ঈদে মীলাদুন নবী’ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যদি ঈদ হতো এবং সকল ঈদের সেরা ঈদ হতো, তবে এখানে ছলাত


  পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যেহেতু সাইয়্যিদুল আইয়াদ, অর্র্থাৎ সকল ঈদের সেরা ঈদ সেহেতু এ ঈদে এমন ছলাত রয়েছে, সে ছলাত শুধু ডবলই নয় বরং দায়িমী ছলাত। এ ছলাত শুরু হয়েছে সৃষ্টির শুরু থেকে এবং এটা জারী 

আল্লাহ পাক উনার নিকট একমাত্র মনোনীত দ্বীন হচ্ছেন সম্মানিত ও পবিত্র দ্বীন ইসলাম।”


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন,   “নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট একমাত্র মনোনীত দ্বীন হচ্ছেন সম্মানিত ও পবিত্র দ্বীন ইসলাম।” সুবহানাল্লাহ!   অর্থাৎ ‘সম্মানিত ও পবিত্র দ্বীন ইসলামই হচ্ছেন মহান আল্লাহ পাক উনার এবং উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, 

হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনাকে যেই সকল সম্মানিত মুবারকবিষয় গুলো হাদিয়া মুবারক করা হয়েছিলো


আযীমুশ শান মহাসম্মানিত নিসবতে আযীম শরীফ-এ হাদিয়া মুবারক বিভিন্ন কিতাবের বর্ণনা অনুযায়ী নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পক্ষ থেকে আযীমুশ শান মহাসম্মানিত নিসবতে আযীম শরীফ-এ উম্মু আবীহা সাইয়্যিদাতুনা আন নূরুর রাবি‘য়াহ হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনাকে 

সম্মানিত মুসলমান উনাদের ব্যক্তিগত পারিবারিক এবং দ্বীনি স্বাধীনতা হরনের আইন হলো “বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন”


বাংলাদেশের সংবিধান এদেশের একজন ব্যাক্তিকে তার স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য অধিকার দিয়েছে। বাংলাদেশের সংবিধান এদেশের মুসলমান উনাদেরকে তাদের পারিবারিক বিষয়সমূহ পারিবারিকভাবে সমাধা করার অধিকার দিয়েছে। বাংলাদেশের সংবিধান এদেশের নাগরিককে তার ধর্মীয় অধিকার প্রয়োগ করার, পালন করার, প্রচার করার পূর্ন অধিকার দিয়েছে। 

মুসলমান মর্দে মুজাহিদ বীরের জাতি। কাফির মুশরিক সন্ত্রাসীদের ভয়ে ভীতু কাপুরুষের মতো পিছু হটতে পারে না


  একবার চিন্তা ফিকির করে দেখুন, ইরাক সিরিয়ার মুসলমান নামধারী যুবক যুবতীগুলো খেলাধূলায় ব্যাস্ত, নাটক সিনেমায় ব্যাস্ত, ইন্টারনেট ফেইসবুক চ্যাটিং এ ব্যাস্ত, গল্প গুজব আড্ডা আর হানিমুনে ব্যাস্ত, ওদের সময় নাই- ইসলাম শিখার, ওদের সময় হচ্ছেনা ইসলাম চর্চা করার, ওদের সময় 

মুশরিকরা জাতে মাতাল তালে বেঠিক- বলেই ইসলাম ও মুসলিম বিদ্বেষে কমতি করেনা!


