নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি অবশ্যই পবিত্র ইলমে গইব উনার অধিকারী।


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘আমাকে মহান আল্লাহ পাক উনার তরফ থেকে সৃষ্টির শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সব বিষয়ের সমস্ত পবিত্র ইলম মুবারক হাদিয়া মুবারক করা হয়েছে।’ সুবহানাল্লাহ! নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক 

পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে একটি বিশেষ দিন‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ’


‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ’ বলতে পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার শেষ বুধবার উনাকে বলা হয়। পবিত্র ছফর শরীফ মাস ব্যতীত আর কোনো মাস উনার শেষ আরবিয়া বা বুধবারকে ‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ’ বলা হয় না। যেমন ‘আশূরা’ শব্দটি আরবী 

দেশে সরকারিভাবে সব নাগরিকের জন্য সামরিক প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক করতে হবে


মুসলমানের জান-মাল রক্ষা করা যেমন ফরয, তেমনি তা রক্ষার জন্য জিহাদী যোগ্যতাও অর্জন করা জরুরী। পবিত্র মুসলিম শরীফ’ ও ‘মুসনদে আহমদ শরীফ’ উনাদের মধ্যে রয়েছে- হযরত সালমান ইবনে আকওয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন, “মহান আল্লাহ পাক উনার রসূল, নূরে 

পেঁচার মধ্যে কুলক্ষণের কিছু নেই


পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের দৃষ্টিতে সম্মানিত আহলুস সুন্নাহ ওয়াল জামায়াহ উনাদের আক্বীদাহ হলো, “অশুভ বা কুলক্ষণ বলতে কিছু নেই, তবে সুলক্ষণ বা শুভ বিষয় রয়েছে।” তাই পেঁচার মধ্যে কুলক্ষণের কিছু নেই। অতএব, পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনাকে 

মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট পছন্দনীয় ও পবিত্র মাস হচ্ছেন ছফর শরীফ মাস


মহান আল্লাহ পাক রব্বুল আলামীন তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট আসমান-যমীনের সৃষ্টির শুরু থেকে গণনা হিসেবে মাসের সংখ্যা ১২টি। তন্মধ্যে ৪টি হচ্ছে হারাম বা পবিত্র মাস। এটা সুপ্রতিষ্ঠিত বিধান। সুতরাং তোমরা এ মাসগুলোতে নিজেদের প্রতি যুলুম 

মায়ানমার : বাংলাদেশের নিরবতা যাকে বেপরোয়া করেছে


মায়ানমার সরকার বলেছে, “ত্রাণের টাকার লোভে বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের ফেরত দিচ্ছে না।” তাদের দাবি- তারা নাকি রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে চায়, কিন্তু আশঙ্কা করছে- ত্রাণের টাকার লোভে বাংলাদেশ তাদের ফেরত দিতে চাইবে না। (http://bit.ly/2h4rPdb) ১) বেশ অনেক বছর আগে থেকেই মায়ানমার রোহিঙ্গাদের মিথ্যা 

গতকয়েক দিন যাবত মিডিয়ায় ‘পরকীয়ার কারণে মৃত্যু’ বাক্যটি বার বার উচ্চারিত হচ্ছে। খবরে এসেছে-


“পরকীয়ার কারণে তৈরী হচ্ছে নানান সামাজিক অপরাধ। এর পরিণতিতে খুন-খারাবি হচ্ছে নিয়মিত। কয়েকদিন আগে রাজধানী ঢাকার বাড্ডায় জামিল শেখ নয় বছরের মেয়েসহ খুন হয়েছেন স্ত্রীর পরকীয়ার বলি হয়ে। ২১ অক্টোবর চট্টগ্রামের মিরসরাই এ ফারুককে হত্যা করেছে তার স্ত্রী জেসমিন আক্তার। ১২ 

পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হচ্ছে হযরত নবী করীম ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিশেষ মর্যাদা।


পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হচ্ছে হযরত নবী করীম ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিশেষ মর্যাদা। এই বিষয় সবাই বুঝতে পারে না। না পেরে বিরোধীতা করে। কারা বুঝতে পারে আর কারা বিরোধীতা করে সেটা আল্লাহ পাক বলে দিয়েছেন, 

এতিম রোহিঙ্গা শিশু এবং পোপ ফ্রান্সিসের আগমণ


একজন মানুষ বিপদে পড়লে কয়েক ধরনের লোক তার কাছে যায়। প্রত্যেকে যায় সাহায্য-সহানুভূতি দেখিয়ে, কিন্তু অধিকাংশর চিন্তার আড়ালে থাকে নিজের স্বার্থ উদ্ধার ।যেমন রোহিঙ্গারা বিপদে পড়েছে, – রাজনীতিবিদরা গেছে নির্বাচনী প্রচার করতে। – স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা গেছে কমমূল্যে স্বর্ণ কিনতে, – নারী 

সৃজনশীল-এর দোহাই দিয়ে জাতিকে পঙ্গু করার ষড়যন্ত্র: ৫২ শতাংশের বেশি শিক্ষক এখনো সৃজনশীল বোঝে না


দেশে অর্ধেকের বেশি (৫২.০৫%) মাধ্যমিক শিক্ষক কথিত সৃজনশীল পদ্ধতি বোঝেই না। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা (মাউশি) অধিদপ্তরের একাডেমিক পরিদর্শন প্রতিবেদন তা-ই বলছে। চলতি ২০১৭ সালের গত মে মাসে ১৮ হাজার ৫৯৮টি মাধ্যমিক স্কুলে পরিদর্শন করে মাউশি তা জানতে পেরেছে। তা 

প্রত্যেক মুসলমানের উচিত, নিজ সন্তানদেরকে তাদের শত্রু সম্পর্কে অবহিত করা।


আমরা মুসলমান। কে বা কারা আমাদের প্রধান ও আসল শত্রু তা আমরা জানি না। আমরা তা জানার জন্য চেষ্টাও করি না। আমাদের মাতা-পিতারাও আমাদেরকে শিখান না কে বা কারা আমাদের শত্রু। অথচ ইহুদী নাছারা, কাফির, মুশরিক, বেদ্বীন, বদদ্বীনেরা তাদের সন্তানদেরকে জন্মের 

পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনাকে অশুভ ও কুলক্ষণ মনে করা কাট্টা কুফরীর শামিল


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, হযরত আবূ হুরায়রা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন, মহান আল্লাহ পাক উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “সংক্রামক রোগ বলতে কিছু নেই। পেঁচার