Posts Tagged ‘দ্বীন ইসলাম’

পবিত্র দ্বীন ইসলাম নিয়ে কটূক্তির জবাব দেয়া ঈমানের দাবি 


‘ইসলাম’ শান্তির দ্বীন। সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার অনুসরণে মুসলমান-ঈমানদারগণ শান্তিতে থাকেন ও শান্তিতে থাকতে চাইবেন এটাই স্বাভাবিক। পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার অন্যতম উছুল হলো- ফিতনা-ফাসাদ হলো- খুন বা হত্যার চেয়েও বেশি ঘৃণিত ও ভয়ঙ্কর। মুসলমান-ঈমানদারদের এই শান্তিপ্রিয়তা ও শান্তভাবকে অমুসলিম-বিধর্মীরা সুযোগ

আইন করে বিবাহের বয়স নির্ধারণ করার অর্থ হচ্ছে সম্মানিত পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার উপর হস্তক্ষেপ করা 


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “আমার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সম্মানিত ও পবিত্র ওহী মুবারক ব্যতীত কোনো কথা মুবারক বলেন না এবং কোনো কাজ মুবারক করেন না।” তাহলে সরকার কি দাবি করে

মুসলমানদের মধ্যে বিভক্তির কারণ নিয়ে যারা প্রশ্ন তোলে তারা ইতিহাস জ্ঞানশূন্য


সমাজে নামধারী অনেক মুসলমান আছে, যারা ইসলাম সম্পর্কে তো কিছু জানেই না, ইতিহাস সম্পর্কেও ধারণা নেই। এ শ্রেণীর লোকগুলো সাধরণত দুনিয়াদার (টাকার মোহে অন্ধ) হয়ে থাকে। ইতিহাস ও ইসলামী শিক্ষায় অজ্ঞতার কারণে মুসলমানদের মধ্যে বিভক্তি নিয়ে এরা প্রায় সময়ই এমন কথা

বাৎসরিক ছুটি কাটানোর বিষয়টি এসেছে মূলত দ্বীনি দিবসগুলো সুষ্ঠুভাবে পালন করার উদ্দেশ্যে। কিন্তু গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা প্রবর্তনের কারণে রাজনৈতিক দিবসের সংখ্যা বাড়তে থাকে; ফলে মুসলমানগণ বিশেষ বিশেষ নিয়ামত হাছিলের দ্বীনী দিবসগুলো পালন করা হতে মাহরূম হচ্ছে এবং বেখবরও থাকছে। নাউযুবিল্লাহ! ৯৮ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত দেশে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার সঙ্গে সম্পৃক্ত সমস্ত বিশেষ বিশেষ দিবসগুলোতে বাধ্যতামূলক ছুটি দেয়া সরকারের জন্য দায়িত্ব ও কর্তব্য।


যামানার লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ, যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহইউস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, মুজাদ্দিদে আ’যম, ক্বইয়ূমুয যামান, জাব্বারিউল আউওয়াল, ক্বউইয়্যূল আউওয়াল, সুলত্বানুন নাছীর, হাবীবুল্লাহ, জামিউল আলক্বাব, আওলাদে রসূল, মাওলানা সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, বাৎসরিক ছুটি কাটানোর বিষয়টি

সম্মানিত দ্বীন ইসলাম সম্পর্কিত আর্টিকেল লেখার জন্য ইংরেজি ভাষার কিছু সংস্কার করা আবশ্যক


বর্তমানে সারাবিশ্বে সবার নিকট বোধগম্য ভাষা বলতে ইংরেজিকেই বোঝানো হয়। অন্যান্য ভাষা থেকে ইংরেজি ভাষায় বিভিন্ন প্রবন্ধ ও আর্টিকেল লিখে ছড়ানো হয়, যেন তা অন্যান্য ভাষাভাষীর নিকট পৌঁছানো যায়। তবে এখানে একটি সমস্যা রয়েছে, তা হচ্ছে প্রচলিত ইংরেজি ভাষায় আদব, শরাফত,

