সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দু:খিত। ব্লগের উন্নয়নের কাজ চলছে। অতিশীঘ্রই আমরা নতুনভাবে ব্লগকে উপস্থাপন করবো। ইনশাআল্লাহ।

Posts Tagged ‘ঈদে মীলাদুন নবী’

পবিত্র ঈদে মীলাদুন্নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এমন এক মহান আমল, এমন এক ঈদ, যদি কোন মানুষ এই ঈদ পালন করে অবশ্যই সে প্রতিদান পাবেই পাবে।


۞ পবিত্র ঈদে মীলাদুন্নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এমন এক মহান আমল, এমন এক ঈদ, যদি কোন মানুষ এই ঈদ পালন করে অবশ্যই সে প্রতিদান পাবেই পাবে। ۞ , মানুষের সমগ্র জীবনের অনেক আমল থাকে, সে আমল আল্লাহ পাক উনার দরবারে

মহাপবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার বিরোধীরা আবু লাহাবের চেয়ে কোটি কোটিগুণ নিকৃষ্ট এবং জাহান্নামের কীট


আবু লাহাব একাধারে বারো বছর নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিরোধিতা করেছিল। মহান আল্লাহ পাক তিনি আবু লাহাব ও তার স্ত্রীসহ পরিবারের সকলের ধ্বংসের ব্যাপারে পবিত্র সূরা লাহাব শরীফ নাযিল করেছেন এবং তারা আযাবে-গযবে ধ্বংস হয়ে

এক দিরহাম খরচ করে জান্নাতী হতে চান নাকি একটি ডিম খরচ করে জাহান্নামী হতে চান?


মহান আল্লাহ পাক তিনি বান্দা-বান্দী ও উম্মতদেরকে নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে পাওয়ার করার কারণে ঈদ বা খুশি প্রকাশ করতে সরাসরি নির্দেশ প্রদান করেছেন। এ প্রসঙ্গে মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “হে আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু

মহাপবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার বিরোধীরা আবু লাহাবের চেয়ে কোটি কোটিগুন নিকৃষ্ট জাহান্নামের কীট


আবু লাহাব একাধারে বার বছর নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ, হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিরোধীতা করেছিল।  মহান আল্লাহ পাক তিনি আবু লাহাব ও তার স্ত্রীসহ পরিবারের সকলের ধ্বংসের ব্যাপারে পবিত্র সুরা লাহাব নাযিল করেছেন এবং তারা আযাবে-গযবে ধ্বংস হয়ে জাহান্নামের কীটে

ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালন করা ফরয হওয়ার প্রমাণ


ঊছুলে ফিক্বাহর সমস্ত কিতাবেই উল্লেখ আছে যে, الامر للوجوب অর্থাৎ আদেশসূচক বাক্য দ্বারা সাধারণত ফরয-ওয়াজিব সাব্যস্ত হয়ে থাকে। যেমন কালামুল্লাহ শরীফ-এ ইরশাদ হয়েছে, اقيموا الصلوة অর্থাৎ “তোমরা নামায আদায় করো।” কুরআন শরীফ-এর এ নির্দেশসূচক বাক্য দ্বারাই নামায ফরয সাব্যস্ত হয়েছে। অনুরূপ

পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সম্পর্কে ভ্রান্ত আক্বীদাঃ “মীলাদুন নবী” শব্দের কোন শরয়ী ভিত্তি নাই। তাই সীরাতুন নবী মাহফিল করা উচিত


অনেকে বলে থাকে যে, “মীলাদুন নবী” শব্দের কোন শরয়ী ভিত্তি নাই। তাই সীরাতুন নবী মাহফিল করা উচিত   জবাবঃ উক্ত উপরোক্ত বক্তব্যে ‘ঈদ’ শব্দটি বাদ দিয়ে শুধু ‘মীলাদুন নবী’ শব্দ ব্যবহার করে প্রমাণ করেছে যে, তারা খোদ ইবলিসেরই একান্ত অনুসারী। কারণ

পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সম্পর্কে ভ্রান্ত আক্বীদাঃ বিধর্মীয় সংস্কৃতি পালন করা হচ্ছে


অনেকে বলে থাকে যে, জন্মাষ্টমী, বৌদ্ধপূর্ণিমা, যিশুর জন্ম দিনের মত ঈদে মীলাদুন নবী নামে বিধর্মীয় সংস্কৃতি পালন করা হচ্ছে   জবাবঃ উক্ত বক্তব্য হাদীছ শরীফ-এর সরাসরি মুখালিফ বা বিরোধী হওয়ার কারণে কাট্টা কুফরী হয়েছে। কারণ হাদীছ শরীফ-এ বর্ণিত রয়েছে- হযরত আবূ

পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সম্পর্কে ভ্রান্ত আক্বীদাঃ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি পালন করতে বলেননি


অনেকে বলে থাকে যে, পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালনের জন্য হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কোন নির্দেশ দেননি।   জবাবঃ হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুমগণ‘ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম’ উদযাপিত হয়েছে। সুবহানাল্লাহ! যেমন

পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সম্পর্কে ভ্রান্ত আক্বীদাঃ ইসলামে তৃতীয় কোনো ঈদ নেই


অনেকে বলে থাকে যে, ইসলামে ঈদুল আযহা ও ঈদুল ফিতর ব্যতীত তৃতীয় কোন ঈদ নেই। তাই পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালন করা শরীয়ত সম্মত নয়   জবাবঃ সূরা মায়িদা-এর মধ্যে হযরত ঈসা আলাইহিস সালাম-উনার প্রতি আসমানী (বেহেশতী)

আশ্রাফ আলী থানভীর ফতোয়া তাবলীগীরাই অস্বীকার করে


তাবলীগ জামাত পন্থীরা আশ্রাফ আলী থানভীকে বড় মাপের আলেম হিসেবে মেনে থাকে এবং তার সকল ফতোয়া অনুসরণ করে যার অনেকগুলোই শরীয়ত পরিপন্থী। খেলাধুলা জায়িজ এবং ইঞ্জেকশন নিলে রোজা ভঙ্গ হয় না ইত্যাদি কুরআন শরীফ ও হাদীছ শরীফ বিরোধী ফতোয়া নির্দিধায় পালন

একমাত্র ইহুদী, মুশরিক আর বিধর্মীরাই ঈদে মীলাদুন নবীর বিরোধিতা করে থাকে


মহান আল্লাহ রব্বুল আলামীন পবিত্র কুরআন শরীফ-এ ইহুদী এবং মুশরিককে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় শত্রু হিসেবে উল্লেখ করেছেন। ইহুদীদের সর্বাধিক আক্রোশ ছিলো নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি; যে কারণে তারা উনাকে শহীদ পর্যন্ত করার কোশেশ করেছিলো,

পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হলো সমস্ত ইবাদতের জামে বা মূল


কুরআন শরীফ, হাদীছ শরীফ, ইজমা ও ক্বিয়াসের আলোকে নামায, রোযা, হজ্জ, যাকাতসহ সমস্ত ইবাদতের ফাযায়িল-ফযীলত ও বুযূর্গী সম্পর্কে অসংখ্য, অগণিত দলীল ও বর্ণনা রয়েছে, যা আমরা শত সহ¯্র কিতাবে দেখতে পাই। তবে সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ, সাইয়্যিদে ঈদে আ’যম, সাইয়্যিদে ঈদে আকবর সম্পর্কে