Posts Tagged ‘তওবা’

ইতিহাস থেকে প্রমাণ- যে আমল মুবারক কখনো কোনভাবেই নষ্ট হয়নি এবং হয়না 


মুঘল শাসক আকবরের নাম শুনেনি এমন লোক খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। তার সময়কার এক ক্ষমতাধর দুনিয়াদার গুমরাহ বাদশাহ। মূলত, মুঘল বাদশাহদের দাপট তৎকালীন দুনিয়ায় এতই প্রবল ছিল যে অন্যান্য রাজা-বাদশাহরা সবসময় ভয়ে তটস্থ থাকতো- কখন না জানি মুঘলদের রোষানলে পড়ে ক্ষমতাহীন হতে

তওবা’র মধ্যেই নতুন জীবন


মহান আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামীন তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মাঝে ইরশাদ মুবারক করেন, ‘হে ঈমানদারগণ, তোমরা মহান আল্লাহ পাক উনার কাছে তওবা কর, খালিছ তওবা; অবশ্যই তোমাদের রব তোমাদের গুণাহসমূহ মুছে দিবেন এবং তোমাদের এমন জান্নাতসমূহে প্রবেশ করাবেন যার পাদদেশে

মুনাফিকী হতে খালিস তওবা ইস্তেগফার করে ঈমানদার মুসলমান হওয়া ছাড়া নাজাতের কোন উপায় নাই


  আজকাল প্রায় শুনা যায়, আসলে আমরা নামে মুসলমান, কাজে আমরা বিধর্মী বিজাতী। অর্থাৎ দাবী করা হয় মুসলমান আর ঈমানদারীর কিন্তু আমল আখলাকে পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের আদেশ নিষেধ পালন করার কোন নজির নেই। উল্টো সম্মানিত ইসলামী

ফিরে আসো… ফিরে আসো…


‘আজ নগদ কাল বাকি’ -এটা দোকানদারের ভাষা। কারণ দোকানদার জানে ‘কাল’ তথা আগামীকাল তো আর আসবে না, প্রতিদিনই ‘কাল’ আজ হয়ে যাবে। আমরা সবাই সহজে এ বিষয়টি ব্যবসা-বাণিজ্য, লেনদেনের ক্ষেত্রে খুব ভালোভাবে বুঝলেও নিজের সাথে কিন্তু ঠিক এ বাক্যটির বিপরীত প্রতারণাটিই

ফিরে আসো… ফিরে আসো…


‘আজ নগদ কাল বাকি’ -এটা দোকানদারের ভাষা। কারণ দোকানদার জানে ‘কাল’ তথা আগামীকাল তো আর আসবে না, প্রতিদিনই ‘কাল’ আজ হয়ে যাবে। আমরা সবাই সহজে এ বিষয়টি ব্যবসা-বাণিজ্য, লেনদেনের ক্ষেত্রে খুব ভালোভাবে বুঝলেও নিজের সাথে কিন্তু ঠিক এ বাক্যটির বিপরীত প্রতারণাটিই

সময় থাকতেই সময়কে কাজে লাগান।


কোন এক বুজুর্গ ব্যাক্তিকে খাটিয়ায় লাশ নিয়ে যাওয়া দেখে এক ব্যাক্তি জিজ্ঞাসা করেছিলেন এই লাশ কার? সেই বুজুর্গ ব্যাক্তি উত্তর দিয়েছিলেন, লাশ টা আপনার। সেই লোকটা উত্তর শুনে হতভম্ব হয়ে গিয়েছিল। সেই বুজুর্গ ব্যাক্তিকে আবার জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল এই লাশ টা

১০ টি কাজের ১০ টি বিশেষ ফল..!!


১. তওবায়-গুনাহ নষ্ট হয়। ২. ধোকাঁয়-রিযিক নষ্ট হয়। ৩. গীবতে-আমল নষ্ট হয়। ৪. বদ চিন্তায়-হায়াত নষ্ট হয়। ৫. ছদকায়- বিপদ আপদ দূর হয়। ৬. গোসসায়-আকল নষ্ট হয়। ৭. দুর্বল ঈমানে-দান-খয়রাত বন্ধ হয়। ৮. অহংকার – বুদ্ধি নষ্ট হয়। ৯. নেকি-পাপ নষ্ট

পবিত্র রজবুল হারাম শরীফ হলো মহান আল্লাহ পাক উনার মাস


খালিক্ব মালিক রব আল্লাহ পাক সুবহানাহূ ওয়া তায়ালা তিনি এবং কুল-কায়িনাতের নবী ও রসূল, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের ঘোষণাকৃত চারটি হারাম বা সম্মানিত মাস উনাদের মধ্যে একটি হলো পবিত্র

ফিরে আসো… ফিরে আসো…


‘আজ নগদ কাল বাকি’ -এটা দোকানদারের ভাষা। কারণ দোকানদার জানে ‘কাল’ তথা আগামীকাল তো আর আসবে না, প্রতিদিনই ‘কাল’ আজ হয়ে যাবে। আমরা সবাই সহজে এ বিষয়টি ব্যবসা-বাণিজ্য, লেনদেনের ক্ষেত্রে খুব ভালোভাবে বুঝলেও নিজের সাথে কিন্তু ঠিক এ বাক্যটির বিপরীত প্রতারণাটিই

আসুন, অধিক তওবা করি


  “ভুল শুধুই ভুল ছিল, এখন শুধরাতে যদি পারি। অতীতের ভুল শুধরিয়ে নিয়ে ভালো যেন হতে পারি ।   এই দুনিয়ায় কেউ রবে না, সবার যেতে হবে। কোথায় যাব , কার কাছে ? সবার জানা আছে।   শুধু আছেন অন্তর্যামী, মনে-প্রাণে

হারাম খাওয়া সম্পর্কেঃ


  পবিত্র কোরআন শরীফে এরশাদ হয়েছে,   ياايها الناس كلوا ممافى الارض حلالا طيبا ولا تتبعوا خطوات الشيطان انه لكم عدو مبين. অর্থঃ-  “হে লোক সকল! তোমরা যমিন থেকে হালাল ও পবিত্র খাদ্য-সামগ্রী খাও। আর শয়তানের পদাঙ্ক অনুসরণ করোনা, নিশ্চয় শয়তান

মুসলমান উনারা সমস্ত হারাম ও কুফরী থেকে তওবা করলে কাফিররা আরো দ্রুত ধ্বংস হবে


মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার মুবারক দোয়া উনার বরকতে মুসলমান উনাদের উপর যুলুম-নির্যাতনকারী কাফির-মুশরিক গোষ্ঠী ধারাবাহিক খোদায়ী গযবে ধ্বংস হচ্ছে। এখানে শুকরিয়া করার বিষয় হচ্ছে, কোনো মুসলমান দেশে কোনো ধরনের খোদায়ী গযব নাযিল হচ্ছে না, যা হচ্ছে সবই কাফির-মুশরিকদের দেশে। মহান