Posts Tagged ‘আশুরা’

পবিত্র আশুরা শরীফ পালনের মধ্যে মুসলমানদের যাবতীয় কল্যাণ নিহিত


পবিত্র আশুরা যিনি খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার তরফ থেকে বান্দাদের প্রতি অফুরন্ত দয়া ও ইহসান উনার নিদর্শন। কারণ পবিত্র আশুরা বান্দার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে মুক্তি দানের উছিলা। মানুষ মাত্রেই সবসময়ই রুজী- রোজগার নিয়ে পেরেশানীতে থাকে। আর এই

পবিত্র আশুরা মিনাল মুহররমুল হারাম শরীফকে সম্মান করুন মাত্র কয়েকটি নেক আমলের মাধ্যমে


দুনিয়া হলো পরকালের শস্যক্ষেত্র। আমলের বীজ বপন এবং চাষাবাদের জায়গা। দুনিয়ায় যে যেমন আমলের বীজ বপন করবে, যেমন চারা রোপণ করবে, যেমন সময়-শ্রম দিয়ে আমলের চাষাবাদ করবে, পরকালে সে তেমনই ফল ও প্রতিদান লাভ করবে। তাই দুনিয়া থেকেই আখিরাতের পাথেয় সংগ্রহ

আজ সুমহান ঐতিহাসিক পবিত্র আশূরা মিনাল মুহররমুল হারাম শরীফ। যেদিনটি সকলের জন্যই রহমত, বরকত ও সাকীনা হাছিল করার দিন।


নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘আমার হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করো আমার সন্তুষ্টি মুবারক লাভের জন্য।’ আজ সুমহান ঐতিহাসিক পবিত্র আশূরা মিনাল মুহররমুল হারাম শরীফ। যেদিনটি সকলের জন্যই রহমত,

প্রসঙ্গ: পবিত্র আশূরা শরীফ উনার রোযা- সর্বাবস্থায় বিধর্মীদের অনুসরণ থেকে বেঁচে থাকা মুসলমানদের জন্য ফরয-ওয়াজিব


পবিত্র আশূরা শরীফ উনার অন্যতম আমল হলো ৯ ও ১০ই মুহররম অথবা ১০ ও ১১ই মুর্হরম তারিখে রোযা রাখা। এ রোযা রাখা খাছ সুন্নত উনার অন্তর্ভুক্ত। নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি পবিত্র আশূরা উনার রোযা রেখেছেন

পহেলা বৈশাখের গান্ধা ভাত না খেয়ে পবিত্র আশুরার দিন ভালো খাবার খেতে হবে


বাংলাদেশ শতকরা ৯৭ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত দেশ। এদেশের রাষ্ট্র দ্বীন হলো ইসলাম। কিন্তু উলামায়ে ‘সু’দের বিভ্রান্তি ও কুফরীমুলক বক্তব্য এবং সরকারের বৈষম্যমুলক আচরণের কারণে দেশের মানুষ ইসলামী অনুষ্ঠান পালন বাদ দিয়ে বিজাতীয়-বিধর্মীদের অনুষ্ঠান পালনে মশগুল হয়ে যাচ্ছে। নাঊযুবিল্লাহ! দেশের ধর্মব্যবসায়ী উলামায়ে

কতিপয় প্রচলিত ঈমান বিধ্বংসী কুফরীমূলক কুসংস্কার


সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “কোনো বিষয়কেই অশুভ ও কুলক্ষণে মনে করা শিরকের অন্তর্ভুক্ত। তিনি এ বাক্যটি তিনবার উল্লেখ করেন।” (মুসনাদ আহমদ বিন হাম্বল শরীফ ১ম খ-

মুহররমুল হারাম শরীফ ও আশুরা শরীফ উনার শিক্ষা


মুহররমুল হারাম তথা সম্মনিত পবিত্র মাস। এ মাসের অনেক ফযীলত সম্মান রয়েছে। ঘটনাবহুল এ মাসে রয়েছে অনেক ঐতিহাসিক ঘটনা। সকল ঘটনা থেকে অনেক নসীহত বা শিক্ষা রয়েছে। বিশেষ করে ১০ মুহররমুল হারাম তথা পবিত্র আশুরা শরীফে অনেক স্মরনীয় ঘটনাই ঘটেছে। এর

উনার দিনের বিশেষ বিশেষ ওয়াকিয়াসমূহ


পবিত্র ১০ই মুহররমুল হারাম শরীফ বা পবিত্র আশূরা শরীফ এই বরকতময় পবিত্র ১০ই মুহররমুল হারাম শরীফ উনার দিনেই সৃষ্টির সূচনা হয় এবং এই দিনেই সৃষ্টির সমাপ্তি ঘটবে। বিশেষ বিশেষ সৃষ্টি এ বরকতময় দিনেই করা হয় এবং বিশেষ বিশেষ ঘটনা এ বরকতময়

গণতন্ত্রের কুফলের কারণেই পবিত্র আশূরা শরীফ উনার ফযীলত সম্পর্কে কোনো রাষ্ট্রীয় প্রচারণা, পৃষ্ঠপোষকতা নেই


অবৈধ সন্তান আব্রাহাম লিঙ্কন প্রবর্তিত গণতন্ত্র শান্তির ধর্ম পবিত্র ইসলাম উনার সাথে সাংঘর্ষিক হওয়ার কারণেই হারাম গণতন্ত্রের বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত গণতান্ত্রিক দেশের মুসলমানগণ। বাংলাদেশে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম হলেও আদতে এদেশের মুসলমানগণ ধর্মের কোনো আবহ খুঁজে পায় না। এমনকি সরকারি প্রচারণায় বা রাষ্ট্রীয় উদ্যোগে

এক বছরের সমস্যা সমাধান!!!!!!!!!!!!!!!!!!!


আজ মাগরীবের পর থেকে আগামীকাল মাগরীবের আগ পর্যন্ত নিয়ত করে ভালো খাবেন, তো একবছর স্বচ্ছল থাকবেন। নিয়ত করে গোসল করবেন তো একবছর সুস্থ থাকবেন। চোখে সুরমা দিবেন তো একবছর চোখ ভালো থাকবে।  সবই নিয়ত করে করতে হবে এবং আশুরা শরীফ উনার

পবিত্র আশূরা মিনাল মুহররম শরীফ উনার বিশেষ কিছু আমল ও ফযীলত-(১)


পবিত্র মুহররমুল হারাম শরীফ মাস উনার উল্লেখযোগ্য ও শ্রেষ্ঠতম দিন হচ্ছে ১০ই মুহররমুল হারাম শরীফ পবিত্র আশূরা শরীফ উনার দিন। এই মুবারক দিনটি বিশ্বব্যাপী এক আলোচিত দিন। কেননা সৃষ্টির সূচনা হয় এ দিনে এবং সৃষ্টির সমাপ্তিও ঘটবে এই দিনে। বিশেষ বিশেষ

পবিত্র মুহররমুল হারাম শরীফ উনার দশ তারিখ হাক্বীক্বী মুসলমান হওয়ার অঙ্গীকারের দিন


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “হে ঈমানদারগণ! তোমরা পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে পরিপূর্ণরূপে প্রবেশ করো এবং শয়তানের পদাঙ্ক অনুসরণ করো না। সে তোমাদের প্রকাশ্য শত্রু।” অর্থাৎ উক্ত পবিত্র আয়াত