Posts Tagged ‘ছবি’

প্রাণীর ছবি থেকে আমরা কখন মুক্তি পাবো?


  নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, ‘যে স্থানে প্রাণীর ছবি থাকে সেখানে রহমত উনার ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারা প্রবেশ করেন না।’ অর্থাৎ সে স্থানে রহমত উনার পরিবর্তে লা’নত

সরকার কি জোর পূর্বক মুসলমানদেরকে কাফের বানাতে চায় ?


সরকারের কাছে জানতে চাই, সরকার কি জোর পূর্বক মুসলমানদেরকে কাফের বানাতে চায় ? সরকার কি মুসলমান না ? ? ? সরকার কি মহান আল্লাহ পাক উনার আয়াত শরীফ বিশ্বাস করে না? مَن لَّمْ يَحْكُم بِمَا أَنزَلَ اللَّـهُ فَأُولَـٰئِكَ هُمُ الْكَافِرُونَ ﴿٤٤

মানুষের মধ্যে ঐ ব্যক্তি অধিক জালিম


হাদীস শরীফ এ এসেছে, “মানুষের মধ্যে ঐ ব্যক্তি অধিক জালিম, যে ব্যক্তি মহান আল্লাহ পাক উনার সৃষ্টির সাদৃশ্য কোন প্রাণীর ছুরত সৃষ্টি করে। তাকে বলা হবে একটি দানা সৃষ্টি কর অথবা একটি কণা সৃষ্টি কর। (বুখারী শরীফ ২য় জিঃ, পৃঃ ৮৮০,

প্রাণীর ছবি, মূর্তি, ভাস্কর্য তৈরিকারী, চর্চাকারী, তৈরিকরানেওয়ালা প্রত্যেকেই জাহান্নামী


বাংলাদেশ একটি মুসলিম প্রধান দেশ। এদেশের প্রশাসন, শিক্ষা, সংস্কৃতি, শিল্পপ্রতিষ্ঠানসহ সর্বত্রই মুসলমানদের উপস্থিতিই সিংহভাগ। অমুসলিম হাতে গোনার মধ্যে সীমাবদ্ধ। এদেশের ৫৫,০০০ বর্গমাইলের মধ্যে লক্ষ লক্ষ মসজিদ, মাদরাসা, খানকা শরীফ, মাযার শরীফ। এদেশের মুসলমানরা অত্যন্ত ধর্মভীরু। মুসলমানদের দুশমন ইহুদী-নাছারা, মুশরিক ও নাস্তিকদের

আপনি কি জানেন, সউদী আরবে কিভাবে হারাম টেলিভিশন প্রবেশ করেছিলো?


অনেকেই দাবি করে থাকে, সউদী আরবে যদি হারাম টিভি থাকে, তবে অন্যস্থানে রাখতে সমস্যা কোথায়? নাউযুবিল্লাহ! এর উত্তরে বলতে হয়, সউদী আরব পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার দলিল নয়, পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার দলিল হচ্ছে পবিত্র কুরআন শরীফ এবং পবিত্র হাদীছ শরীফ।

যে ঘরে প্রাণীর ছবি থাকে, সেখানে নামায পড়া জায়িয নেই


উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আয়িশা ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম তিনি বর্ণনা করেন, উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মু হাবীবাহ আলাইহাস সালাম এবং উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মু সালামা আলাইহাস সালাম উনারা উভয়ে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার কাছে

সিসিটিভি কখনোই নিরাপত্তা দিতে পারে না; যা দিতে পারে তাহল গুনাহ


ইদানীং আমাদের দেশে নিরাপত্তার অজুহাতে সিসিটিভি স্থাপনের হার অতিমাত্রায় বৃদ্ধি পাচ্ছে। মূলত, সিসিটিভি নিরাপত্তা প্রদানে ব্যর্থ-এর পক্ষে কিছু যুক্তি তুলে ধরা হলো- ১. যদি কোনো প্রতিষ্ঠানে শত শত সিসিটিভি বসানো থাকা অবস্থায় কেউ কোনো শক্তিশালি বোমা নিক্ষেপ করে অথবা আত্মঘাতী বোমা

‘মুনাফিকদের চিনে নিন’


আখিরী রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “যেখানে প্রাণীর ছবি থাকে সেখানে রহমত উনার ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারা প্রবেশ করেন না।” অথচ অনেক এলাকার মসজিদ উনার প্রবেশদ্বারেই রয়েছে অশ্লীল ছবি সম্বলিত বিলবোর্ড। প্রতিদিন

আমরা কোন দিকে যাচ্ছি?


সম্মানিতা হুর-গেলমানের আলোচনায় কুণ্ঠা। তার বিপরীতে অশ্লীল শব্দ আওড়াতে স্বতঃস্ফূর্ততা হুর-গেলমান লাভের মানসিকতা পোষণের পরিবর্তে বিবস্ত্রপনায় বিপর্যস্ত হওয়া তথা চরিত্রহীনতায় পর্যবসিত হওয়া। নাঊযুবিল্লাহ! জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জীবনের একটি অসতর্ক অধ্যায় হলো সাম্যবাদীদের দ্বারা সাময়িক বিভ্রান্তি। কবি তখন অকুণ্ঠচিত্তেই লিখেছেন-

একটু দাঁড়ান, পড়ুন।


নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি প্রাণীর ছবি ধ্বংস করে ফেলতেন আর আপনি তা তৈরি করছেন, এটা কি উনার বিরোধিতা নয়? –বুখারী শরীফ ২য় জিলদ ৮৮০পৃষ্ঠায় এবং মিশকাত শরীফ ৩৮৫ পৃষ্টায় উল্লেখ রয়েছে- ﻋﻦ ﻋﺎﺋﺸﺔ ﻋﻠﻴﻬﺎ ﺍﻟﺴﻼﻡ

পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে বিধর্মীদের কালচার বলা কাট্টা কুফরী


সুলত্বানুল আরিফীন হযরত ইমাম জালালুদ্দীন সুয়ূতী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি উনার “ওসায়িল ফী শরহি শামায়িল” নামক কিতাবে বলেন, যেকোনো ঘরে অথবা মসজিদে অথবা মহল্লায় মীলাদ শরীফ পাঠ করা হয় বা মীলাদুন্ নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উদ্যাপন করা হয়, সেখানে অবশ্যই মহান

ছবি নয়; ফিঙ্গার প্রিন্ট হোক প্রতিটি প্রয়োজনের একমাত্র মাধ্যমঃ-


হাদীস শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে-প্রত্যেক ছবি তুলনেওয়ালা  জাহা্ন্নামী। নাঅউযুবিল্লাহ, কাজেই যারা ছবি তুলবে,তারা সকলেই জাহান্নামী হয়ে যাবে,৯৭ ভাগ মুসলমান দের এই দেশ সব কিছুতে ছবি থাকা যেন এই দেশের অন্যতম ভুষন,ছবি ছাড়া যেন দেশ জনগন কোনটাই চলেনা, কিন্তু কেন?