Posts Tagged ‘কারবালা’

কারবালা প্রান্তর


কারবালা প্রান্তরে ঘটে যাওয়া এই মর্মান্তিক ঘটনা সম্পর্কে পূর্ব হতেই নবীগণ (আলাইহিস সালাম) অবগত ছিলেন। কেননা নবীগণ (আলাইহিস সালাম)-এর জীবনীর প্রতি দৃষ্টিপাত করলে পরিলক্ষিত হয় যে, আল্লাহ রাব্বুল আলামিন উনার নবীগণকে বিভিন্ন ঘটনার প্রেক্ষিতে কারবালা ও ইমাম হুসাইন (আলাইহিস সালাম) সম্পর্কে

ইয়াযিদ চরম স্তরের নিকৃষ্ট কাফির- এটাই বিশুদ্ধ আক্বীদা।


১০ই মুর্হরম পবিত্র আশূরার দিনে সাইয়্যিদু শাবাবি আহলিল জান্নাহ, আলে রসূলিল্লাহ হযরত ইমাম হুসাইন আলাইহিস সালাম তিনিসহ হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মহান সদস্য ও সঙ্গীগণ কারবালার প্রান্তরে মর্মান্তিকভাবে শাহাদাত বরণ করেন; আর এর জন্য দায়ী হলো চরম লা’নতপ্রাপ্ত

প্রতিশোধ নিতে হর কারবালার


ঠক-প্রতারক রাজা ফার্ডিনান্ড মসজিদকে নিরাপদ ঘোষণা করে সরলমনা মুসলিমরা মসজিদে গেলে তাদের আগুনে পুড়িয়ে মারে সে দিনটি ছিল পহেলা এপ্রিল যেদিনে খ্রিস্টানরা উল্লাসে ফেটেপড়ে আহ! শঠতা-ধোকার ঐ দিনটি কি করে মুসলমানরা পালন করে হায়রে ! এমন করূন ইতিহাস ……….আজ কজন মুসলমান

তবুতো হায়! কারবালারই দূ:খ না মুছে…


কেঁদে কেঁদে চোখের পানি শুকিয়ে গেছে তবুতো হায়! কারবালারই দু:খ না মুছে।   করুণ স্মৃতি ঝড়ায় অশ্রুবাণ, হাবীবী লহুর এ কেমন অসম্মান! ভেবে ভেবে পাই না দিশা, পরিণাম কী হবে যারা হাবীবী দুলালকে কষ্ট দিয়েছে।   ব্যথায় কাতর নবীজীর আহাল ভুবন

কারবালার হাক্বীক্বী ঘটনা এবং শিক্ষা মুজাদ্দিদে আ’যম উনার ছোহবত ব্যতীত অর্জন সম্ভব নয়


পবিত্র আশূরা মিনাল মুহররম যেমন বরকতময় দিন, তেমনি কারবালা ময়দানে হৃদয় বিদারক ঘটনার দিন। মুসলমানরা আজ এই দিন এবং কারবালার ঘটনা জানে না বললেই চলে। যারা টুকটাক জানে, তারা ভ্রান্ত আক্বীদার, শিয়া মতাবলম্বী মীর মোশাররফ হোসেনের বই পড়ে ভুল ইতিহাস জানে।

কারবালার সঠিক ইতিহাস জানতে এই বইটি সংগ্রহ করুন


প্রথমবারের মতো বাংলাভাষায় অসংখ্য হাদীছ শরীফ দিয়ে প্রমাণিত (দলিলভিত্তিক) কারবালার ইতিহাস। আপনার কপি আজই সংগ্রহ করুন:. “কারবালার হৃদয় বিদারক ইতিহাস” প্রচ্ছদ:- প্রকাশনায়: গবেষণা কেন্দ্র: মুহম্মদিয়া জামিয়া শরীফ, রাজারবাগ শরীফ, ঢাকা। হাদিয়া: ৫০(পঞ্চাশ) টাকা মাত্র প্রাপ্তিস্থান: কিতাব বিক্রয় কেন্দ্র, মুহম্মদ জামিয়া শরীফ ৫,

কারবালার হৃদয় বিদারক ইতিহাস-১


মুখবন্ধ সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন্ নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসামম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র আহলে বাইত ও আওলাদগণকে মুহব্বত করা প্রতিটি ঈমানদারের জন্য ফরয-ওয়াজিব। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, আহলে বাইত ও আওলাদে রসূলগণকে মুহব্বত করার পরিবর্তে

ইয়া কারবালা, সালামুন ইয়া আশূরা!!!


ইয়া কারবালা, সালামুন ইয়া আশূরা ইয়া শহীদে কারবালা, ওই শহীদে কারবালা, বাড়ায় দিলের জ্বালা অশ্রুসজল নয়নে, কাঁদে জিন ও ইনসানে। ইয়াযীদ ক্ষমতার লোভে, দিলো ইসলাম ছেড়ে বাইয়াত হতে বলে, পাষাণ ওই কাফিরে ইমামজী বাইয়াত না হয়ে, গেলেন মদীনা ছেড়ে মক্কাতে বাকি

ওই শহীদে কারবালা


ওই শহীদে কারবালা ইয়া কারবালা, সালামুন ইয়া আশূরা ইয়া শহীদে কারবালা, ওই শহীদে কারবালা, বাড়ায় দিলের জ্বালা অশ্রুসজল নয়নে, কাঁদে জিন ও ইনসানে।

কাঁদায় শুধু অন্তরে


কাঁদায় শুধু অন্তরে কাঁদায় শুধু অন্তরে অন্তরে অন্তরে কাঁদায় শুধু অন্তরে ইমাম হুসাইন শহীদ হলেন ওই কারবালার প্রান্তরে

ইলাহীর রেযা পেতে, শহীদ হলেন কারবালাতে


ইলাহীর রেযা পেতে ইলাহীর রেযা পেতে শহীদ হলেন কারবালাতে, নবীজীর মত ও পথে রইলেন ইস্তিক্বামতে ॥