সম্মানিত দ্বীন ইসলামই একমাত্র নারীদেরকে মর্যাদার আসনে আসীন করেছেন এবং সকল প্রকার অধিকার প্রদান করেছেন।


সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মাঝেই নারীদের সর্বোচ্চ হক্ব ও সম্মান ঘোষিত হয়েছে সম্মানিত দ্বীন ইসলামই একমাত্র নারীদেরকে মর্যাদার আসনে আসীন করেছেন এবং সকল প্রকার অধিকার প্রদান করেছেন। শুধু তাই নয়, বরং সঠিকভাবে কন্যা সন্তান লালন-পালনের বিনিময় হিসেবে বেহেশতের ঘোষণা দিয়েছেন। পিতা-মাতার

যে ব্যক্তি যথাযথভাবে নামায আদায় করলো সে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনাকে কায়িম রাখলো


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে, ‘সম্মানিত নামাযই মুসলমান ও অমুসলমানদের মধ্যে পার্থক্য সৃষ্টিকারী। নামায হলো সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার খুঁটি বা স্তম্ভ। যে ব্যক্তি যথাযথভাবে নামায আদায় করলো সে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনাকে কায়িম রাখলো আর যে সঠিকভাবে সম্মানিত

সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে- প্রত্যেক মুসলমান পুরুষ-নারী সকলের জন্য দ্বীনি ইলম অর্জন করা ফরযে আইন


সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে- প্রত্যেক মুসলমান পুরুষ-নারী সকলের জন্য দ্বীনি ইলম অর্জন করা ফরযে আইন। আর এই দ্বীনি ইলম হাসিল করার জন্য বর্তমানে সহজ মাধ্যম হলো প্রকৃত দ্বীনি ইলম হাসিলের প্রতিষ্ঠান মাদরাসা শিক্ষা ব্যবস্থা। যদিও বর্তমানে মাদরাসাসমূহে সঠিকভাবে দ্বীনি ইলম

“যে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম ব্যতীত অন্য কোন দ্বীন তালাশ করে তার থেকে সেটা গ্রহণ করা হবে না। সে পরকালে ক্ষতিগ্রস্থদের অন্তর্ভূক্ত হবে।”


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট একমাত্র দ্বীন হলো ইসলাম। আহলে কিতাবদের মধ্যে যারা তাদের নিকট ইলম আসার পরেও তাদের পরস্পর বিরোধের কারণেই ইখতিলাফ করলো। আর যে ব্যক্তি মহান আল্লাহ পাক উনার আয়াত শরীফ

মহান আল্লাহ পাক উনার নিদর্শন সম্বলিত দিবসগুলিকে স্মরণ করিয়ে দিন সমস্ত কায়িনাতকে। নিশ্চয়ই এর মধ্যে ধৈর্যশীল ও শোকরগোজার বান্দা-বান্দী উনাদের জন্য ইবরত ও নছীহত রয়েছে।’


সুমহান বেমেছাল বরকতময় ২২শে জুমাদাল ঊলা শরীফ- নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনাদের মহাপবিত্র মহাসম্মানিত আযীমুশ্শান নিকাহিল আযীম শরীফ দিবস। সাইয়্যিদু কুরাইশ, সাইয়্যিদুন নাস, মালিকুল জান্নাহ, জাদ্দু রসূলিল্লাহ

বর্তমান যামানায় ইসলামের উপর দায়িম-কায়িম থাকতে যে বিষয়গুলো আপনার জানা অত্যন্ত জরুরী


মহান আল্লাহ পাক মানবজাতির হিদায়েতের জন্যে যমীনে হাদী পাঠান। এ প্রসঙ্গে পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ-এ ইরশাদ হয়েছে- ولكل قوم هاد অর্থাৎ “প্রত্যেক ক্বওমের জন্যেই ‘হাদী বা হিদায়েতকারী’ রয়েছে।” (সুরা রা’দ: আয়াত শরীফ ৭) তাই পৃথিবীতে একলক্ষ চব্বিশ হাজার মতান্তরে দুইলক্ষ চব্বিশ হাজার