Posts Tagged ‘ইতিহাস’

মুসলমানদের ইসলামচ্যুত হওয়ার পেছনে বড় কারণ ইতিহাস বিমুখতা


সম্মানিত রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি ইতিহাস নিয়ে নিয়মিত আলোচনা করে থাকেন। বিশেষ করে হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মুবারক যমীনে আগমন ও সম্মানিত বিছাল শরীফ গ্রহণ উনাদের মুবারক দিন-তারিখসমূহ ও সংশ্লিষ্ট ইতিহাস ইহুদি-খ্রিস্টানরা

মুসলমানদের মধ্যে ‘বিভক্তি’ নিয়ে যারা প্রশ্ন তোলে তারা ইতিহাস জ্ঞানশূন্য 


সমাজে নামধারী অনেক মুসলমান আছে, যারা ইসলাম সম্পর্কে তো কিছু জানেই না, ইতিহাস সম্পর্কেও ধারণা নেই। এ শ্রেণীর লোকগুলো সাধরণত দুনিয়াদার (টাকার মোহে অন্ধ) হয়ে থাকে। ইতিহাস ও ইসলামী শিক্ষায় অজ্ঞতার কারণে মুসলমানদের মধ্যে বিভক্তি নিয়ে এরা প্রায় সময়ই এমন কথা

ইতিহাস থেকে প্রমাণ- যে আমল মুবারক কখনো কোনভাবেই নষ্ট হয়নি এবং হয়না 


মুঘল শাসক আকবরের নাম শুনেনি এমন লোক খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। তার সময়কার এক ক্ষমতাধর দুনিয়াদার গুমরাহ বাদশাহ। মূলত, মুঘল বাদশাহদের দাপট তৎকালীন দুনিয়ায় এতই প্রবল ছিল যে অন্যান্য রাজা-বাদশাহরা সবসময় ভয়ে তটস্থ থাকতো- কখন না জানি মুঘলদের রোষানলে পড়ে ক্ষমতাহীন হতে

পবিত্র ছফর শরীফ মাস সব সরকার প্রধানদের ইতিহাস থেকে নছীহত গ্রহণের মাস


পবিত্র ছফর শরীফ মাসটি শুরু হয়েছে। সরকার প্রধানগণ এ সম্মানিত মাস থেকে কতটুকু শিক্ষা গ্রহণ করার প্রস্তুতি নিয়েছেন- তা বুঝা যাচ্ছে না। বিধায় কিছু লিখতে বাধ্য হলাম। বাদশাহ আকবরের পরিচয় জানেন না এমন কোনো সরকার আছেন কিনা তা আমার জানা নেই।

প্রখ্যাত ইমাম-মুজতাহিদ উনাদের দৃষ্টিতে পবিত্র হারামাইন শরীফে পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনের ইতিহাস।


বাতিল ফিরক্বার লোকেরা বলে থাকে পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ নাকি এই সেদিন থেকে প্রচলিত হয়েছে। নাউযুবিল্লাহ! হারামাইন শরীফে এ দিবস পালন হতো না! নাউযুবিল্লাহ! অথচ ইতিহাস সাক্ষী- সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার শুরু থেকেই হারামাইন শরীফে পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালন হতো।

প্রখ্যাত ইমাম-মুজতাহিদ উনাদের দৃষ্টিতে পবিত্র হারামাইন শরীফে পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনের ইতিহাস।


বাতিল ফিরকার লোকেরা বলে থাকে পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ নাকি এই সেদিন থেকে প্রচলিত হয়েছে। নাউযুবিল্লাহ! হারামাইন শরীফে এ দিবস পালন হতো না! নাউযুবিল্লাহ! অথচ ইতিহাস সাক্ষী সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার শুরু থেকেই হারামাইন শরীফে পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালন হতো।