বিধর্মী বিজাতী ইহুদী মুশরিকরা কোন কালে কখনোই সভ্য মুসলমান উনাদের বন্ধু ছিলো না, বন্ধু হতে পারে না। এই বিষয়টি পবিত্র কুরআন শরীফ ও সুন্নাহ শরীফ উনাদের মাঝে বিশদভাবে অত্যন্ত পরিষ্কার ভাষায় বলে দেয়া হয়েছে। তারপরও দ্বীন ইসলাম হতে বিমুখ হয়ে পড়া 

খুঁদে বিজ্ঞানী মুহম্মদ শাহাবুদ্দীন সামির যত আবিষ্কার


ঝড় হাওয়ার কবলে পড়লে, যথাযথ ফিটনেস না থাকলে, দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় আইন অমান্য করে চালালে বা চালকের অদক্ষতার কারণে ডুবে যেতে পারে একটি লঞ্চ। ফলে আবিষ্কারক মুহম্মদ শাহাবুদ্দীন সামি উনার খুব ইচ্ছা হলো এমন কিছু আবিষ্কার করতে, যাতে ডুবে যাওয়া লঞ্চ খুঁজে 

প্রত্যেক মুসলমানের জন্য পহেলা বৈশাখ পালন করা হারাম ও কুফরীঃ


প্রত্যেক মুসলমানের জন্য পহেলা বৈশাখ পালন করা হারাম ও কুফরীঃ প্রশ্নঃ পহেলা বৈশাখ পালন করা কেন হারাম ?? উত্তরঃ নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হিজরতের পর মদীনা শরীফ গিয়ে ঐ এলাকাবাসীর দুটি উৎসব বন্ধ করেছিলেন। একটি হচ্ছে, বছরের প্রথম দিন 

যে ভারতীয় চ্যানেলে মুসলমান শাসকদের ভিলেন হিসেবে দেখানো হয়, তা মুসলিমপ্রধান এদেশে প্রচারিত হয় কিভাবে?


  হিন্দি সিরিয়ালের প্রযোজকরা যেসব সিরিয়াল তৈরি করে, তাদের মধ্যে অন্যতম হলো কথিত ঐতিহাসিক তথা মিথ্যা ইতিহাসে ভরপুর কিছু সাম্প্রদায়িক সাম্প্রদায়িকতাপূর্ণ নাটক। এ ভারতবর্ষে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার সবচেয়ে বড়শত্রু ছিল পৃথ্বীরাজ, শিবাজী, মারাঠা, রাজপুতরা। তারা হলো হিন্দুদের নায়ক। তাদের নামানুসারে 

মুসলমান হারাম-নাজায়িয ও বেদ্বীনী-বদদ্বীনী কাজে মশগুল থাকার কারন


সম্মানিত ইসলামী তর্জ-তরীক্বা এবং পর্বগুলোকে গুরুত্ব না দেয়া এবং পালন না করার কারণেই মুসলমান হারাম-নাজায়িয ও বেদ্বীনী-বদদ্বীনী কাজে মশগুল হয়ে থাকে। নাউযুবিল্লাহ! মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট একমাত্র মনোনীত দ্বীন হচ্ছেন সম্মানিত ও 

ইমামে আযম ,ইমাম আবু হানিফা রহমাতুল্লাহি আলাইহি উনার প্রতি বাত্বিল ফির্কাদের মুরজিয়া অপবাদের দলিলভিত্তিক জবাব।


বর্তমানে সালাফী,লা-মাজহাবীরা তাদের কিতাবাদি,ব্লগ,ফেসবুক আইডিতে প্রচার করে যাচ্ছে ইমাম আবু হানিফা রহমাতুল্লাহি নাকি মুরজিয়া ছিলেন।নাউজুবিল্লাহ। তারা দলিল হিসেবে পেশ করে থাকে বড় পীর গাউসুল আযম রহমাতুল্লাহি আলাইহি উনার গুনিয়াতুত ত্বলিবিন ও ইমাম বুখারী রহমাতুল্লাহি আলাইহি উনার তারীখুল কবীর কিতাবের কাটছাট , 

হযরত আহলি বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের ফাযায়িল ফযিলত।


হযরত আহলি বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের ফাযায়িল ফযিলত। *************************************************************************** হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বতকারীগণ নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে একত্রিত হবেন ********************************************************************** সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, عَنْ