নারীর পোষাক ও নির্যাতন প্রসঙ্গে


চ্যানেল ২৪ এ ‘জাগো বাংলাদেশ’ নামক একটা প্রোগ্রাম হয়। প্রোগ্রামটিতে উপস্থাপনা করে টিভি অভিনেতা মোশাররফ করিম। মোশররফ করিম অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে বলে, “মেয়েরা কি স্বাধীনভাবে পোষাক পড়বে না ? পোষাকের কারণেই যদি নারী নির্যাতিত হতো, তবে ৫ বছরের শিশু কেন নির্যাতিত 

আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, সিবত্বতু মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম, জান্নাতী মেহমান, সাইয়্যিদাতুল উমাম সাইয়্যিদাতুনা হযরত শাহ


মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের পবিত্রতা মুবারক সম্পর্কে মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, اِنَّـمَا يُرِيْدُ الله لِيُذْهِبَ عَنْكُمُ الرِّجْسَ اَهْلَ الْبَيْتِ وَيُـطَـهِّـرَكُمْ تَطْهِيْرًا. অর্থ: “হে মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম! 

আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, সিবত্বতু মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম, জান্নাতী মেহমান, সাইয়্যিদাতুল উমাম সাইয়্যিদাতুনা হযরত শাহ


সিবত্বতু মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম, জান্নাতী মেহমান, সাইয়্যিদাতুল উমাম সাইয়্যিদাতুনা হযরত শাহ নাওয়াসী আর রবি’য়াহ আলাইহাস সালাম তিনি হচ্ছেন সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাস্সাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস 

সম্মানিত ‘মাহে রজব’ উনার মর্যাদা মর্তবা, ফাযায়িল-ফযীলতের একটি অন্যতম কারণ হচ্ছে ‘পবিত্র লাইলাতুর রগায়িব শরীফ’


পবিত্র রজবুল হারাম শরীফ মাস উনার মর্যাদা-মর্তবা বলার অপেক্ষা রাখে না। বছরের যে পাঁচটি রাতে বিশেষভাবে দোয়া কবুল হয়, পবিত্র রজবুল হারাম শরীফ মাস উনার পহেলা রাত্রটি তার মধ্যে সর্বপ্রথম। অতঃপর এ বরকতময় মাসের প্রথম জুমুয়াহ শরীফ রাত্রটি হচ্ছে ‘পবিত্র লাইলাতুর 

‘মাহ্ফূয, মা’ছূম এবং মুত্বহ্হার ও মুত্বহ্হির’ সম্মানিত লফ্য মুবারক উনাদের সম্মানিত তাৎপর্য মুবারক


হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তা‘য়ালা আনহুম উনাদের এবং হযরত আউলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনাদের শান মুবারক-এ বলা হয় ‘মাহ্ফূয’। হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের সম্মানিত শান মুবারক-এ বলা হয় ‘মা’ছূম’। আর স্বয়ং সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ 

মুসলিম শাসনামলের বিস্ময়কর আবিষ্কারক যাঁরা


মানব সভ্যতার ক্রমবিকাশে মুসলিম শাসনামলের মনীষীদের অবদান অবিস্মরণীয়। যুগ যুগ ধরে গবেষণা ও সৃষ্টিশীল কাজে তাদের একাগ্রতা প্রমাণিত।   বিজ্ঞানের বিভিন্ন ক্ষেত্রে তাদের নিজস্ব ধ্যান ধারণা সভ্যতার বিকাশকে করেছে আরও গতিশীল। রসায়ন, পদার্থ, জীববিজ্ঞান, কৃষি, চিকিৎসা, জ্যোতির্বিজ্ঞান, দর্শন, ইতিহাস সর্বত্র ছিল 

তবে কি বাংলাদেশে জিএমও ফুড আনা হচ্ছে কেমোথেরাপি ব্যবসা বৃদ্ধির জন্য ?


ক্যান্সার কি আদৌ কোন অসুখ ? নাকি ঔষধ কোম্পানিগুলোর ব্যবসার ফাঁদ ?–এ প্রশ্নের উত্তর দিতে , বই লিখেছিলো জি. এডওয়ার্ড গ্রিফিন । তার বইয়ের নাম ‘ওয়ার্ল্ড উইদাউট ক্যান্সার’। বইটির ব্যাপক জনপ্রিয়তা পাওয়া সত্ত্বেও বইটি অন্য ভাষায় অনুবাদ করতে দেওয়া হয়নি। কারণ 

মানব ইতিহাসের চিরস্থায়ী মহানজন


ডক্টর মাইকেল হার্ট, জ্যোতির্বিজ্ঞানী ও গাণিতবিদ, তিনি মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসায় কাজ করতেন। ঐতিহাসিক গবেষণা এ বিজ্ঞানীর মজার শখ ছিল। তিনি লক্ষ্য করলেন যে, কোটি কোটি মানুষের মাঝে বিশ্বকোষ মাত্র বিশ হাজার মানুষ ছাড়া অন্য কাউকে উল্লেখ করেনি, তখন তিনি তাদের 

তোমরা তোমাদের সন্তানদেরকে তিনটি বিষয়ে যথাযথ শিক্ষা প্রদান করো-


“সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম উনার থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, তোমরা তোমাদের সন্তানদেরকে তিনটি বিষয়ে যথাযথ শিক্ষা প্রদান করো- ১. তোমাদের যিনি নবী, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর 

كل مصور فى النار


প্রাণীর ছবি তোলা আকা রাখা সম্পর্কে আলোচনা- فَاجْتَنِبُوا الرِّجْسَ مِنَ الْأَوْثَانِ وَاجْتَنِبُوا قَوْلَ الزُّور “ তোমরা ছবি বা মূর্তির অপবিত্রতা থেকে বেঁচে থাক এবং মিথ্যা কথা থেকে বেঁচে থাক।” (সুরা হজ্জ্বঃ৩০) ছবি বা মূর্তি এধরণের যা আছে সেটা হাতে আঁকা হতে 

মানুষের অনেক গুলো বদ স্বভাব আছে, যা থেকে অবশ্যই প্রত্যেক্টা মানুষকে বেঁচে থাকতে হবে


মানুষের অনেক গুলো বদ স্বভাব আছে, যা থেকে অবশ্যই প্রত্যেক্টা মানুষকে বেঁচে থাকতে হবে এবং এই বদ-স্বভাব গুলো যার মধ্যে থাকবে সেই হবে সবচেয়ে নিকৃষ্ট। যেটা হাদীস শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, হযরত আসমা ইবনে উমাইস রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু হতে 

রজব মাস উনার পহেলা রাতটি দোয়া কবুলের খাস রাত।


রজব মাস উনার পহেলা রাতটি দোয়া কবুলের খাস রাত। যে ব্যক্তি এই মাসে রোযা রাখবে মহান আল্লাহ পাক উনার পক্ষ থেকে তার জন্য ৩টি বিষয় আবশ্যক হয়ে যায়। যথাঃ ১। তার পিছনের সব গুনাহ মাফ করে দেয়া হয়। ২। ভবিষ্যতের জন্য