Posts Tagged ‘ছবি’

ছবি নিয়ে সরকারী আমলাদের বাড়াবাড়ি কেন?


সরকার কি জোরপূর্বক মুসলমানদেরকে কাফির বানাতে চায়? সরকার কি মুসলমান না??? সরকার কি মহান আল্লাহ পাক উনার পবিত্র আয়াত শরীফ বিশ্বাস করে না? مَن لَّمْ يَحْكُم بِمَا أَنزَلَ اللهُ فَأُولَئِكَ هُمُ الْكَافِرُونَ (৪৪) অর্থ: “মহান আল্লাহ পাক তিনি যা নাযিল করেছেন,

এই তিন ধরণের লোক থেকে সাবধান! 


একদিন পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার ২য় খলীফা সাইয়্যিদুনা হযরত ফারূক্বে আ’যম আলাইহিস সালাম তিনি হযরত যিয়াদ বিন হুদাইর রহমতুল্লাহি আলাইহি উনাকে বললেন, আপনি কি জানেন কোন্ ব্যক্তি বা কারা পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার ক্ষতিসাধন করে থাকে। তখন তিনি বললেন, আমার সেটা

ছবির মতো হারাম গুনাহ থেকে বিরত থাকা এবং ফিঙ্গারপ্রিন্ট পদ্ধতি চালু করা ফরয মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমরা নেকী ও পরহেযগারীর মধ্যে পরস্পর পরস্পরকে সাহায্য করো”।


আমরা মুসলমান এবং এটি একটি মুসলিম দেশ। এদেশের ৯৮ ভাগ মুসলিম আর বাকি ২ ভাগ অমুসলিম। দুঃখজনক হলেও এটা সত্যি যে, ২ ভাগ অমুসলিম হয়েও তারা আমাদের দেশে যে ধরনের সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে পারছে আমরা ৯৮ ভাগ মুসলিম হয়েও তা পারছি

ছবিবিহীন পবিত্র হজ্জ পালন করার ব্যবস্থা করা সকল মুসলিম দেশের সরকারের দায়িত্ব ও কর্তব্য


ছবি অঙ্কন করা ও ছবি তোলা ইসলামবিরোধী কাজ। যে ব্যক্তি ছবি তোলে বা তোলায় সে ব্যক্তি চরম ফাসিক। ছবি তোলা এবং পর্দা লঙ্ঘন করা খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার ও উনার রসূল, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ

সিসি ক্যামেরা সরিয়ে পাপাচার মুক্ত পবিত্র হজ্জ করার ব্যবস্থা করুন


সউদী ওহাবী সরকার পবিত্র মক্কা শরীফ ও পবিত্র মদীনা শরীফ উনাদেরকে সন্ত্রাস মুক্ত রাখা ও সন্ত্রাসী চিহ্নিতকরণের অজুহাতে পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র হাদীছ শরীফ উনাদের খিলাফ করে পবিত্র মক্কা শরীফ ও পবিত্র মদীনা শরীফ-এ সিসি ক্যামেরা ফিট করেছে। ছবি তোলা

হারাম ছবির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো ফরয-ওয়াজিব


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “কোনো মু’মিন পুরুষ-মহিলার জন্য জায়িয হবে না- মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং উনার রসূল নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা যে ফায়ছালা করেছেন, সেই ফায়ছালার মধ্যে স্বীয়

মুজাদ্দিদে আ’যম হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম-উনার ক্বওল শরীফ


নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘যারা ছবি তুলবে ও তোলাবে প্রত্যেকেই জাহান্নামী হবে।’ সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার আলোকে ছবি তোলা, আঁকা, রাখা হারাম। অথচ সউদী ওহাবী ইহুদী সরকার প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরেও

আইডি কার্ডের জন্য ছবি তুলতে বাধ্য করায় কি মুসলমানদের ধর্মীয় অধিকার ক্ষুন্ন হচ্ছে না?


আইডি কার্ডের জন্য ছবি তুলতে বাধ্য করায় কি মুসলমানদের ধর্মীয় অধিকার ক্ষুন্ন হচ্ছে না?……. মুসলিম অধ্যুষিত এই দেশে শতকরা ৯৮ ভাগই মুসলমান এবং দেশের রাষ্ট্রীয় দ্বীন ইসলাম। যা সংবিধানে সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ রয়েছে। ধর্মপালন এবং প্রচারের ক্ষমতা সংবিধানে উল্লেখ আছে। তৎপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ

কে বা কারা নাহক্ব তা বুঝার জন্য কোনো আলামত আছে কী?


মুসলমান মাত্রই প্রত্যেকই নিজেকে হক্ব বলে দাবি করে এবং যেকোনো দল বা সংগঠনের সাথে জড়িত সে তার দল ও সংগঠনকে হক্ব তথা শরীয়তসম্মত বা ইসলামসম্মত মনে করে। কিন্তু কেউ হক্ব দাবি করলে বা মনে করলেই যে তা সত্য হবে তা নয়।

হারাম ছবির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো ফরয-ওয়াজিব


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “কোনো মু’মিন পুরুষ-মহিলার জন্য জায়িয হবে না- মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং উনার রসূল নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা যে ফায়ছালা করেছেন, সেই ফায়ছালার মধ্যে স্বীয়

স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়–য়া ছাত্র-ছাত্রীদেরকে নিয়ে এখানকার পিতা-মাতারা বড়ই উদগ্রীব থাকে


স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়–য়া ছাত্র-ছাত্রীদেরকে নিয়ে এখানকার পিতা-মাতারা বড়ই উদগ্রীব থাকে। কারণ একাকী ছেলে কিম্বা মেয়েকে বাইরে ছাড়তে রাজি নন। এমনকি ঘরে ছেলে-মেয়েকে রেখেও পিতা-মাতারা দুশ্চিন্তা করতে থাকে টেলিভিশনে, ইন্টারনেটে মোবাইল, কম্পিউটারের মাধ্যমে হারাম ছবি দেখা থেকে। আর এই হারাম ছবি তোলা, দেখা

প্রাণীর ছবি থেকে আমরা কখন মুক্তি পাবো?


  নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, ‘যে স্থানে প্রাণীর ছবি থাকে সেখানে রহমত উনার ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারা প্রবেশ করেন না।’ অর্থাৎ সে স্থানে রহমত উনার পরিবর্তে লা’নত