Posts Tagged ‘আকবর’

বেমেছাল রহমত, বরকত, ছাকিনাপূর্ণ মাস পবিত্র জুমাদাল উখরা।। উম্মু আবীহা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম তিনি এ পবিত্র মাস উনার ২০ তারিখ পবিত্র বিলাদত শরীফ গ্রহণ করেন এবং খলীফাতু রসূলিল্লাহ হযরত ছিদ্দীক্ব আকবর আলাইহিস সালাম তিনি এ পবিত্র মাস উনার ২২ তারিখ পবিত্র বিছাল শরীফ গ্রহণ করেন।


সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, উম্মু আবীহা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার পবিত্র শান-মান মর্যাদা-মর্তবা ফযীলত ও সংক্ষিপ্ত সাওয়ানেহ উমরী বা জীবনী মুবারক নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘হযরত ফাতিমাতুয যাহরা আলাইহাস সালাম তিনি

খলীফাতু রসূলিল্লাহ হযরত ছিদ্দীক্ব আকবর আলাইহিস সালাম উনার পবিত্র বিছাল শরীফ উনার মাস হচ্ছে ‘পবিত্র জুমাদাল উখরা শরীফ’।এ বছর ২২ জুমাদাল উখরা মুতাবিক এ সুমহান দিনটি হচ্ছে- ২৩ হাদি আশার ১৩৮১ শামসী, ২৩ এপ্রিল ২০১৪ ঈসায়ী, ইয়াওমুল আরবিয়া বা বুধবার।


নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘আমি মহান আল্লাহ পাক উনাকে ব্যতীত যদি অন্য কাউকে বন্ধুরূপে গ্রহণ করতাম তাহলে হযরত আবু বকর ছিদ্দীক্ব আলাইহিস সালাম উনাকেই বন্ধুরূপে গ্রহণ করতাম।’ হযরত নবী ও রসূল আলাইহিমুস

উম্মু আবীহা, হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার বিলাদত শরীফ এবং হযরত আবু বকর ছিদ্দীক্ব আলাইহিস সালাম উনার বিছাল শরীফের উছিলায় সম্মানিত জুমাদাল উখরা মাস (আপডেট হবে)


২০ জুমাদাল উখরা হযরত ফাতিমাতু যাহরা আলাইহাস সালাম বিলাদত শরীফ লাভ করেন। ২২ জুমাদাল উখরা আফযালুন নাস বা’দাল আম্বিয়া হযরত ছিদ্দীকে আকবর আবু বকর ছিদ্দীক আলাইহিস সালাম বিদায় নেন। সে উপলক্ষে উনাদের জীবনী মুবারক এবং প্রাসঙ্গিক আলোচনা————— সাইয়্যিদাতুন নিসা, উম্মু আবীহা,

হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার বিলাদত শরীফ এবং হযরত আবু বকর ছিদ্দীক্ব আলাইহিস সালাম উনার বিছাল শরীফের উছিলায় সম্মানিত জুমাদাল উখরা মাস


২০ জুমাদাল উখরা হযরত ফাতিমাতু যাহরা আলাইহাস সালাম বিলাদত শরীফ লাভ করেন। ২২ জুমাদাল উখরা আফযালুন নাস বা’দাল আম্বিয়া হযরত ছিদ্দীকে আকবর আবু বকর ছিদ্দীক আলাইহিস সালাম বিদায় নেন। সে উপলক্ষে উনাদের জীবনী মুবারক এবং প্রাসঙ্গিক আলোচনা————— সাইয়্যিদাতুন নিসা, উম্মু আবীহা,

পহেলা বৈশাখ তথা ফসলী সনের প্রথম দিন,যা মূলত: মুসলমানদের জন্য নয়


পহেলা বৈশাখ (ফসলী সনের প্রথম দিন) উপলক্ষে বিভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের সাথে কিছু নামধারী মুসলমান ও যোগ দেয়। কিন্তু ইসলামের পক্ষ থেকে এবিষয়ে কি ফয়সালা , তা অনেকেই জানে না। তাই কথিত সার্বজনীন উৎসবের নাম দিয়ে সবাই বদ রসম, কুসংস্কৃতি, বেপর্দা বেহায়াপনা, আর

প্রসঙ্গ: ‘শাহরুল আ’যম মাহে রবীউল আউয়াল শরীফ এবং সাইয়্যিদুল আইয়াদ। এখন থেকেই তা যথাযথভাবে পালন করার প্রস্থতি গ্রহণ করতে হবে।


মহান আল্লাহ পাক ইরশাদ করেন, ‘(হে আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!) নিশ্চয়ই আমি আপনাকে কাওছার (খইরে কাছির) দান করেছি।’ পবিত্র ঈদে মীলাদুন্‌ নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামই কুলকায়িনাত-এর সর্বশ্রেষ্ঠ ঈদ তথা সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ বা সাইয়্যিদে ঈদে আ’যম, ঈদে আকবর। যা

কথিত নববর্ষ উপলক্ষে ইউ টিউবে ব্যাপক(!) আয়োজন। চলুন না ঘুরে আসি।


ফসলী সনের শুরুতে কিছু লোক হারাম অনুষ্ঠান এবং কার্যক্রম নিয়ে মেতে উঠে। তারা এটাকে বাঙালী জাতির ঐতিহ্য বলে মনে করে। অথচ বাঙালীর ইতিহাস , ঐতিহ্যের কোন কিছুই এর সাথে সম্পর্কিত নয়। এটা সম্পূর্ন হিন্দুয়ানী সংস্কৃতি। এদিনে হিন্দুদের বেশ কিছু পুজাও রয়েছে।

পহেলা বৈশাখ তথা ফসলী সন,যা মূলত: মুসলমানদের জন্য নয়


পহেলা বৈশাখ আসন্ন। এ পহেলা বৈশাখ  উপলক্ষে বিভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের সাথে কিছু নামধারী মুসলমান ও যোগ দেয়। কিন্তু ইসলামের পক্ষ থেকে  এবিষয়ে কি ফয়সালা , তা অনেকেই জানে না। তাই কথিত সার্বজনীন  উৎসবের নাম দিয়ে সবাই বদ রসম, কুসংস্কৃতি, বেপর্দা বেহায়াপনা, আর