকে বোরকা পরেনা, অনেকে বোরকা পরেও বোরকা না পরার সমান। কারণ এই বোরকাতে তাদের দেহের আকৃতি সম্পূর্ণ 

সরকারের বোনাস-ভাতা দেয়ার উদ্দেশ্য কি হওয়া উচিত?


সরকার বিভিন্ন উৎসব উপলক্ষে চাকুরিজীবীদের বোনাসসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দেয়। উদ্দেশ্য হচ্ছে চাকুরিজীবিরা যাতে উৎসবটি ভালভাবে উৎযাপন করতে পারে। বাংলাদেশের ৯৮% মানুষ মুসলমান। সেই হিসেবে সরকারের বোনাসসহ যাবতীয় কার্যক্রম মুসলিমকেন্দ্রিক অর্থাৎ মুসলমানদের সাথে সংশ্লিষ্ট উৎসবকে কেন্দ্র করে হওয়া উচিত। লেখা বাহুল্য, মুসলমানদের 

‘বেপর্দা হলেই লানত’


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “দাইয়ুছ পবিত্র জান্নাত উনার মধ্যে প্রবেশ করতে পারবে না।” যে ব্যক্তি নিজে পর্দা করে না এবং তার অধীনস্থদের পর্দা করায় না- সে ব্যক্তিই দাইয়্যুছ। এ পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার থেকে বুঝা গেল যে, 

গোল্ডেন রাইস (জিএমও) চাষ করার বুদ্ধিদাতারা দেশ ও জাতির শত্রু


বিশ্বব্যাপী নিষিদ্ধ জিএমও ক্রপ্স (জেনেটিক্যাল মডিফাইড খাদ্য শস্য) বাংলাদেশের মতো খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ একটি দেশে কী করে অনুমোদিত হতে পারে, তা সত্যিই আশ্চর্যের বিষয়। আমাদের দেশে এই আত্মঘাতী বীজ বাণিজ্যিকিকরণের পেছনে কে বা কারা কাজ করছে তাদেরকে চিহ্নিত করা ও খুঁজে বের 

পবিত্র সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিল আ’দাদ শরীফ পবিত্র ১২ই রবীউল আউওয়াল শরীফ উনার সম্মানে যারা খুশি প্রকাশ করে না তারা চরম


মুসলমানগণ আজ পবিত্র ঈমানী ও পবিত্র রূহানী শক্তি হারিয়ে চরম বিভ্রান্তিতে নিপতিত হয়েছে। নিজেদের ঐতিহ্য ও গৌরব তারা ভুলে গিয়ে বিধর্মীয় তথা বিজাতীয় ব্যবস্থার প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়ছে। মুসলমান শুধু নামে আর কিছু রছম-রেওয়াজ নিয়ে ব্যস্ত। অধিকাংশ মুসলমান জানে না যে, 

“শেষ যামানায় মানুষ মূর্খদেরকে নেতা হিসাবে গ্রহণ করবে”


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “শেষ জামানায় মানুষ মূর্খ লোকদেরকে নেতা হিসাবে গ্রহণ করবে এবং তাদের পরামর্শ অনুযায়ী চলবে।” পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার বাস্তবতায়ও তাই দেখা যাচ্ছে। যেমন- (১) এখন বাংলাদেশ সরকারের আমলা-কামলাদের কারনে ধ্বংস হচ্ছে আমাদের দেশের 

নারী সম্ভ্রমহানী কমাতে চান? আগে নাটক-সিনেমা নিষিদ্ধ করুন


আজকাল অনেকেই সমাজে নারী নির্যাতন বিশেষ করে নারী সম্ভ্রমহানি বেড়ে যাওয়ার কারণে উদ্বিগ্ন। কিন্তু এটা সত্য, বাংলাদেশে নারী সম্ভ্রমহানি বৃদ্ধি পাওয়ার অন্যতম কারণ হচ্ছে, নাটক-সিনেমায় ছয়লাব হওয়া। এখন শুধু সিনেমা হল, কম্পিউটার-ল্যাপটপ নয়, হাতের মুঠোফোনগুলোতে ক্যান্সারের মতো ছড়িয়ে পড়েছে নাটক-সিনেমা। মোবাইলে 

হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি মহাসম্মানিত নূর মুবারক হিসেবেই সৃষ্টি হয়েছেন। সুবহানাল্লাহ!


মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র সূরা মায়িদা শরীফ উনার ১৫ নং পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, অবশ্যই মহান আল্লাহ পাক উনার তরফ থেকে তোমাদের নিকট মহাসম্মানিত নূর মুবারক তাশরীফ মুবারক গ্রহণ করেছেন। সুবহানাল্লাহ! অনুসরণীয় হযরত মুফাসসিরীনে কিরাম উনারা