সামরিক সারঞ্জাম তৈরি ও ব্যবহারে মুসলিম বিজ্ঞানীদের অবদান


মুসলমানগণ বিজ্ঞানের অন্যান্য বিষয়গুলোর মত সামরিক বিজ্ঞানেও প্রভূত উন্নতি সাধন করেন। যদিও বর্তমানে ষষ্ঠ হিজরী শতকের আগ পর্যন্ত এ বিষয়ে তেমন উল্লেখজনক কোন বই পাওয়া যায় না। তবে ষষ্ঠ থেকে পরবর্তী ২০০ বছরের ভিতরে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক গ্রন্থ পাওয়া যায়। সম্ভবত ক্রুসেডের 

সম্প্রতি ক্রাইস্টচার্চে ঘটে যাওয়া ঘটনা সম্প্রতি ক্রাইস্টচার্চে ঘটে যাওয়া ঘটনা প্রসঙ্গে


মুসলমানরা যদি ইহুদীবাদীদের খপ্পর থেকে বের হয়ে আসতে চায়, তবে তাদের ‘টাইম-নলেজ-মানি’ এই তিনটি বিষয় নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। যতদিন এগুলো অমুসলিমদের নিয়ন্ত্রণে থাকবে, ততদিন মুসলমানরা কিছুই করতে পারবে না, তাদেরকে অমুসলিমদের নিয়ন্ত্রণ স্বীকার করে নিতে হবে। যদি মুসলমানরা চায়, ফের 

ঐতিহাসিক ইয়ারমূকের জিহাদ!


রোমান সৈন্যদের একদল কানাতীরের নেতৃত্বে লাজিকিয়ার পথ ধরে এগুতে আরম্ভ করলো। আরেকদল জার্জিরের নেতৃত্বে জাদাতুল উজমার ও সাওমীনের পথ ধরে এগুতে থাকলো। আরেকদল কাওরীনের নেতৃত্বে হালাব ও হামাতের পথ ধরে এগুতে থাকলো। আরেকদল দীরজানের নেতৃত্বে আওয়াসিমের পথ ধরে এগুতে থাকলো। মাহান 

১ লা রজবুল হারাম শরীফ হযরত আবু রসূলিনা ও উম্মু রসূলিনা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের নিসবাতুল আযীম শরীফ


সময়টি ছিল নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বরকতময় বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশের ৮ মাস ১২ দিন পূর্বে মহাসম্মানিত রজবুল হারাম শরীফ উনার পহেলা তারিখ লাইলাতুল জুমুয়াহ শরীফ। এই মহাসম্মাণিত দিনে সাইয়্যিদুনা হযরত যবীহুল্লাহ আলাইহিস সালাম ও 

৬ ই রজবুল হারাম শরীফ হযরত খাজা ছাহেব রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার বিছালী শান মুবারক প্রকাশ দিবস


সম্রাট আলমগীর (আড়ঙ্গজেব) রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি একদা হযরত খাজা গরীবে নেওয়াজ রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার মাজার শরীফ জিয়ারত করতে গেলেন৷ সেখানে তিনি দরবার শরীফে ফরিয়াদ রত এক অন্ধকে দেখতে পেলেন। অন্ধ ব্যক্তিটি আরজ করছেন, “ইয়া খাজা মুঝে আঁখ দে দো” অর্থ্যাৎ “ওহে 

সম্প্রতি ক্রাইস্টচার্চে ঘটে যাওয়া ঘটনা সম্প্রতি ক্রাইস্টচার্চে ঘটে যাওয়া ঘটনা প্রসঙ্গে


মুসলমানরা যদি ইহুদীবাদীদের খপ্পর থেকে বের হয়ে আসতে চায়, তবে তাদের ‘টাইম-নলেজ-মানি’ এই তিনটি বিষয় নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। যতদিন এগুলো অমুসলিমদের নিয়ন্ত্রণে থাকবে, ততদিন মুসলমানরা কিছুই করতে পারবে না, তাদেরকে অমুসলিমদের নিয়ন্ত্রণ স্বীকার করে নিতে হবে। যদি মুসলমানরা চায়, ফের 

আপনি মুসলিম, নাকি মানুষ…?


অনেকেই এখন আধুনিক রং ঢংয়ে বলে থাকে- সে প্রথমে মানুষ, এরপর বাঙালি, এরপর সে মুসলমান।’ কিছু তথাকথিত, প্রগতিশীল, মুক্তমনা, নামধারী মুসলিমরাও এরকম বলে থাকে। মূলত, এই তত্ত্বটি(!) একটি বিবর্তনবাদী নাস্তিক্যবাদীদের বুলি। প্রকৃতপক্ষে তারা মুসলমানের খোলসে থাকলেও তারা আসলে মুসলমান নয়! তারা 

পবিত্র রজবুল হারাম শরীফ মাস সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা রজবুল হারাম মাস উনার নামকরণ:


পবিত্র রজব মাসের নাম রজব হওয়ার ব্যাপার নানারূপ মতো রয়েছে। মূলত, রজব শব্দটি ‘তারজীব’ শব্দ হতে নির্গত। তারজীব শব্দের অর্থ কোনো জিনিস তৈরি করা বা অগ্রসর হওয়া। নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ করেন, “মাহে রজবে 

পবিত্র সুন্নত উনাকে অনুসরণ করলেই বিরাট সফলতা লাভ করা যাবে


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “যে ব্যক্তি মহান আল্লাহ পাক উনার এবং উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে ইতায়াত করবে সে বিরাট সফলতা লাভ করবে।” সুবহানাল্লাহ! মূলত, একজন বান্দা-বান্দীর কামিয়াবী 

মুসলমানকে মুসলমান হতে হবে এবং ঈমানী দায়িত্ব তাদের মধ্যে জাগ্রত করতে হবে


মুসলমান মানেই হচ্ছেন সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে দায়িম-ক্বায়িম থাকা এবং সম্মানিত শরীয়ত উনার আদেশ, নির্দেশ পরিপূর্ণভাবে পালন করা। কিন্তু এখন মুসলমানরা ইসলামী শরীয়ত উনার আদেশ নির্দেশ যথাযথভাবে পালন করতে পারে না। যার জন্য মুসলিম জাতির ঈমানী কুওওয়াত (শূণ্যের) কোঠায়। নাঊযুবিল্লাহ! 

আজ সুমহান পবিত্র ৯ই রজবুল হারাম শরীফ। সুবহানাল্লাহ! আওলাদে রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, হযরত সাইয়্যিদাতুল উমাম আল খ্বমিসাহ


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করা হয়েছে, “প্রত্যেক সন্তানই তার আক্বীক্বার সাথে আবদ্ধ।” নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করার ৭ম দিনে আক্বীক্বা 

পবিত্র রজবুল হারাম শরীফ মাস সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা রজবুল হারাম মাস উনার নামকরণ:


পবিত্র রজব মাসের নাম রজব হওয়ার ব্যাপার নানারূপ মতো রয়েছে। মূলত, রজব শব্দটি ‘তারজীব’ শব্দ হতে নির্গত। তারজীব শব্দের অর্থ কোনো জিনিস তৈরি করা বা অগ্রসর হওয়া। নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ করেন, “মাহে রজবে