কুরবানীবিরোধী পদক্ষেপ নেয়ার পূর্বে সরকারকে ইতিহাস থেকে শিক্ষা নেয়া উচিত


বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকার ইসলামবিদ্বেষীদের প্ররোচনায় পবিত্র কুরবানীর পশুর হাট কমানো, ঢাকা শহরের বাইরে জনশূন্য এলাকায় হাট বসানো, পরিচ্ছন্নতার মিথ্যা অজুহাতে কুরবানীর পশু জবাইয়ের স্থান নির্দিষ্ট করার মতো জঘন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এই পদক্ষেপের কারণে এদেশের মুসলমানরা পবিত্র কুরবানী করতে সমস্যার সম্মুখীন

কলকাতার আদালতের খতিয়ান: যেখানে কোন হিন্দু ছিল না


“বর্তমানে যারা জীবিত তাদের সকলেরই মনে আছে যে, আইনের এই পেশাটা সম্পূর্ণভাবে মুসলমানদেরই করায়ত্ত ছিল। ” ১৮৭৩ সালে প্রকাশিত উইলিয়াম হান্টারের ‘দি ইন্ডিয়ান মুসলমানস’ বইতে উপরোক্ত মন্তব্যটি করা হয়েছিল। আইন ব্যবসা কেন সম্পূর্ণরূপে মুসলমানদের করায়ত্ত্ব ছিল, তার উত্তর হলো ব্রিটিশ আমলেও

গণতন্ত্র চর্চার নামে চালু হওয়া ‘ছাত্র সংসদ’-এর নিকটতম ইতিহাস কলঙ্কময়। সম্প্রতি গণতন্ত্র চর্চার নামে ‘ক্ষুদে মন্ত্রিসভা’ও এখনই হানাহানিকর। শিশুদের রক্ষায় অবিলম্বে ক্ষুদে মন্ত্রিসভা বাতিল করা উচিত।


কৈশোর থেকে গণতন্ত্র চর্চা শেখানোর নামে দেশের মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের জন্য ক্ষুদে মন্ত্রিসভা গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বলা হচ্ছে, এই উদ্যোগের ফলে কিশোর বয়স থেকে শিক্ষার্থীদের গণতন্ত্র চর্চা ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের প্রতি শ্রদ্ধাশীল করে তুলবে। কিন্তু গণতন্ত্র চর্চার সূতিকাগার হিসেবে পরিচিত

১লা এপ্রিল এর ইতিহাস


আজকাল মানুষ ইতিহাস পড়ে না। তাই সত্য ঘটনাগুলো বই এর পাতায় চাঁপা পড়ে থাকে। ইতিহাস না জানার কারণে অনেকেই ১লা এপ্রিল পালন করে থাকে। অথচ এই দিনটি মুসলমানদের জন্য একটি করুন ও দুঃখের দিন। প্রায় হাজার বছর পূর্বে মুসলমানগন যখন স্পেন

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে ভারতীয় সেনা বাহিনীর লুটপাটের ইতিহাস


১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে বীর মুক্তি বাহিনী যখন দেশের ৯৫-৯৯ শতাংশ অঞ্চল মুক্ত করে ফেলেছিল, ঠিক তখন ৩রা ডিসেম্বর ভারতীয় আরদালী বাহিনী লুটপাট করার জন্য বাংলাদেশে প্রবেশ করে। তারা ১৬ ডিসেম্বরের পর বাংলাদেশ জুড়ে নজির বিহীন লুটপাট চালিয়েছিলো। ৯৩ হাজার পাকিস্তানী সৈন্যদের

মুনাফিক সউদী ওহাবীদের পবিত্র রওজা শরীফ ও পবিত্র মাজার শরীফ ভেঙ্গে ফেলার নিকৃষ্ট ইতিহাস


গত ২রা সেপ্টেম্বর ২০১৪ ঈসায়ী তারিখে যুক্তরাজ্যের দৈনিক পত্রিকা ইনডিপেনডেন্ট পত্রিকায় নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহা পবিত্র রওযা  শরীফ সরিয়ে ফেলার সউদী ওহাবী ইহুদী সরকারের ঘৃণ্য পরিকল্পনার কথা প্রকাশিত হয়। এখবর প্রকাশিত হওয়ার পরে সারা বিশ্বজুড়ে মুসলমানদের