Posts Tagged ‘ছবি’

যারা ছবি তুলবে, আঁকবে বা ছবি তুলতে আঁকতে উৎসাহ প্রদান করবে তাদের জন্য পরকালে কঠিন শাস্তি নির্ধারিত


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র সূর হাশর শরীফ উনার ৭নং পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি তোমাদের জন্য যা নিয়ে এসেছেন, তা তোমরা আঁকড়ে ধরো এবং

জাতীয় প্রেসক্লাব বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগের সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধন


জামাত জোটের রাজনৈতিক প্রতিহিংসা থেকে দেশকে রক্ষার লক্ষ্যে হরতাল বিরোধী আইন প্রণয়ন করা,  সব যুদ্ধাপরাধীদের দ্রুত বিচার করে অবিলম্বে ফাঁসি কার্যকর করা, শুধু নিবন্ধন বাতিল নয় অবিলম্বে জামাত শিবিরসহ সকল ধর্মব্যবসায়ী দল নিষিদ্ধ ঘোষণা করা, মুসলমানের ধর্মীয় অধিকার ক্ষুন্নকারী বোরকা ও

ছবি নিয়ে দু‘জন বান্দবীর গল্প:-


এক জায়গায় দুজন বান্ধবী ছিল, তারা দু’জন দেখতে প্রায় একই চেহারার ছিল৤ কেউ দেখলেই তাদেরকে বলতো তারা যমজ বোন। এ রকম অনেকের ধারণা শুনে তারা দু’জনেই হাসাহাসি করতো। একবার তাদের ‍যখন ৮ম শ্রেণীর বৃত্তি পরীক্ষা সময় তাদের পরপর দু‘টি সামনা সামনি

ছবি তোলা হারাম এবং হালাল মনে করা কুফরী


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে যে, “প্রত্যেক ছবি তোলনেওয়ালা এবং তোলনেওয়ালী উভয়ই জাহান্নামী।” এই হাদীছ শরীফ দ্বারা প্রতিভাত হয়েছে যে, যে ছবি তোলে এবং তোলায়, আঁকে বা অঙ্কন করে উভয়কেই জাহান্নামের অতল গহ্বরে প্রবেশ করতে হবে। অর্থাৎ সে

হারাম টিভি চ্যানেলে মুসলমানদের মশগুল করতে কাফিরদের নতুন ফন্দি ‘টেলিভিশন’ সিনেমা; সতর্ক হোন, সতর্ক করুন


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ করেন, “ ইহুদী-নাছারা তথা কাফির-মুশরিকরা চায় তোমরা (মুসলমানরা) ঈমান আনার পর তোমাদের কাফির বানিয়ে দিতে।” মহান আল্লাহ পাক তিনি অন্যত্র আরো ইরশাদ করেন, “ইহুদী-নাছারারা তথা কাফির-মুশরিকরা কখনো তোমাদের (মুসলমানদের) প্রতি সন্তুষ্ট হবে না যতোক্ষণ পর্যন্ত তোমরা

পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার দৃষ্টিতে প্রাণীর ছবি তোলা, আঁকা, রাখা প্রত্যেকটিই হারাম


বর্তমান প্রেক্ষাপট নিয়ে প্রশ্ন। প্রতিটি কাজ-কর্ম আজকের প্রেক্ষাপটে ছবি ছাড়া অসম্ভব। ছবি দ্বারা আজ পুরো দেশটাই পরিপূর্ণ। একটি জমি কিনবে তাতেও ছবি, একটি চাকরি তাতেও ছবি। এরূপ বিদেশ যাওয়া, হজ্জ করা ইত্যাদিতে ছবি তুলতে হয়। এমনকি একটা মোবাইল সিম কিনতে গেলেও

ছবিকে ত্যাগ করুন, ফিঙ্গার প্রিন্টকে গ্রহণ করুন


বর্তমান সময় হচ্ছে আধুনিক প্রযুক্তির যুগ। প্রযুক্তি ও বিজ্ঞানের অগ্রগতির কারণে মানুষ আজ চাঁদে পৌঁছে গেছে। প্রযুক্তির অন্যতম উপহার হচ্ছে ফিঙ্গার প্রিন্ট পদ্ধতিতে সনাক্তকরণ যা সর্বোত্তম পদ্ধতি, সুলভ মূল্যে ও নির্ভুল পদ্ধতি। কিন্তু মুসলমান উনারা এই উন্নতি প্রযুক্তির ব্যবহার না করায়

দায়িমী কোনো ফরয তরক করে পবিত্র হজ্জ পালন করা জায়িয নেই


পর্দা করা এবং ছবি তোলা বর্জন করা দায়িমীভাবে অর্থাৎ সার্বক্ষণিকভাবে ফরয। অপরদিকে শর্ত সাপেক্ষে জীবনে একবার পবিত্র হজ্জ করা ফরয। স্মরণীয় যে, খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র হজ্জে গমনকারীদের ক্ষেত্রে শর্তারোপ উল্লেখ করে ইরশাদ মুবারক করেন, “যাদের উপর

হজ্জ ফরজ। তবে ছবি তুলে ও বেপর্দা হয়ে নয়


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “যে ব্যক্তির প্রতি পবিত্র হজ্জ ফরয সে যেন পবিত্র হজ্জ পালন করতে গিয়ে বেহায়া, বেপর্দামূলক কোনো অশ্লীল-অশালীন কাজ না করে এবং কোনো প্রকার ফাসিকী বা নাফরমানীমূলক কাজ না করে এবং ঝগড়া-বিবাদ না করে।” (পবিত্র

ছবি তুলে ও বেপর্দা হয়ে পবিত্র হজ্জ পালন করা জাহান্নামী হওয়ার লক্ষণ


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “যে ব্যক্তির প্রতি পবিত্র হজ্জ ফরয সে যেন পবিত্র হজ্জ পালন করতে গিয়ে বেহায়া, বেপর্দামূলক কোনো অশ্লীল-অশালীন কাজ না করে এবং কোনো প্রকার ফাসিকী বা নাফরমানীমূলক কাজ না করে এবং ঝগড়া-বিবাদ না করে।” (পবিত্র

ছবি তোলাকে ইসলাম বৈধতা দেয় না।”ছবি তোলাকে ‘হারাম’ ঘোষণা করতে বাধ্য হলো ভারতের দেওবন্দ মাদ্রাসা।


মাদ্রাসার উপাচার্য (মোহতামিম) মুফতি আবদুল কাসিম নোমানি এই ফতোয়া দিয়ে বলেছেন, ইসলাম কোনোভাবে ভিডিও বা চিত্রধারণকে স্বীকৃতি দেয় না। সংবাদ সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়াকে টেলিফোনে দেয়া এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, “চিত্রধারণ সম্পূর্ণ অনৈসলামিক। পরিচয়পত্র বা পাসপোর্টের প্রয়োজন ছাড়া অন্য কোনো

মুজাদ্দিদে আ’যম উনার মুবারক তাজদীদ “ছবি তোলা হারাম” মানতে বাধ্য হলো ভারতের দেওবন্দ


দেওবন্দ থেকে অবশেষে স্বীকার করা হলো ছবি তোলা হারাম। এবং মক্কা শরীফ থেকে নামাজের ভিডিও প্রকাশ করাটাকেও তারা হারাম হিসেবে স্বীকার করলো। লিংক: